ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোখায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩০ কোটি টাকা দেবে যুক্তরাজ্য

ঘূর্ণিঝড় মোখার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্বাগতিক সম্প্রদায়ের জন্য অতিরিক্ত ২.৩ মিলিয়ন পাউন্ড (৩০ কোটি টাকার বেশি) মানবিক সহায়তা দেবে যুক্তরাজ্য।

রোববার (২১ মে) ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন এ তথ্য জানিয়েছে।

বাংলাদেশে ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার ম্যাট ক্যানেল ঘূর্ণিঝড় মোখার পর কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির ও স্বাগতিক সম্প্রদায় পরিদর্শনের সময় এ অতিরিক্ত অর্থায়নের ঘোষণা দেন। যুক্তরাজ্যের এ সহায়তা আইওএম’র মাধ্যমে ব্যয় করা হবে।

ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার ম্যাট ক্যানেল বলেছেন, যুক্তরাজ্য রোহিঙ্গা ও স্বাগতিক সম্প্রদায়ের পাশে দাঁড়িয়েছে কারণ তারা ঘূর্ণিঝড় মোখার প্রভাব থেকে পুনরুদ্ধার করতে চায়। আমি ২.৩ মিলিয়ন পাউন্ডের এ নতুন যুক্তরাজ্যের সহায়তা ঘোষণা করতে পেরে গর্বিত, যা সাম্প্রতিক ট্র্যাজেডির পাশাপাশি ক্যাম্পে এবং স্বাগতিক সম্প্রদায়ের চলমান চাহিদাগুলো পূরণে সাহায্য করবে। যুক্তরাজ্য এ সংকটের একটি টেকসই সমাধান খুঁজতে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ও গুরুত্বপূর্ণ মানবিক সহায়তা দিচ্ছে।

আইওএম বাংলাদেশ মিশন প্রধান আবদুসাত্তর এসয়েভ বলেছেন, এ সহায়তা এমন একটি সংকটময় সময়ে এসেছে যখন রোহিঙ্গা শরণার্থী এবং কক্সবাজারে স্বাগতিক সম্প্রদায় সাম্প্রতিক দুর্যোগ, ধ্বংসাত্মক অগ্নিকাণ্ড ও ঘূর্ণিঝড় মোখার পরে ব্যাপক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি।

যুক্তরাজ্যের সহায়তায় আমরা অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্যসেবা, আশ্রয়, সাইট ম্যানেজমেন্ট সহায়তা এবং ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সুরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করতে সক্ষম হবো। আইওএম ও যুক্তরাজ্য সরকারের মধ্যে অংশীদারিত্ব রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। আমরা মানবিক সহায়তা দিয়ে অভাবী লোকদের সমর্থন করার জন্য আমাদের প্রতিশ্রুতিতে অবিচল রয়েছি।

২০১৭ সালে যুক্তরাজ্য বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্বাগতিক সম্প্রদায়ের জন্য ৩৫২ মিলিয়ন মানবিক সহায়তা দিয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

মোখায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩০ কোটি টাকা দেবে যুক্তরাজ্য

আপডেট সময় ০৩:২৯:০৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩

ঘূর্ণিঝড় মোখার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্বাগতিক সম্প্রদায়ের জন্য অতিরিক্ত ২.৩ মিলিয়ন পাউন্ড (৩০ কোটি টাকার বেশি) মানবিক সহায়তা দেবে যুক্তরাজ্য।

রোববার (২১ মে) ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন এ তথ্য জানিয়েছে।

বাংলাদেশে ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার ম্যাট ক্যানেল ঘূর্ণিঝড় মোখার পর কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির ও স্বাগতিক সম্প্রদায় পরিদর্শনের সময় এ অতিরিক্ত অর্থায়নের ঘোষণা দেন। যুক্তরাজ্যের এ সহায়তা আইওএম’র মাধ্যমে ব্যয় করা হবে।

ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার ম্যাট ক্যানেল বলেছেন, যুক্তরাজ্য রোহিঙ্গা ও স্বাগতিক সম্প্রদায়ের পাশে দাঁড়িয়েছে কারণ তারা ঘূর্ণিঝড় মোখার প্রভাব থেকে পুনরুদ্ধার করতে চায়। আমি ২.৩ মিলিয়ন পাউন্ডের এ নতুন যুক্তরাজ্যের সহায়তা ঘোষণা করতে পেরে গর্বিত, যা সাম্প্রতিক ট্র্যাজেডির পাশাপাশি ক্যাম্পে এবং স্বাগতিক সম্প্রদায়ের চলমান চাহিদাগুলো পূরণে সাহায্য করবে। যুক্তরাজ্য এ সংকটের একটি টেকসই সমাধান খুঁজতে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ও গুরুত্বপূর্ণ মানবিক সহায়তা দিচ্ছে।

আইওএম বাংলাদেশ মিশন প্রধান আবদুসাত্তর এসয়েভ বলেছেন, এ সহায়তা এমন একটি সংকটময় সময়ে এসেছে যখন রোহিঙ্গা শরণার্থী এবং কক্সবাজারে স্বাগতিক সম্প্রদায় সাম্প্রতিক দুর্যোগ, ধ্বংসাত্মক অগ্নিকাণ্ড ও ঘূর্ণিঝড় মোখার পরে ব্যাপক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি।

যুক্তরাজ্যের সহায়তায় আমরা অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্যসেবা, আশ্রয়, সাইট ম্যানেজমেন্ট সহায়তা এবং ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সুরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করতে সক্ষম হবো। আইওএম ও যুক্তরাজ্য সরকারের মধ্যে অংশীদারিত্ব রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। আমরা মানবিক সহায়তা দিয়ে অভাবী লোকদের সমর্থন করার জন্য আমাদের প্রতিশ্রুতিতে অবিচল রয়েছি।

২০১৭ সালে যুক্তরাজ্য বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্বাগতিক সম্প্রদায়ের জন্য ৩৫২ মিলিয়ন মানবিক সহায়তা দিয়েছে।