ঢাকা , শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বেইলি রোডে অগ্নিকান্ডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬, দগ্ধরাও সংকটাপন্ন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী Logo সাত প্রতিমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ Logo আলো ঝলমলে রাতে বিপিএলের চ্যাম্পিয়ন বরিশাল Logo ফতুল্লায় নাসিম ওসমান স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ Logo সোনারগাঁয়ের মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় ফুট ওভার ব্রীজ হকার মুক্ত করলেন এম পি কাউসার হাসনাত Logo নাঃগঞ্জে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বইমেলায় কবিদের উত্তরীয় দিয়ে বরণ Logo সিদ্ধিরগঞ্জ পাওয়ার হাউজ স্কুলে ভর্তি বানিজ্য, ভর্তিতে অনিশ্চিত জমজ শিশু, প্রধান প্রকৌশলীর বদলির দাবি Logo উপজেলা নির্বাচনে সবার সহযোগিতা ও দোয়া চাইলেন মাকসুদ চেয়ারম্যান Logo বৃহত্তম মদনগঞ্জ পেশাজীবি শ্রমিক কল্যান সংগঠন’র ৫ ম বারের মতো বিনামূল্যে সুন্নতে খাৎনা অনুষ্ঠিত Logo বন্দরে গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা ও স্বামী গুরুত্বর জখমের ঘটনায় মা ও ছেলে আটক

ভ্যানের সামনে বাস নিয়ে এসে দুষ্টুমি করছিলেন চালক, প্রাণ গেলো ৪ জনের

টাঙ্গাইলের মধুপুরে বাস চালানোর সময় চালকের দুষ্টুমির কারণে ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানে ধাক্কা লেগে চার জন নিহতের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১ জুন) দুপুর আড়াইটার দিকে টাঙ্গাইল-জামালপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের উপজেলার গাংগাইরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- জেলার ধনবাড়ী উপজেলার পাইস্কা ইউনিয়নের পাইটকা গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের ছেলে মাঈনুদ্দিন (৪০), তার স্ত্রী ছাহেরা বেগম (৩৫), তাদের ছেলে সিয়াম (৪) ও একই গ্রামের দরদ আলীর ছেলে ভ্যানচালক ফরহাদ (৩৫)।

পাইস্কা ইউনিয়নের সদস্য আব্দুল হাকিম বলেন, ‘কৃষক মাঈনুদ্দিন সকালে তার অসুস্থ স্ত্রী ছাহেরাকে ডাক্তার দেখাতে পাশের উপজেলা ঘাটাইলের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে যান। সঙ্গে তাদের শিশু সন্তানও ছিল। ডাক্তার দেখিয়ে ভ্যানে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পাশের দররামবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা বিনিময় পরিবহনের চালক নূরনবীও তার বাস নিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসছিলেন। দুই চালক আগে থেকেই পরিচিত হওয়ায় ভ্যানের সামনে এসে বাস নিয়ে দুষ্টুমি করেন। একপর্যায়ে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোভ্যানের ওপর ওঠে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই ভ্যানের চালকসহ তিন জন মারা যান। আর হাসপাতালে নেওয়ার পর শিশুটির মৃত্যু হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিহত মাঈনুদ্দিন হতদরিদ্র। তার ১০-১২ বছরের আরও দুই মেয়ে রয়েছে। তারা মাদ্রাসায় পড়াশোনা করছে। এখন তাদের দেখার মতো কেউ রইলো না।’

স্থানীয় বাসিন্দা শাহআলম বলেন, ‘বিনিময় পরিবহন চালক নূরনবী মাদক সেবন করে বাস চালায়। এই সড়কে তিনি একাধিক দুর্ঘটনা ঘটিয়েছেন।’

মধুপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন কর্মকর্তা হেমাউল কবির বলেন, ‘মধুপুর থেকে ঢাকাগামী বাসটির মধুপুরগামী ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে তিন জনের মৃত্যু হয়। আর হাসপাতালে আরেক শিশুর মৃত্যু হয়।’

মধুপুর থানার ওসি মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন বলেন, ‘নিহতদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

বেইলি রোডে অগ্নিকান্ডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬, দগ্ধরাও সংকটাপন্ন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ভ্যানের সামনে বাস নিয়ে এসে দুষ্টুমি করছিলেন চালক, প্রাণ গেলো ৪ জনের

আপডেট সময় ০৪:৩৭:১০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ জুন ২০২৩

টাঙ্গাইলের মধুপুরে বাস চালানোর সময় চালকের দুষ্টুমির কারণে ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানে ধাক্কা লেগে চার জন নিহতের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১ জুন) দুপুর আড়াইটার দিকে টাঙ্গাইল-জামালপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের উপজেলার গাংগাইরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- জেলার ধনবাড়ী উপজেলার পাইস্কা ইউনিয়নের পাইটকা গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের ছেলে মাঈনুদ্দিন (৪০), তার স্ত্রী ছাহেরা বেগম (৩৫), তাদের ছেলে সিয়াম (৪) ও একই গ্রামের দরদ আলীর ছেলে ভ্যানচালক ফরহাদ (৩৫)।

পাইস্কা ইউনিয়নের সদস্য আব্দুল হাকিম বলেন, ‘কৃষক মাঈনুদ্দিন সকালে তার অসুস্থ স্ত্রী ছাহেরাকে ডাক্তার দেখাতে পাশের উপজেলা ঘাটাইলের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে যান। সঙ্গে তাদের শিশু সন্তানও ছিল। ডাক্তার দেখিয়ে ভ্যানে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পাশের দররামবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা বিনিময় পরিবহনের চালক নূরনবীও তার বাস নিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসছিলেন। দুই চালক আগে থেকেই পরিচিত হওয়ায় ভ্যানের সামনে এসে বাস নিয়ে দুষ্টুমি করেন। একপর্যায়ে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোভ্যানের ওপর ওঠে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই ভ্যানের চালকসহ তিন জন মারা যান। আর হাসপাতালে নেওয়ার পর শিশুটির মৃত্যু হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিহত মাঈনুদ্দিন হতদরিদ্র। তার ১০-১২ বছরের আরও দুই মেয়ে রয়েছে। তারা মাদ্রাসায় পড়াশোনা করছে। এখন তাদের দেখার মতো কেউ রইলো না।’

স্থানীয় বাসিন্দা শাহআলম বলেন, ‘বিনিময় পরিবহন চালক নূরনবী মাদক সেবন করে বাস চালায়। এই সড়কে তিনি একাধিক দুর্ঘটনা ঘটিয়েছেন।’

মধুপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন কর্মকর্তা হেমাউল কবির বলেন, ‘মধুপুর থেকে ঢাকাগামী বাসটির মধুপুরগামী ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে তিন জনের মৃত্যু হয়। আর হাসপাতালে আরেক শিশুর মৃত্যু হয়।’

মধুপুর থানার ওসি মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন বলেন, ‘নিহতদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে।’