ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুন্সীগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত, আহত ১১

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের চরগুলগুলিয়া গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে ফালান মিয়া (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৭ ফেব্রæয়ারি) দুপুর ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ফালান মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত ফালান মিয়া চরগুলগুলিয়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চরগুলগুলিয়া গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে? ইয়াকুব মিয়ার সঙ্গে একই এলাকার নুরু মিয়ার ছেলে জয়নাল মিয়ার বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। দুপুর ১২টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষ চলাকালে ফালান মিয়াসহ ১২ জন আহত হন। পরে টেঁটাবিদ্ধ ফালান মিয়াকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া অন্যান্য আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সিরাজদিখান থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা পোস্টকে বলেন, নিহতের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত? রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় ৪ শতাধিক টেঁটা উদ্ধার করা হয়েছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত, আহত ১১

আপডেট সময় ০৩:৩৪:১৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের চরগুলগুলিয়া গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে ফালান মিয়া (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৭ ফেব্রæয়ারি) দুপুর ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ফালান মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত ফালান মিয়া চরগুলগুলিয়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চরগুলগুলিয়া গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে? ইয়াকুব মিয়ার সঙ্গে একই এলাকার নুরু মিয়ার ছেলে জয়নাল মিয়ার বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। দুপুর ১২টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষ চলাকালে ফালান মিয়াসহ ১২ জন আহত হন। পরে টেঁটাবিদ্ধ ফালান মিয়াকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া অন্যান্য আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সিরাজদিখান থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা পোস্টকে বলেন, নিহতের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত? রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় ৪ শতাধিক টেঁটা উদ্ধার করা হয়েছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।