ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমারে জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়লো

জরুরি অবস্থার মেয়াদ ছয় মাস বাড়িয়েছে মিয়ানমার। দেশটির জাতীয় প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা পরিষদ এই মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে সম্মত হয়েছে বলে বুধবার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।

রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম এমআরটিভি জানিয়েছে, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে অং সান সু চির সরকারের পতন ঘটালে জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইংয়ের জরুরি অবস্থা দীর্ঘায়িত করার অনুরোধ জানালে তা মঞ্জুর করা হয়েছিল। পহেলা ফেব্রুয়ারি থেকে এই জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ছয় মাসের জন্য বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মিন্ট সোয়ে বলেছেন, ‘রাষ্ট্রের সার্বভৌম ক্ষমতা আবারও কমান্ডার ইন চিফের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

রয়টার্স জানিয়েছে, জরুরি অবস্থা জানুয়ারির শেষের দিকে শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মঙ্গলবার জান্তা পরিচালিত ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি কাউন্সিল জাতির অবস্থা নিয়ে আলোচনা করার জন্য বৈঠক করে। এতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, দেশ ‘এখনও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসেনি।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

মিয়ানমারে জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়লো

আপডেট সময় ০৪:০৬:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

জরুরি অবস্থার মেয়াদ ছয় মাস বাড়িয়েছে মিয়ানমার। দেশটির জাতীয় প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা পরিষদ এই মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে সম্মত হয়েছে বলে বুধবার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।

রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম এমআরটিভি জানিয়েছে, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে অং সান সু চির সরকারের পতন ঘটালে জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইংয়ের জরুরি অবস্থা দীর্ঘায়িত করার অনুরোধ জানালে তা মঞ্জুর করা হয়েছিল। পহেলা ফেব্রুয়ারি থেকে এই জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ছয় মাসের জন্য বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মিন্ট সোয়ে বলেছেন, ‘রাষ্ট্রের সার্বভৌম ক্ষমতা আবারও কমান্ডার ইন চিফের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

রয়টার্স জানিয়েছে, জরুরি অবস্থা জানুয়ারির শেষের দিকে শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মঙ্গলবার জান্তা পরিচালিত ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি কাউন্সিল জাতির অবস্থা নিয়ে আলোচনা করার জন্য বৈঠক করে। এতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, দেশ ‘এখনও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসেনি।’