ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিলেটে বিপুল নেতাকর্মী নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন আ.লীগের প্রার্থী

বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। মঙ্গলবার (২৩ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এর আগে, মেয়র প্রার্থীদের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে পাঁচ জনের বেশি লোক না নিয়ে আসার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তবে অন্য মেয়র প্রার্থীরা তা মানলেও আওয়ামী লীগ প্রার্থী আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী মানেননি। তিনি সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এ বিষয়ে আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় আওয়ামী লীগের কয়েকজন শীর্ষ নেতা সঙ্গে ছিলেন। নিয়ম মেনেই মনোনয়নপত্র দাখিল করেছি। এ সময় কাউন্সিলর প্রার্থীরা মনোনয়ন দাখিল করতে গেলে নেতাকর্মীরা আমাকে দেখে সেখানেও ভিড় জমান।

এ বিষয়ে সিলেট আঞ্চলিক রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়সল কাদির বলেন, আমাদের দেওয়া নির্দেশনা মেনেই পাঁচ মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা করেছেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনয়ন দাখিলের সময় তার সঙ্গে কয়েকজনকে দেখেছি। অন্য যারা ছিলেন তারা কাউন্সিলর প্রার্থীদের সঙ্গে এসে ভিড় করেন।

মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থ, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুল রহমান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান, মহানগর সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সুজাত আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক রণজিত সরকার, মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান, সাধারণ সম্পাদক মুশফিক জায়গিরদার, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু দাস, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিজিত চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আজ শেষ দিনে উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র জমা করেন প্রার্থীরা। নির্বাচনে মেয়র পদে ১১ ও কাউন্সিলর পদে ৩৭৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। গত ২৭ এপ্রিল থেকে আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ শুরু করেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ২৭ দিনে মেয়র পদে মোট ১১ ও কাউন্সিলর পদে ৪৫৬ জন ফরম সংগ্রহ করেন। তবে ৮০ জন জমা দেননি।

আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের মিডিয়া সেল (সিটি নির্বাচন) কর্মকর্তা সৈয়দ কামাল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দিয়েছেন ১১ জন। এর মধ্যে দলীয় প্রতীকের প্রার্থী চার জন। তারা হলেন- মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী (নৌকা), নজরুল ইসলাম বাবুল (লাঙল), মাওলানা মাহমুদুল হাসান (হাতপাখা) ও মো. জহিরুল আলম (জাকের পার্টি)।

মনোনয়ন দাখিল করা স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীরা হলেন- মোহাম্মদ আবদুল হানিফ কুটু, মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান খান, সামছুন নুর তালুকদার, মো. ছালাহ উদ্দিন রিমন, মাওলানা জাহিদ উদ্দিন চৌধুরী, মো. শাহজাহান মিয়া ও মোশতাক আহমেদ রউফ মোস্তফা।

উল্লেখ্য, আগামী ২১ জুন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ২৫ মে, প্রত্যাহারের শেষ সময় ১ জুন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সিলেটে বিপুল নেতাকর্মী নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন আ.লীগের প্রার্থী

আপডেট সময় ০৪:১৮:২০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ মে ২০২৩

বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। মঙ্গলবার (২৩ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এর আগে, মেয়র প্রার্থীদের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে পাঁচ জনের বেশি লোক না নিয়ে আসার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তবে অন্য মেয়র প্রার্থীরা তা মানলেও আওয়ামী লীগ প্রার্থী আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী মানেননি। তিনি সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এ বিষয়ে আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় আওয়ামী লীগের কয়েকজন শীর্ষ নেতা সঙ্গে ছিলেন। নিয়ম মেনেই মনোনয়নপত্র দাখিল করেছি। এ সময় কাউন্সিলর প্রার্থীরা মনোনয়ন দাখিল করতে গেলে নেতাকর্মীরা আমাকে দেখে সেখানেও ভিড় জমান।

এ বিষয়ে সিলেট আঞ্চলিক রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়সল কাদির বলেন, আমাদের দেওয়া নির্দেশনা মেনেই পাঁচ মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা করেছেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনয়ন দাখিলের সময় তার সঙ্গে কয়েকজনকে দেখেছি। অন্য যারা ছিলেন তারা কাউন্সিলর প্রার্থীদের সঙ্গে এসে ভিড় করেন।

মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থ, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুল রহমান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান, মহানগর সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সুজাত আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক রণজিত সরকার, মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান, সাধারণ সম্পাদক মুশফিক জায়গিরদার, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু দাস, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিজিত চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আজ শেষ দিনে উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র জমা করেন প্রার্থীরা। নির্বাচনে মেয়র পদে ১১ ও কাউন্সিলর পদে ৩৭৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। গত ২৭ এপ্রিল থেকে আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ শুরু করেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ২৭ দিনে মেয়র পদে মোট ১১ ও কাউন্সিলর পদে ৪৫৬ জন ফরম সংগ্রহ করেন। তবে ৮০ জন জমা দেননি।

আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের মিডিয়া সেল (সিটি নির্বাচন) কর্মকর্তা সৈয়দ কামাল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দিয়েছেন ১১ জন। এর মধ্যে দলীয় প্রতীকের প্রার্থী চার জন। তারা হলেন- মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী (নৌকা), নজরুল ইসলাম বাবুল (লাঙল), মাওলানা মাহমুদুল হাসান (হাতপাখা) ও মো. জহিরুল আলম (জাকের পার্টি)।

মনোনয়ন দাখিল করা স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীরা হলেন- মোহাম্মদ আবদুল হানিফ কুটু, মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান খান, সামছুন নুর তালুকদার, মো. ছালাহ উদ্দিন রিমন, মাওলানা জাহিদ উদ্দিন চৌধুরী, মো. শাহজাহান মিয়া ও মোশতাক আহমেদ রউফ মোস্তফা।

উল্লেখ্য, আগামী ২১ জুন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ২৫ মে, প্রত্যাহারের শেষ সময় ১ জুন।