ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাসপাতালের ভেতর ফার্মেসি কর্মচারীর মরদেহ, পরিবারের দাবি হত্যা

সোনারগাঁ উপজেলায় হাসপাতালের ভেতর এক ফার্মেসি কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তবে এটি হত্যাকাণ্ড বলে দাবি করছে তার পরিবার। বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে সোনারগাঁও উপজেলার মোঘরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকার নতুন সেবা নামে এক হাসপাতালে ওই ঘটনা ঘটে। তথ্যটি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন।

নিহত যুবকের নাম জহিরুল ইসলাম (৩৭)। সে সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের কান্দারগাঁও এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে।

নিহতের বাবা গণমাধ্যমকে বলেন, ছেলে দীর্ঘদিন সোনারগাঁ নতুন সেবা হাসপাতালের ফার্মেসিতে কর্মরত ছিল। প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাতে ডিউটি করে হাসপাতালের একটি কক্ষে শুয়ে পড়ে সে। আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতাল থেকে জানানো হয় ছেলে মারা গেছে। হাসপাতালে এসে দেখি জহিরুলের মরদেহ শোবার ঘরে মেঝেতে পড়ে আছে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ছেলের হাতে-পায়ে ইনজেকশন পুশ করার দাগসহ হালকা রক্তের ছাপ আছে। আমি আসার কিছুক্ষণ পরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যান। আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে।

নতুন সেবা হাসপাতালটির পরিচালক মনির হোসেন বলেন, প্রতিদিনের মতো জহিরুল ডিউটি করে তার কক্ষে শুয়ে পড়েন। আজ সকালে তাকে ডাকতে গেলে কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে ভেতরে গিয়ে দেখি তিনি শুয়ে আছেন। পরীক্ষা করে দেখা যায়, তিনি মারা গেছেন। পরবর্তীতে আমরা বিষয়টি তার পরিবারকে ফোন দিয়ে জানাই।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন বলেন, খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। সুরতহাল রিপোর্ট করে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর এটি হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু তা বলা সম্ভব হবে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

হাসপাতালের ভেতর ফার্মেসি কর্মচারীর মরদেহ, পরিবারের দাবি হত্যা

আপডেট সময় ০৪:১৪:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

সোনারগাঁ উপজেলায় হাসপাতালের ভেতর এক ফার্মেসি কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তবে এটি হত্যাকাণ্ড বলে দাবি করছে তার পরিবার। বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে সোনারগাঁও উপজেলার মোঘরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকার নতুন সেবা নামে এক হাসপাতালে ওই ঘটনা ঘটে। তথ্যটি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন।

নিহত যুবকের নাম জহিরুল ইসলাম (৩৭)। সে সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের কান্দারগাঁও এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে।

নিহতের বাবা গণমাধ্যমকে বলেন, ছেলে দীর্ঘদিন সোনারগাঁ নতুন সেবা হাসপাতালের ফার্মেসিতে কর্মরত ছিল। প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাতে ডিউটি করে হাসপাতালের একটি কক্ষে শুয়ে পড়ে সে। আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতাল থেকে জানানো হয় ছেলে মারা গেছে। হাসপাতালে এসে দেখি জহিরুলের মরদেহ শোবার ঘরে মেঝেতে পড়ে আছে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ছেলের হাতে-পায়ে ইনজেকশন পুশ করার দাগসহ হালকা রক্তের ছাপ আছে। আমি আসার কিছুক্ষণ পরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যান। আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে।

নতুন সেবা হাসপাতালটির পরিচালক মনির হোসেন বলেন, প্রতিদিনের মতো জহিরুল ডিউটি করে তার কক্ষে শুয়ে পড়েন। আজ সকালে তাকে ডাকতে গেলে কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে ভেতরে গিয়ে দেখি তিনি শুয়ে আছেন। পরীক্ষা করে দেখা যায়, তিনি মারা গেছেন। পরবর্তীতে আমরা বিষয়টি তার পরিবারকে ফোন দিয়ে জানাই।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন বলেন, খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। সুরতহাল রিপোর্ট করে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর এটি হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু তা বলা সম্ভব হবে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।