ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লুলার প্রশংসায় পঞ্চমুখ রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রের তিরস্কার

ইউক্রেন যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে উসকানি বন্ধ ও শান্তি আলোচনার আহ্বানের কারণে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভার প্রশংসা করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। মঙ্গলবার শান্তি আলোচনার আহ্বানের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে ব্রাজিল সফরে লুলার সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি। লুলার এমন মন্তব্যের সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শনিবার (১৫ এপ্রিল) ইউক্রেন যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে উসকানি বন্ধ করে শান্তি আলোচনার আহ্বান জানিয়েছেন লুলা। এ বিষয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে ব্রাজিলের এক সংবাদ সম্মেলনে ল্যাভরভ বলেন, ‘পরিস্থিতি সঠিকভাবে বোঝার জন্য ব্রাজিলের বন্ধুদের প্রতি কৃতজ্ঞ মস্কো। যুদ্ধ থামাতে তাদের উদ্যোগের প্রতি কৃতজ্ঞ রাশিয়া।’

ইউক্রেনকে অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে যুদ্ধে উসকানি দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, শনিবারের বিবৃতিতে এমন কথা বলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট। লুলা বলেন, ‘যুদ্ধে উসকানি দেওয়া বন্ধ করে শান্তি আলোচনার উদ্যোগ নেওয়া উচিত যুক্তরাষ্ট্রের। ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচিত শান্তি আলোচনা শুরু করা।’

এদিকে লুলার মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউজ মুখপাত্র বলেন, ‘সঠিকভাবে বিবেচনা না করেই চীনা ও রুশ প্রচারণা তোতা পাখির মতো আওড়াচ্ছে ব্রাজিল।’

মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, ‘লুলার মন্তব্য ভুল ইঙ্গিত দিচ্ছে। তার মন্তব্যের অর্থ হলো ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্র শান্তি চায় না অথবা যুদ্ধের দায় আমাদের। কিন্তু বাস্তবে এমন নয়।’

পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে লুলার এমন মন্তব্যকে সাধুবাদ জানিয়েছেন কেবল ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। সম্প্রতি তাইওয়ান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকে অনুকরণ না করে ইউরোপের স্বতন্ত্র অবস্থান নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিতর্কে পড়েছেন তিনিও।

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে শুরু হওয়া ইউক্রেন যুদ্ধের শান্তি আলোচনার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে ব্রাজিলকে তুলে ধরতে চাইছেন লুলা দা সিলভা। যুদ্ধে জড়িত নয় এমন দেশগুলোকেও রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে শান্তি আলোচনার উদ্যোগ নিতে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

লুলার প্রশংসায় পঞ্চমুখ রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রের তিরস্কার

আপডেট সময় ০৫:১৭:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩

ইউক্রেন যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে উসকানি বন্ধ ও শান্তি আলোচনার আহ্বানের কারণে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভার প্রশংসা করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। মঙ্গলবার শান্তি আলোচনার আহ্বানের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে ব্রাজিল সফরে লুলার সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি। লুলার এমন মন্তব্যের সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শনিবার (১৫ এপ্রিল) ইউক্রেন যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে উসকানি বন্ধ করে শান্তি আলোচনার আহ্বান জানিয়েছেন লুলা। এ বিষয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে ব্রাজিলের এক সংবাদ সম্মেলনে ল্যাভরভ বলেন, ‘পরিস্থিতি সঠিকভাবে বোঝার জন্য ব্রাজিলের বন্ধুদের প্রতি কৃতজ্ঞ মস্কো। যুদ্ধ থামাতে তাদের উদ্যোগের প্রতি কৃতজ্ঞ রাশিয়া।’

ইউক্রেনকে অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে যুদ্ধে উসকানি দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, শনিবারের বিবৃতিতে এমন কথা বলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট। লুলা বলেন, ‘যুদ্ধে উসকানি দেওয়া বন্ধ করে শান্তি আলোচনার উদ্যোগ নেওয়া উচিত যুক্তরাষ্ট্রের। ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচিত শান্তি আলোচনা শুরু করা।’

এদিকে লুলার মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউজ মুখপাত্র বলেন, ‘সঠিকভাবে বিবেচনা না করেই চীনা ও রুশ প্রচারণা তোতা পাখির মতো আওড়াচ্ছে ব্রাজিল।’

মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, ‘লুলার মন্তব্য ভুল ইঙ্গিত দিচ্ছে। তার মন্তব্যের অর্থ হলো ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্র শান্তি চায় না অথবা যুদ্ধের দায় আমাদের। কিন্তু বাস্তবে এমন নয়।’

পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে লুলার এমন মন্তব্যকে সাধুবাদ জানিয়েছেন কেবল ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। সম্প্রতি তাইওয়ান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকে অনুকরণ না করে ইউরোপের স্বতন্ত্র অবস্থান নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিতর্কে পড়েছেন তিনিও।

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে শুরু হওয়া ইউক্রেন যুদ্ধের শান্তি আলোচনার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে ব্রাজিলকে তুলে ধরতে চাইছেন লুলা দা সিলভা। যুদ্ধে জড়িত নয় এমন দেশগুলোকেও রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে শান্তি আলোচনার উদ্যোগ নিতে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।