ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেয়রের গাড়িবহরে এমপি সমর্থকদের হামলা, সাংবাদিকসহ আহত ১২

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে মেয়রের গাড়িবহরে স্থানীয় সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোটমনিরের কর্মী-সমর্থকদের হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার আলমনগর বোর্ড বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা ফাঁকা গুলি এবং ককটেল বিষ্ফোরণও করে।

স্থানীয়রা জানান, ভূঞাপুর পৌরসভার বর্তমান মেয়র এবং টাঙ্গাইল-২ (ভূঞাপুর-গোপালপুর) আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী মাসুদুল হক মাসুদ গাড়িবহর নিয়ে গোপালপুরে কম্বল বিতরণ করতে যাচ্ছিলেন। এসময় তাদের গাড়িগুলো উপজেলার আলমনগর বোর্ড বাজার এলাকায় পৌঁছালে স্থানীয় সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোটমনির ও গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজের কর্মী-সমর্থকরা লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ফাঁকাগুলি এবং ককটেল বিষ্ফোরণও করে। এ সময় দুইটি প্রাইভেটকার ও কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় মেয়র মাসুদের ৮-১০জন সমর্থক আহত হন। এছাড়াও হামলার ছবি ও ভিডিও ধারণের সময় তিন সাংবাদিকের ওপর হামলা চালানো হয়।

হামলায় আহত সাংবাদিকরা হলেন- ঢাকাপোস্টের জেলা প্রতিনিধি অভিজিৎ ঘোষ, ডিবিসি টেলিভিশনের ক্যামেরা পার্সন আশিকুর রহমান ও ঢাকা প্রকাশের জেলা প্রতিনিধি ফরমান শেখ। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

হামলায় আহত সাংবাদিক ফরমান শেখ জানান, ভূঞাপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ গোপালপুরের বিভিন্ন জায়গায় কম্বল ও সরকারের উন্নয়নমূলক লিফলেট বিতরণের জন্য আলমনগর যাচ্ছিলেন। এ সময় অতর্কিতভাবে হামলার ঘটনা ঘটে। ভিডিও ধারণ করায় তিন সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালানো হয়।

ভূঞাপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড মানুষকে জানাতে লিফলেট ও কম্বল বিতরণ করতে যাচ্ছিলাম। এ সময় স্থানীয় এমপি তানভীর হাসান ছোটমনিরের নির্দেশে তার ক্যাডার বাহিনী লাঠিসোঁটা নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় নেতৃত্ব দেয় গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজ। হামলায় আমাদের কয়েকজন কর্মী ছাড়াও সাংবাদিক আহত হয়েছেন। এ সময় দুইটি প্রাইভেটকার ও বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজ বলেন, মাসুদুল হক মাসুদ ভূঞাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র। তিনি গোপালপুরে কম্বল বিতরণ করবেন সেটি ভালো কথা, কিন্তু এই বিতরণের বিষয়টি আমাদের জানানো হয়নি। বিষয়টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মেনে নিতে না পারায় ক্ষুব্ধ হয়ে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। হামলায় আমার নাম জড়ানো হলেও ঘটনাস্থলে আমি ছিলাম না। আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হচ্ছে।

টাঙ্গাইল-২ (ভূঞাপুর-গোপালপুর) আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোটমনির বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। ভূঞাপুরের মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগকে না জানিয়ে এভাবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীদের নিয়ে কম্বল বিতরণ করা ঠিক হয়নি।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশারফ হোসেন বলেন, হামলার ঘটনার খবর শুনে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। দুইপক্ষকে দুই দিকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

মেয়রের গাড়িবহরে এমপি সমর্থকদের হামলা, সাংবাদিকসহ আহত ১২

আপডেট সময় ০৫:৪৮:৪৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে মেয়রের গাড়িবহরে স্থানীয় সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোটমনিরের কর্মী-সমর্থকদের হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার আলমনগর বোর্ড বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা ফাঁকা গুলি এবং ককটেল বিষ্ফোরণও করে।

স্থানীয়রা জানান, ভূঞাপুর পৌরসভার বর্তমান মেয়র এবং টাঙ্গাইল-২ (ভূঞাপুর-গোপালপুর) আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী মাসুদুল হক মাসুদ গাড়িবহর নিয়ে গোপালপুরে কম্বল বিতরণ করতে যাচ্ছিলেন। এসময় তাদের গাড়িগুলো উপজেলার আলমনগর বোর্ড বাজার এলাকায় পৌঁছালে স্থানীয় সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোটমনির ও গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজের কর্মী-সমর্থকরা লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ফাঁকাগুলি এবং ককটেল বিষ্ফোরণও করে। এ সময় দুইটি প্রাইভেটকার ও কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় মেয়র মাসুদের ৮-১০জন সমর্থক আহত হন। এছাড়াও হামলার ছবি ও ভিডিও ধারণের সময় তিন সাংবাদিকের ওপর হামলা চালানো হয়।

হামলায় আহত সাংবাদিকরা হলেন- ঢাকাপোস্টের জেলা প্রতিনিধি অভিজিৎ ঘোষ, ডিবিসি টেলিভিশনের ক্যামেরা পার্সন আশিকুর রহমান ও ঢাকা প্রকাশের জেলা প্রতিনিধি ফরমান শেখ। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

হামলায় আহত সাংবাদিক ফরমান শেখ জানান, ভূঞাপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ গোপালপুরের বিভিন্ন জায়গায় কম্বল ও সরকারের উন্নয়নমূলক লিফলেট বিতরণের জন্য আলমনগর যাচ্ছিলেন। এ সময় অতর্কিতভাবে হামলার ঘটনা ঘটে। ভিডিও ধারণ করায় তিন সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালানো হয়।

ভূঞাপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড মানুষকে জানাতে লিফলেট ও কম্বল বিতরণ করতে যাচ্ছিলাম। এ সময় স্থানীয় এমপি তানভীর হাসান ছোটমনিরের নির্দেশে তার ক্যাডার বাহিনী লাঠিসোঁটা নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় নেতৃত্ব দেয় গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজ। হামলায় আমাদের কয়েকজন কর্মী ছাড়াও সাংবাদিক আহত হয়েছেন। এ সময় দুইটি প্রাইভেটকার ও বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম তালুকদার সুরুজ বলেন, মাসুদুল হক মাসুদ ভূঞাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র। তিনি গোপালপুরে কম্বল বিতরণ করবেন সেটি ভালো কথা, কিন্তু এই বিতরণের বিষয়টি আমাদের জানানো হয়নি। বিষয়টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মেনে নিতে না পারায় ক্ষুব্ধ হয়ে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। হামলায় আমার নাম জড়ানো হলেও ঘটনাস্থলে আমি ছিলাম না। আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হচ্ছে।

টাঙ্গাইল-২ (ভূঞাপুর-গোপালপুর) আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোটমনির বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। ভূঞাপুরের মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগকে না জানিয়ে এভাবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীদের নিয়ে কম্বল বিতরণ করা ঠিক হয়নি।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশারফ হোসেন বলেন, হামলার ঘটনার খবর শুনে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। দুইপক্ষকে দুই দিকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।