ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সংবাদ ও সাংবাদিক নিয়ে প্রভার যত আপত্তি

বলা হয়ে থাকে, একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না। তেমনই একটি দুর্ঘটনার ক্ষত দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে বহন করে চলেছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা। সংবাদ এবং সাংবাদিকদের এড়িয়ে চলার ঘোষণা দিয়েছিলেন কিছু দিন আগে। নেপথ্যের কারণ তখন জানা যায়নি। এবার তার আপত্তির জায়গাগুলো সামনে নিয়ে এলেন অভিনেত্রী।

শনিবার (১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় অভিনয়শিল্পী সংঘের ইফতার পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন প্রভা। এ সময় তার জীবনে ঘটে যাওয়া কয়েকটি অপ্রীতিকর ঘটনা নিয়ে কথা বলেন তিনি।

প্রভা বলেন, ‘ছোটবেলায় পড়ে গিয়ে ব্যথা পেলে ভয় পেতাম, কারণ আম্মু জানলে বকা দেবে। এখন ফিজিক্যালি অ্যাবিউজড হলেও হজম করে ফেলি। কারণ, তারচেয়ে বড় ভয় হয় যদি জার্নালিস্ট জানতে পারে, তাহলে কী হবে! আমার জীবনে যারা (প্রেমিক) এসেছে, প্রত্যেকে যাওয়ার সময় একটা ব্লেম গেম খেলেছে। এটার মধ্যে মেন্টালি টর্চার হয়েছি, কিন্তু কাউকে কিছু মুখফুটে বলতে পারিনি। বরাবরই মনে হয়েছে বললেই যদি জার্নালিস্ট যেনে যায়? ডিভোর্সের পেপার যখন ফাইল করি, নিয়ম অনুযায়ী আমার কিছু পাওনা থাকে। কিন্তু সেটা নিয়ে কথা বলতে ভয় করে, যদি সেটা খবরে চলে আসে। আমি সব কিছুই করতে পারতাম যদি সাংবাদিকরা আমাকে সাপোর্ট করত।’

প্রভার কথায়, “কিছু দিন আগে সামাজিকমাধ্যম থেকে আমি জানিয়েছি আপনারা আমার সঙ্গে কথা না বলে নিউজ করবেন না। আমরাও তো চেষ্টা করি ধর্মীয়রীতি পালন করতে। যেমন রোজার সময় আমাদের মন নরম থাকে। সেসময় প্রত্যেকেরই উচিত কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকলে ক্ষমা চাওয়া। সেসময় আমি ক্ষমা চেয়ে এটা নিয়ে গুছিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিই। এরপরই আমার কানে আসে, নিউজ হয়ে গেছে, ‘অবশেষে সবার কাছে ক্ষমা চাইলেন প্রভা’। আমি কেন ক্ষমা চাইতে যাব? ক্ষমা তো এই সোসাইটির আমার কাছে চাওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।”

এই অভিনেত্রী বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যেকোনো পোস্ট দিলেই একটা শ্রেণি আছে যারা আমার পেছনে লেগেই থাকে। একদিন একজন হঠাৎ করে বলেই বসলেন, আমি নাকি এগুলো অ্যাটেনশন পাওয়ার জন্য করি। এরপর আমি আমার সব ছবি সরিয়ে ফেললাম। আসলে আমার ওপর আল্লাহর রহমত আছে যে, আমি মেন্টালি ভেঙে পড়িনি। আল্লাহর কাছে লাখ লাখ শুকরিয়া। এটাকে আল্লাহ হেদায়েত প্রাপ্ত বলতে পারি।’

এরপর প্রভা উপস্থিত সাংবাদিকদের ভাই সম্বোধন করেন। অনুরোধ করেন, কেউ যদি তার নামে সোশ্যাল হ্যান্ডেলে বা খবরে বাজে কথা লেখেন, তবে যেন ভাই হিসেবে সেটার প্রতিবাদ করেন।

এরপর প্রভা তার জীবনে ঘটে যাওয়া দুটি ঘটনার কথা সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন। তার কথায়, “দেখেন দুইটা গল্প বলি। একটা মেকআপ রুমের। যেখানে আমরা শুটিং করে রুমে ঢুকি। মেকআপ করি, খাই, আপনারা এলে বসে গল্প করি। তো এভাবে এক দিন গ্রিনরুমে বসে আছি। একজন ফটোগ্রাফার ও একজন সাংবাদিক আসলো। বসতে বললাম। এরপর আমি মুখে পাউডার মেখে মেকআপের প্রস্তুতি নিচ্ছি। এর মধ্যে ক্লিক ক্লিক ক্লিক…। আমি বললাম, ‘কেন ছবি তুলতেছেন?’ বলে, ‘আমি তো জার্নালিস্ট’। এটার মানে কী বলেন তো? উনি সাংবাদিক বলে আমার কোনও প্রাইভেসি নাই?”

দ্বিতীয় ঘটনার বর্ণনায় প্রভা বলেন, “সেদিন শুটিং শেষ করে উবার নিয়েছি। একজন সাংবাদিকও আমার সঙ্গে উঠলেন। ভাই মানুষ। পাশে বসলেন। বললেন, এয়ারপোর্টে নামায়ে দিতে। তো সিটে বসে কথা বলতে বলতে সে আমার পায়ে হাত রাখল! বললাম, ‘তুমি আমার গায়ে হাত দিলা কেন? আমার কোনো কলিগও তো এভাবে হাত দেয় না।’ এরপর সে ‘সরি’ বলেছে। নামকরা সাংবাদিক। আমি জানি, সে সরি বললেও তার ভুল রিয়েলাইজ করে নাই। পরে সে তার ক্ষোভ প্রকাশ করেছে অন্যভাবে। কীভাবে তাহলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আন্তরিক হব?”

এদিন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবিব নাসিম, সাধারণ সম্পাদক রওনক হাসান, জ্যেষ্ঠ অভিনেত্রী ডলি জহুর, অভিনেতা সাজু খাদেমসহ আরও অনেকে।

প্রসঙ্গত, টিভি নাটকের সংগঠন ‘অভিনয়শিল্পী সংঘ’ নতুন একটি উদ্যোগ নিয়েছে। শিল্পীদের আইনি সহায়তা দেওয়ার জন্য ‘লিগ্যাল উইংস অ্যান্ড ডায়ালগ’ নামে একটি টিম গঠন করা হয়েছে। অভিনয়শিল্পীদের সকল প্রকার আইনি সুরক্ষা, সহায়তা, পরামর্শ এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাইবার বুলিং এবং অপপ্রচারের প্রতিকারে এই লিগ্যাল উইংস কাজ করে যাবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

সংবাদ ও সাংবাদিক নিয়ে প্রভার যত আপত্তি

আপডেট সময় ০৪:২৫:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ এপ্রিল ২০২৩

বলা হয়ে থাকে, একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না। তেমনই একটি দুর্ঘটনার ক্ষত দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে বহন করে চলেছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা। সংবাদ এবং সাংবাদিকদের এড়িয়ে চলার ঘোষণা দিয়েছিলেন কিছু দিন আগে। নেপথ্যের কারণ তখন জানা যায়নি। এবার তার আপত্তির জায়গাগুলো সামনে নিয়ে এলেন অভিনেত্রী।

শনিবার (১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় অভিনয়শিল্পী সংঘের ইফতার পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন প্রভা। এ সময় তার জীবনে ঘটে যাওয়া কয়েকটি অপ্রীতিকর ঘটনা নিয়ে কথা বলেন তিনি।

প্রভা বলেন, ‘ছোটবেলায় পড়ে গিয়ে ব্যথা পেলে ভয় পেতাম, কারণ আম্মু জানলে বকা দেবে। এখন ফিজিক্যালি অ্যাবিউজড হলেও হজম করে ফেলি। কারণ, তারচেয়ে বড় ভয় হয় যদি জার্নালিস্ট জানতে পারে, তাহলে কী হবে! আমার জীবনে যারা (প্রেমিক) এসেছে, প্রত্যেকে যাওয়ার সময় একটা ব্লেম গেম খেলেছে। এটার মধ্যে মেন্টালি টর্চার হয়েছি, কিন্তু কাউকে কিছু মুখফুটে বলতে পারিনি। বরাবরই মনে হয়েছে বললেই যদি জার্নালিস্ট যেনে যায়? ডিভোর্সের পেপার যখন ফাইল করি, নিয়ম অনুযায়ী আমার কিছু পাওনা থাকে। কিন্তু সেটা নিয়ে কথা বলতে ভয় করে, যদি সেটা খবরে চলে আসে। আমি সব কিছুই করতে পারতাম যদি সাংবাদিকরা আমাকে সাপোর্ট করত।’

প্রভার কথায়, “কিছু দিন আগে সামাজিকমাধ্যম থেকে আমি জানিয়েছি আপনারা আমার সঙ্গে কথা না বলে নিউজ করবেন না। আমরাও তো চেষ্টা করি ধর্মীয়রীতি পালন করতে। যেমন রোজার সময় আমাদের মন নরম থাকে। সেসময় প্রত্যেকেরই উচিত কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকলে ক্ষমা চাওয়া। সেসময় আমি ক্ষমা চেয়ে এটা নিয়ে গুছিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিই। এরপরই আমার কানে আসে, নিউজ হয়ে গেছে, ‘অবশেষে সবার কাছে ক্ষমা চাইলেন প্রভা’। আমি কেন ক্ষমা চাইতে যাব? ক্ষমা তো এই সোসাইটির আমার কাছে চাওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।”

এই অভিনেত্রী বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যেকোনো পোস্ট দিলেই একটা শ্রেণি আছে যারা আমার পেছনে লেগেই থাকে। একদিন একজন হঠাৎ করে বলেই বসলেন, আমি নাকি এগুলো অ্যাটেনশন পাওয়ার জন্য করি। এরপর আমি আমার সব ছবি সরিয়ে ফেললাম। আসলে আমার ওপর আল্লাহর রহমত আছে যে, আমি মেন্টালি ভেঙে পড়িনি। আল্লাহর কাছে লাখ লাখ শুকরিয়া। এটাকে আল্লাহ হেদায়েত প্রাপ্ত বলতে পারি।’

এরপর প্রভা উপস্থিত সাংবাদিকদের ভাই সম্বোধন করেন। অনুরোধ করেন, কেউ যদি তার নামে সোশ্যাল হ্যান্ডেলে বা খবরে বাজে কথা লেখেন, তবে যেন ভাই হিসেবে সেটার প্রতিবাদ করেন।

এরপর প্রভা তার জীবনে ঘটে যাওয়া দুটি ঘটনার কথা সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন। তার কথায়, “দেখেন দুইটা গল্প বলি। একটা মেকআপ রুমের। যেখানে আমরা শুটিং করে রুমে ঢুকি। মেকআপ করি, খাই, আপনারা এলে বসে গল্প করি। তো এভাবে এক দিন গ্রিনরুমে বসে আছি। একজন ফটোগ্রাফার ও একজন সাংবাদিক আসলো। বসতে বললাম। এরপর আমি মুখে পাউডার মেখে মেকআপের প্রস্তুতি নিচ্ছি। এর মধ্যে ক্লিক ক্লিক ক্লিক…। আমি বললাম, ‘কেন ছবি তুলতেছেন?’ বলে, ‘আমি তো জার্নালিস্ট’। এটার মানে কী বলেন তো? উনি সাংবাদিক বলে আমার কোনও প্রাইভেসি নাই?”

দ্বিতীয় ঘটনার বর্ণনায় প্রভা বলেন, “সেদিন শুটিং শেষ করে উবার নিয়েছি। একজন সাংবাদিকও আমার সঙ্গে উঠলেন। ভাই মানুষ। পাশে বসলেন। বললেন, এয়ারপোর্টে নামায়ে দিতে। তো সিটে বসে কথা বলতে বলতে সে আমার পায়ে হাত রাখল! বললাম, ‘তুমি আমার গায়ে হাত দিলা কেন? আমার কোনো কলিগও তো এভাবে হাত দেয় না।’ এরপর সে ‘সরি’ বলেছে। নামকরা সাংবাদিক। আমি জানি, সে সরি বললেও তার ভুল রিয়েলাইজ করে নাই। পরে সে তার ক্ষোভ প্রকাশ করেছে অন্যভাবে। কীভাবে তাহলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আন্তরিক হব?”

এদিন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবিব নাসিম, সাধারণ সম্পাদক রওনক হাসান, জ্যেষ্ঠ অভিনেত্রী ডলি জহুর, অভিনেতা সাজু খাদেমসহ আরও অনেকে।

প্রসঙ্গত, টিভি নাটকের সংগঠন ‘অভিনয়শিল্পী সংঘ’ নতুন একটি উদ্যোগ নিয়েছে। শিল্পীদের আইনি সহায়তা দেওয়ার জন্য ‘লিগ্যাল উইংস অ্যান্ড ডায়ালগ’ নামে একটি টিম গঠন করা হয়েছে। অভিনয়শিল্পীদের সকল প্রকার আইনি সুরক্ষা, সহায়তা, পরামর্শ এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাইবার বুলিং এবং অপপ্রচারের প্রতিকারে এই লিগ্যাল উইংস কাজ করে যাবে।