ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সেন্টমার্টিনে ৯টি রিসোর্টের কাজ বন্ধ, ১০টি স্থাপনা উচ্ছেদ

প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা (ইসিএ) কক্সবাজারের সেন্টমার্টিন দ্বীপে অবৈধ ৯টি রিসোর্টের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিয়েছে পরিবেশ অধিদফতর ও জেলা প্রশাসন। পাশাপাশি সমুদ্রসৈকতে বালিয়াড়ি দখল করে গড়ে তোলা ১০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত সেন্টমার্টিন দ্বীপের সমুদ্রসৈকত ও বিভিন্ন স্থানে এ অভিযান চালানো হয়। পরিবেশ অধিদফতর সেন্টমার্টিনের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক মো. আজহারুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘সেন্টমার্টিনে অবৈধভাবে নির্মাণাধীন রিসোর্টগুলোর বিরুদ্ধে পরিবেশ অধিদফতর ও জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সুফিয়ান। সঙ্গে ছিলেন পরিবেশ অধিদফতর কক্সবাজারের সহকারী পরিচালক সাইফুল ইসলাম ও ট্যুরিস্ট পুলিশ।’

পরিবেশ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অবৈধভাবে নির্মাণাধীন ৯টি রিসোর্টের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেন। এ সময় কিছু কিছু স্থাপনা আংশিক গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। পাশাপাশি সৈকত দখল করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা ১০টি বিভিন্ন অস্থায়ী দোকানের স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। পরে সেন্টমার্টিন সৈকতে মোটরবাইক না চালানো, কেয়াগাছের ক্ষতি না করা, সৈকত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষা করাসহ বিভিন্ন বিষয়ে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হয়। এসব বিষয়ে দ্বীপে ভ্রমণে আসা পর্যটকদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করা হয়।

পরিবেশ অধিদফতর সেন্টমার্টিনের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক মো. আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

সেন্টমার্টিনে ৯টি রিসোর্টের কাজ বন্ধ, ১০টি স্থাপনা উচ্ছেদ

আপডেট সময় ০২:৫৪:২১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২৩

প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা (ইসিএ) কক্সবাজারের সেন্টমার্টিন দ্বীপে অবৈধ ৯টি রিসোর্টের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিয়েছে পরিবেশ অধিদফতর ও জেলা প্রশাসন। পাশাপাশি সমুদ্রসৈকতে বালিয়াড়ি দখল করে গড়ে তোলা ১০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত সেন্টমার্টিন দ্বীপের সমুদ্রসৈকত ও বিভিন্ন স্থানে এ অভিযান চালানো হয়। পরিবেশ অধিদফতর সেন্টমার্টিনের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক মো. আজহারুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘সেন্টমার্টিনে অবৈধভাবে নির্মাণাধীন রিসোর্টগুলোর বিরুদ্ধে পরিবেশ অধিদফতর ও জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সুফিয়ান। সঙ্গে ছিলেন পরিবেশ অধিদফতর কক্সবাজারের সহকারী পরিচালক সাইফুল ইসলাম ও ট্যুরিস্ট পুলিশ।’

পরিবেশ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অবৈধভাবে নির্মাণাধীন ৯টি রিসোর্টের নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেন। এ সময় কিছু কিছু স্থাপনা আংশিক গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। পাশাপাশি সৈকত দখল করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা ১০টি বিভিন্ন অস্থায়ী দোকানের স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। পরে সেন্টমার্টিন সৈকতে মোটরবাইক না চালানো, কেয়াগাছের ক্ষতি না করা, সৈকত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষা করাসহ বিভিন্ন বিষয়ে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হয়। এসব বিষয়ে দ্বীপে ভ্রমণে আসা পর্যটকদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করা হয়।

পরিবেশ অধিদফতর সেন্টমার্টিনের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক মো. আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’