ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৮ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

স্কটিশ ফার্স্ট মিনিস্টারের পদত্যাগ

স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টারের পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন নিকোলা স্টার্জন। এই রাজনীতিবিদ ২০১৪ সাল থেকে স্কটিশ সরকার প্রধানের এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এডিনবার্গের বুট হাউসে সরকারি বাসভবনে একটি সংবাদ সম্মেলনের সময় পদত্যাগের সিদ্ধান্তটি প্রকাশ করেন তিনি।

স্টার্জন বলেছেন, ‘আজ আমি আমার দলের ফার্স্ট মিনিস্টার এবং নেতা হিসেবে পদত্যাগ করার ইচ্ছা প্রকাশ করছি।’

তিনি আরো বলেন, স্কটিশ পার্লামেন্টের মাধ্যমে একজন নতুন নেতা মনোনীত না হওয়া পর্যন্ত এবং রাজা তৃতীয় চার্লস অনুমতি না দেওয়া পর্যন্ত তিনি তত্ত্বাবধায়ক পদে কাজ করবেন।

দায়িত্ব পালনের সময়ের বর্ণনা দিয়ে স্টার্জন বলেছেন, তার দায়িত্ব ছিল বিশ্বের সবচেয়ে সেরা কাজ। এটি এমন কিছু যা কঠিনতম দিনের সবচেয়ে কঠিন ঘণ্টার মধ্যে তাকে টিকিয়ে রেখেছে। একজন রাজনীতিবিদের জন্য এটি জানা গুরুত্বপূর্ণ যে কখন অন্য কারো জন্য পথ তৈরি করার সঠিক সময়। এই সিদ্ধান্ত কর্তব্য এবং ভালোবাসার জায়গা থেকে এসেছে বলেও জানান স্টার্জন।

বিদায়ি স্কটিশ ফার্স্ট মিনিস্টার জোর দিয়ে বলেছেন, তার এই সিদ্ধান্ত স্বল্পমেয়াদি চাপের ফলাফল নয়, বরং একটি গভীর এবং দীর্ঘমেয়াদি মূল্যায়ন।

উত্তরসূরির কথা বলতে গিয়ে স্টার্জন আত্মবিশ্বাস প্রকাশ করে বলেছেন, তিনি স্কটল্যান্ডকে স্বাধীনতার দিকে নিয়ে যাবেন।

গত সপ্তাহান্তে সানডে টাইমস একটি জনমত জরিপের উদ্ধৃতি দিয়ে দেখিয়েছিল, ১০ জন স্কটসের মধ্যে চারজন বিশ্বাস করেন, বর্তমান সরকারপ্রধানকে পদত্যাগ করতে হবে। গণমাধ্যমটির দাবি, লিঙ্গ স্বীকৃতি সংস্কারে স্টার্জনের পরিলল্পনা জনগণের অসন্তোষের প্রধান উৎস।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

স্কটিশ ফার্স্ট মিনিস্টারের পদত্যাগ

আপডেট সময় ০৩:৩৫:১৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টারের পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন নিকোলা স্টার্জন। এই রাজনীতিবিদ ২০১৪ সাল থেকে স্কটিশ সরকার প্রধানের এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এডিনবার্গের বুট হাউসে সরকারি বাসভবনে একটি সংবাদ সম্মেলনের সময় পদত্যাগের সিদ্ধান্তটি প্রকাশ করেন তিনি।

স্টার্জন বলেছেন, ‘আজ আমি আমার দলের ফার্স্ট মিনিস্টার এবং নেতা হিসেবে পদত্যাগ করার ইচ্ছা প্রকাশ করছি।’

তিনি আরো বলেন, স্কটিশ পার্লামেন্টের মাধ্যমে একজন নতুন নেতা মনোনীত না হওয়া পর্যন্ত এবং রাজা তৃতীয় চার্লস অনুমতি না দেওয়া পর্যন্ত তিনি তত্ত্বাবধায়ক পদে কাজ করবেন।

দায়িত্ব পালনের সময়ের বর্ণনা দিয়ে স্টার্জন বলেছেন, তার দায়িত্ব ছিল বিশ্বের সবচেয়ে সেরা কাজ। এটি এমন কিছু যা কঠিনতম দিনের সবচেয়ে কঠিন ঘণ্টার মধ্যে তাকে টিকিয়ে রেখেছে। একজন রাজনীতিবিদের জন্য এটি জানা গুরুত্বপূর্ণ যে কখন অন্য কারো জন্য পথ তৈরি করার সঠিক সময়। এই সিদ্ধান্ত কর্তব্য এবং ভালোবাসার জায়গা থেকে এসেছে বলেও জানান স্টার্জন।

বিদায়ি স্কটিশ ফার্স্ট মিনিস্টার জোর দিয়ে বলেছেন, তার এই সিদ্ধান্ত স্বল্পমেয়াদি চাপের ফলাফল নয়, বরং একটি গভীর এবং দীর্ঘমেয়াদি মূল্যায়ন।

উত্তরসূরির কথা বলতে গিয়ে স্টার্জন আত্মবিশ্বাস প্রকাশ করে বলেছেন, তিনি স্কটল্যান্ডকে স্বাধীনতার দিকে নিয়ে যাবেন।

গত সপ্তাহান্তে সানডে টাইমস একটি জনমত জরিপের উদ্ধৃতি দিয়ে দেখিয়েছিল, ১০ জন স্কটসের মধ্যে চারজন বিশ্বাস করেন, বর্তমান সরকারপ্রধানকে পদত্যাগ করতে হবে। গণমাধ্যমটির দাবি, লিঙ্গ স্বীকৃতি সংস্কারে স্টার্জনের পরিলল্পনা জনগণের অসন্তোষের প্রধান উৎস।