ঢাকা , সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার Logo আড়াইহাজারে রেস্টুরেন্ট থেকে অপত্তিকর অবস্থায় ১৬ কিশোর কিশোরী আটক Logo সোনারগাঁয়ে ট্রাক চাপায় যুবক নিহত, চালক আটক Logo সোনারগাঁয়ের আলোচিত সাধন মিয়া হত্যা মামলায় দুইজনের মৃত্যুদন্ড ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড Logo বন্দর ১নং খেয়াঘাট মাঝি সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন Logo আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে মাকসুদ চেয়ারম্যান’র মত বিনিময় সভা ও উঠান বৈঠক Logo না’গঞ্জ জেলা জা’পা সভাপতি সানুর নাম ভাঙ্গিয়ে সুমন প্রধানের অপকর্ম রুখবে কে? Logo হুথিদের হামলায় লোহিত সাগরে ডুবে গেল সেই জাহাজ Logo রাতের লাইভের নেপথ্যের কারণ জানালেন তাহসান-ফারিণ Logo যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

সিলেট সিটি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ১২ কাউন্সিলর প্রার্থী

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে ১২ কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন বৃহস্পতিবার (০১ জুন) নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন তারা। ফলে ৪২টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৭৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। ১৪টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে কেউ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায় ৮৭ জন নির্বাচনে লড়বেন।

এদিন, মেয়র পদে কোনও প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। ফলে আগামী ২১ জুনের নির্বাচনে সাত মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা ব্যক্তিরা হলেন—৪১ নম্বর ওয়ার্ডে শাহীন আহমেদ ও আল আমিন, ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুস সবুর চৌধুরী, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে সুমন আহমদ, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে আলম হোসেন আলম, ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে তপু গনি, ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে মো. সাজুয়ান আহমদ, ২৩ নম্বর ওয়ার্ডে তারেক আহমদ, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে মো. আতাউর রহমান, ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে এনামুল কবির চৌধুরী, ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে এস এম আলী হোসেন ও ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে বদরুল ইসলাম।

সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়সল কাদের বলেন, ‘শেষদিন ১২ জন কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। তবে কোনও মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারীরা সাধারণ ওয়ার্ডের। তাদের প্রত্যাহারের কারণে সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৩৬০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। গত ২৫ মে যাচাই-বাছাই শেষে পাঁচ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছিল। এর মধ্যে তিন জন আপিল করে একজন প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। এ নিয়ে নির্বাচনে লড়ছেন সাত জন।

মেয়র পদের প্রার্থীরা হলেন—আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, জাতীয় পার্টির নজরুল ইসলাম বাবুল, ইসলামী আন্দোলনের হাফিজ মাওলানা মাহমুদুল হাসান, জাকের পার্টির মো. জহিরুল আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল হানিফ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ছালাহ উদ্দিন রিমন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শাহজাহান মিয়া। আগামীকাল শুক্রবার (২ জুন) প্রতীক বরাদ্দের মাধ্যমে শুরু হবে প্রার্থীদের আনুষ্ঠানিক নির্বাচনি প্রচারণা।

সিলেট সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০২ সালে। ৭৯ দশমিক ৫০ বর্গকিলোমিটারের এই নগরীতে ভোটার চার লাখ ৮৬ হাজার ৬০৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ৫৩ হাজার ৭৬৩ ও নারী দুই লাখ ৩২ হাজার ৮৪২ জন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

সিলেট সিটি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ১২ কাউন্সিলর প্রার্থী

আপডেট সময় ০৪:৩৪:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ জুন ২০২৩

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে ১২ কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন বৃহস্পতিবার (০১ জুন) নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন তারা। ফলে ৪২টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৭৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। ১৪টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে কেউ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায় ৮৭ জন নির্বাচনে লড়বেন।

এদিন, মেয়র পদে কোনও প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। ফলে আগামী ২১ জুনের নির্বাচনে সাত মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা ব্যক্তিরা হলেন—৪১ নম্বর ওয়ার্ডে শাহীন আহমেদ ও আল আমিন, ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুস সবুর চৌধুরী, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে সুমন আহমদ, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে আলম হোসেন আলম, ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে তপু গনি, ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে মো. সাজুয়ান আহমদ, ২৩ নম্বর ওয়ার্ডে তারেক আহমদ, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে মো. আতাউর রহমান, ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে এনামুল কবির চৌধুরী, ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে এস এম আলী হোসেন ও ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে বদরুল ইসলাম।

সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়সল কাদের বলেন, ‘শেষদিন ১২ জন কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। তবে কোনও মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারীরা সাধারণ ওয়ার্ডের। তাদের প্রত্যাহারের কারণে সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৩৬০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। গত ২৫ মে যাচাই-বাছাই শেষে পাঁচ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছিল। এর মধ্যে তিন জন আপিল করে একজন প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। এ নিয়ে নির্বাচনে লড়ছেন সাত জন।

মেয়র পদের প্রার্থীরা হলেন—আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, জাতীয় পার্টির নজরুল ইসলাম বাবুল, ইসলামী আন্দোলনের হাফিজ মাওলানা মাহমুদুল হাসান, জাকের পার্টির মো. জহিরুল আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল হানিফ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ছালাহ উদ্দিন রিমন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শাহজাহান মিয়া। আগামীকাল শুক্রবার (২ জুন) প্রতীক বরাদ্দের মাধ্যমে শুরু হবে প্রার্থীদের আনুষ্ঠানিক নির্বাচনি প্রচারণা।

সিলেট সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০২ সালে। ৭৯ দশমিক ৫০ বর্গকিলোমিটারের এই নগরীতে ভোটার চার লাখ ৮৬ হাজার ৬০৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ৫৩ হাজার ৭৬৩ ও নারী দুই লাখ ৩২ হাজার ৮৪২ জন।