ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৫ দিনের রিমান্ডে বিএনপি নেতা চাঁদ

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার মামলায় রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৫ মে) বিকাল রাজশাহী জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এর বিচারক মাহবুব আলম তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-কমিশনার রফিকুল আলম বলেন, ‘সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ৬ এর ২ ধারার মামলায় আসামি চাঁদকে বিকালে আদালতে তোলে পুলিশ। আদালতে তার ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। এ সময় চাঁদের আইনজীবীরা রিমান্ডের বিরোধিতা করেন। তবে শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুঠিয়া থানার এসআই সুজন আলী বলেন, ‘এই ঘটনার পেছনে কেউ আছে কিনা, প্রকৃত রহস্য খুঁজে বের করতে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। এ সময় চাঁদের আইনজীবীরা রিমান্ডের বিরোধিতা করেন। তবে শুনানি শেষে আদালত সার্বিক বিবেচনা করে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদেশের পর বিকাল ৫টা ১৫ মিনিটে আদালত থেকে জেলা পুলিশের হেফাজতে তাকে নেওয়া হয়।’

এর আগে বেলা সোয়া ১১টার দিকে নগরীর ভেড়িপাড়া মোড় থেকে চাঁদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আবু সাঈদ চাঁদ বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং রাজশাহী জেলা কমিটির আহ্বায়ক। তিনি চারঘাট উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান। একাধিকবার বিএনপির প্রার্থী হিসেবে তিনি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিলেও নির্বাচিত হতে পারেননি।

গত ১৯ মে বিকালে পুঠিয়া উপজেলার শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে চাঁদ বলেন, ‘আর ২৭ দফা ১০ দফার মধ্যে আমরা নাই। এক দফা- শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করার জন্য যা যা করার দরকার আমরা করবো।’ তার এই বক্তব্যের ভিডিও দুই দিন পর ছড়িয়ে পড়লে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। রাজশাহী জেলা ও মহানগরসহ দেশের বিভিন্ন থানায় তার নামে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে বেশ কিছু মামলা হয়। আত্মগোপনে থাকা চাঁদকে গ্রেফতারে অভিযান চালিয়ে আসছিল পুলিশ। আজ গ্রেফতারের পর চাঁদকে নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে আরএমপির সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

৫ দিনের রিমান্ডে বিএনপি নেতা চাঁদ

আপডেট সময় ০৪:৩৩:২৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ মে ২০২৩

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার মামলায় রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৫ মে) বিকাল রাজশাহী জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এর বিচারক মাহবুব আলম তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-কমিশনার রফিকুল আলম বলেন, ‘সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ৬ এর ২ ধারার মামলায় আসামি চাঁদকে বিকালে আদালতে তোলে পুলিশ। আদালতে তার ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। এ সময় চাঁদের আইনজীবীরা রিমান্ডের বিরোধিতা করেন। তবে শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুঠিয়া থানার এসআই সুজন আলী বলেন, ‘এই ঘটনার পেছনে কেউ আছে কিনা, প্রকৃত রহস্য খুঁজে বের করতে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। এ সময় চাঁদের আইনজীবীরা রিমান্ডের বিরোধিতা করেন। তবে শুনানি শেষে আদালত সার্বিক বিবেচনা করে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদেশের পর বিকাল ৫টা ১৫ মিনিটে আদালত থেকে জেলা পুলিশের হেফাজতে তাকে নেওয়া হয়।’

এর আগে বেলা সোয়া ১১টার দিকে নগরীর ভেড়িপাড়া মোড় থেকে চাঁদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আবু সাঈদ চাঁদ বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং রাজশাহী জেলা কমিটির আহ্বায়ক। তিনি চারঘাট উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান। একাধিকবার বিএনপির প্রার্থী হিসেবে তিনি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিলেও নির্বাচিত হতে পারেননি।

গত ১৯ মে বিকালে পুঠিয়া উপজেলার শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে চাঁদ বলেন, ‘আর ২৭ দফা ১০ দফার মধ্যে আমরা নাই। এক দফা- শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করার জন্য যা যা করার দরকার আমরা করবো।’ তার এই বক্তব্যের ভিডিও দুই দিন পর ছড়িয়ে পড়লে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। রাজশাহী জেলা ও মহানগরসহ দেশের বিভিন্ন থানায় তার নামে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে বেশ কিছু মামলা হয়। আত্মগোপনে থাকা চাঁদকে গ্রেফতারে অভিযান চালিয়ে আসছিল পুলিশ। আজ গ্রেফতারের পর চাঁদকে নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে আরএমপির সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়।