ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিয়ে একজনের, কনের বাড়িতে হাজির ৭০ বর!

একসঙ্গে ৭০ জন বর হাজির কনেবাড়িতে? গেট আটকে বিপাকে কনেপক্ষ। কে আসল বর বোঝার উপায় নেই। ‌‌‘আমার বিয়ে, আমার বিয়ে’ স্লোগান সবার।

শুনতে অবাক মনে হলেও শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) এমনই ঘটনা ঘটেছে মুন্সিগঞ্জ সদরের ধলাগাঁও এলাকায়।

তবে বিব্রতকর কোনো ঘটনা ঘটেনি। জেলার টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেতকা এলাকার তারেক আজিজ রাজনের বিয়েকে স্মরণীয় করে রাখতে এমনই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তার বন্ধুুরা। কনে স্থানীয় আমেনা আক্তার স্বর্ণালি।

বর তারেক আজিজের বন্ধু সাকিল জানান, সবাই মিলে পরিকল্পনা করেছিলাম বিয়েতে যেন চমকপ্রদ কিছু করতে পারি, সেই লক্ষ্যই এ আয়োজন। সেটা আমরা করতে পেরেছি। বিয়েতে তারপর গেট আটকে ধরলেও কে আসল বর তা কেউ খোঁজে করতে পারিনি। এটা ছিল সবচেয়ে মজার বিষয়।

বরের আরেক বন্ধু বলেন, আসল বরকে বের করতে পারলে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হবে এমন কথাও বলেছিলাম, কিন্তু কনেপক্ষের কেউ বের করতে পারেননি। আর আমাদের কাছে টাকাও দাবি করতে পারেননি। পরে আমরা অল্প কিছু টাকা দিয়ে বিয়ে বাড়িতে ঢুকেছি।

বর তারেক আজিজ বলেন, বন্ধুরা আনন্দ করবে তাই সবাই মিলে এ পরিকল্পনা করা হয়েছে। আমরা ৭০জন একই রকম শেরওয়ানি ও পাগড়ি পরে কনের বাড়িতে এসেছি।

দেখা যায়, বরযাত্রীর বাইকের বহরে সবাই পরেছে শেরওয়ানি-পাগড়ি। বর সেজে একসঙ্গে ৭০জন হাজির কনেবাড়িতে। গেট আটকে বিপাকে পড়েন কনেপক্ষ। কে আসল বর বোঝার উপায় নেই। আমার বিয়ে, আমার বিয়ে স্লোগান সবার। বহু বরের উপস্থিতি ঘিরে দিনভর আনন্দ-উল্লাসে মেতে ছিল বিয়েবাড়ির লোকজন। এক বরযাত্রীতে এত বর দেখে অবাক কনেবাড়ির লোকজনসহ আগত অতিথিরা।

অতিথি এক নারী জানান, জীবনে অনেক বিয়ে খেয়েছি। অনেক মানুষ বিভিন্নভাবে সেঁজে এসেছে। তবে, এমন বিয়ে প্রথম দেখাম। এত মানুষ জামাই সেজে এসেছে একসঙ্গে।

কনেপক্ষের আরেকজন বলেন, বিষয়টি খুব ইন্টারেস্টিং ছিল। খুব আনন্দ হয়েছে। একটি নতুন অভিজ্ঞতা লাভ করলাম। এমন আয়োজন হয়তো এর আগে কোথাও হয়নি।

নতুন জীবনে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন নবদম্পতি।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

বিয়ে একজনের, কনের বাড়িতে হাজির ৭০ বর!

আপডেট সময় ০৪:১৩:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৭ জানুয়ারী ২০২৩

একসঙ্গে ৭০ জন বর হাজির কনেবাড়িতে? গেট আটকে বিপাকে কনেপক্ষ। কে আসল বর বোঝার উপায় নেই। ‌‌‘আমার বিয়ে, আমার বিয়ে’ স্লোগান সবার।

শুনতে অবাক মনে হলেও শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) এমনই ঘটনা ঘটেছে মুন্সিগঞ্জ সদরের ধলাগাঁও এলাকায়।

তবে বিব্রতকর কোনো ঘটনা ঘটেনি। জেলার টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেতকা এলাকার তারেক আজিজ রাজনের বিয়েকে স্মরণীয় করে রাখতে এমনই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তার বন্ধুুরা। কনে স্থানীয় আমেনা আক্তার স্বর্ণালি।

বর তারেক আজিজের বন্ধু সাকিল জানান, সবাই মিলে পরিকল্পনা করেছিলাম বিয়েতে যেন চমকপ্রদ কিছু করতে পারি, সেই লক্ষ্যই এ আয়োজন। সেটা আমরা করতে পেরেছি। বিয়েতে তারপর গেট আটকে ধরলেও কে আসল বর তা কেউ খোঁজে করতে পারিনি। এটা ছিল সবচেয়ে মজার বিষয়।

বরের আরেক বন্ধু বলেন, আসল বরকে বের করতে পারলে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হবে এমন কথাও বলেছিলাম, কিন্তু কনেপক্ষের কেউ বের করতে পারেননি। আর আমাদের কাছে টাকাও দাবি করতে পারেননি। পরে আমরা অল্প কিছু টাকা দিয়ে বিয়ে বাড়িতে ঢুকেছি।

বর তারেক আজিজ বলেন, বন্ধুরা আনন্দ করবে তাই সবাই মিলে এ পরিকল্পনা করা হয়েছে। আমরা ৭০জন একই রকম শেরওয়ানি ও পাগড়ি পরে কনের বাড়িতে এসেছি।

দেখা যায়, বরযাত্রীর বাইকের বহরে সবাই পরেছে শেরওয়ানি-পাগড়ি। বর সেজে একসঙ্গে ৭০জন হাজির কনেবাড়িতে। গেট আটকে বিপাকে পড়েন কনেপক্ষ। কে আসল বর বোঝার উপায় নেই। আমার বিয়ে, আমার বিয়ে স্লোগান সবার। বহু বরের উপস্থিতি ঘিরে দিনভর আনন্দ-উল্লাসে মেতে ছিল বিয়েবাড়ির লোকজন। এক বরযাত্রীতে এত বর দেখে অবাক কনেবাড়ির লোকজনসহ আগত অতিথিরা।

অতিথি এক নারী জানান, জীবনে অনেক বিয়ে খেয়েছি। অনেক মানুষ বিভিন্নভাবে সেঁজে এসেছে। তবে, এমন বিয়ে প্রথম দেখাম। এত মানুষ জামাই সেজে এসেছে একসঙ্গে।

কনেপক্ষের আরেকজন বলেন, বিষয়টি খুব ইন্টারেস্টিং ছিল। খুব আনন্দ হয়েছে। একটি নতুন অভিজ্ঞতা লাভ করলাম। এমন আয়োজন হয়তো এর আগে কোথাও হয়নি।

নতুন জীবনে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন নবদম্পতি।