ঢাকা , সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্রিটিশ ইন্দো-প্যাসিফিক মন্ত্রী সম্পর্ক জোরদার করতে ঢাকায়

যুক্তরাজ্যের ইন্দো-প্যাসিফিক মন্ত্রী অ্যান-মেরি ট্রেভেলিয়ান নিরাপত্তা, গণতন্ত্র, মানবাধিকার, বাণিজ্য এবং রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনা করতে আজ ঢাকায় এসেছেন।
আজ এখানে ব্রিটিশ হাইকমিশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখছে, তাই এই সফরের লক্ষ্য হল সাফল্য উদযাপন এবং বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনী বছর সহ ভবিষ্যতে দুই দেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করা।’
ট্রেভেলিয়ান এ সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.এ কে আব্দুল মোমেনের সাথে সাক্ষাত করবেন এবং পাশাপাশি সুশীল সমাজ, মানবাধিকার কর্মী, জলবায়ু বিশেষজ্ঞ এবং ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের সাথে আলোচনা করবেন।
ব্রিটিশ মন্ত্রী যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ জলবায়ু চুক্তিতেও স্বাক্ষর করবেন, যার লক্ষ্য হলো কপ২৬ এবং কপ২৭-এর ফলাফল কাজে লাগাতে জলবায়ু কর্মসূচিতে দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক সহযোগিতা বাড়ানো।
ট্রেভেলিয়ান বলেছেন, ‘আমি বাংলাদেশ সফর করতে পেরে আনন্দিত যে দেশটির সঙ্গে যুক্তরাজ্যের দৃঢ় সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে।’
মন্ত্রী বলেন, ‘যুক্তরাজ্য ৫১ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের ঘনিষ্ঠ অংশীদার হিসেবে পাশে থাকতে পেরে গর্বিত। বাণিজ্য ও বিনিয়োগ থেকে শুরু করে প্রতিরক্ষা, জলবায়ু বিষয়ক কর্মকান্ড এবং মানবিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে আমাদের অভিন্ন নীতিতে এ সম্পর্ক সুদৃঢ়।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমার সফরের মাধ্যমে, আমি আমাদের ঘনিষ্ঠ এবং মূল্যবান অংশীদারিত্বকে আরও সুদৃঢ় করার অপেক্ষায় রয়েছি।’
বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেন, এই সফর বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাজ্যের প্রতিশ্রুতি এবং ভবিষ্যতে দুই দেশের অংশীদারিত্বের বিষয়ে উচ্চাকাঙ্খার কথা পুনর্ব্যক্ত করে।
তিনি বলেন, ‘আমরা বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, জলবায়ু, নিরাপত্তা, শিক্ষা, নারী ও মেয়েদের জন্য সমতা এবং রোহিঙ্গা সঙ্কটসহ বিভিন্ন বিষয়ে আরও ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবো।’
মন্ত্রী ট্রেভেলিয়ান ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গাদের জন্য যুক্তরাজ্যের মানবিক সহায়তা কর্মসূচি দেখতে কক্সবাজার যাবেন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

ব্রিটিশ ইন্দো-প্যাসিফিক মন্ত্রী সম্পর্ক জোরদার করতে ঢাকায়

আপডেট সময় ০৫:১৩:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩

যুক্তরাজ্যের ইন্দো-প্যাসিফিক মন্ত্রী অ্যান-মেরি ট্রেভেলিয়ান নিরাপত্তা, গণতন্ত্র, মানবাধিকার, বাণিজ্য এবং রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনা করতে আজ ঢাকায় এসেছেন।
আজ এখানে ব্রিটিশ হাইকমিশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখছে, তাই এই সফরের লক্ষ্য হল সাফল্য উদযাপন এবং বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনী বছর সহ ভবিষ্যতে দুই দেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করা।’
ট্রেভেলিয়ান এ সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.এ কে আব্দুল মোমেনের সাথে সাক্ষাত করবেন এবং পাশাপাশি সুশীল সমাজ, মানবাধিকার কর্মী, জলবায়ু বিশেষজ্ঞ এবং ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের সাথে আলোচনা করবেন।
ব্রিটিশ মন্ত্রী যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ জলবায়ু চুক্তিতেও স্বাক্ষর করবেন, যার লক্ষ্য হলো কপ২৬ এবং কপ২৭-এর ফলাফল কাজে লাগাতে জলবায়ু কর্মসূচিতে দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক সহযোগিতা বাড়ানো।
ট্রেভেলিয়ান বলেছেন, ‘আমি বাংলাদেশ সফর করতে পেরে আনন্দিত যে দেশটির সঙ্গে যুক্তরাজ্যের দৃঢ় সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে।’
মন্ত্রী বলেন, ‘যুক্তরাজ্য ৫১ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের ঘনিষ্ঠ অংশীদার হিসেবে পাশে থাকতে পেরে গর্বিত। বাণিজ্য ও বিনিয়োগ থেকে শুরু করে প্রতিরক্ষা, জলবায়ু বিষয়ক কর্মকান্ড এবং মানবিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে আমাদের অভিন্ন নীতিতে এ সম্পর্ক সুদৃঢ়।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমার সফরের মাধ্যমে, আমি আমাদের ঘনিষ্ঠ এবং মূল্যবান অংশীদারিত্বকে আরও সুদৃঢ় করার অপেক্ষায় রয়েছি।’
বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেন, এই সফর বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাজ্যের প্রতিশ্রুতি এবং ভবিষ্যতে দুই দেশের অংশীদারিত্বের বিষয়ে উচ্চাকাঙ্খার কথা পুনর্ব্যক্ত করে।
তিনি বলেন, ‘আমরা বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, জলবায়ু, নিরাপত্তা, শিক্ষা, নারী ও মেয়েদের জন্য সমতা এবং রোহিঙ্গা সঙ্কটসহ বিভিন্ন বিষয়ে আরও ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবো।’
মন্ত্রী ট্রেভেলিয়ান ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গাদের জন্য যুক্তরাজ্যের মানবিক সহায়তা কর্মসূচি দেখতে কক্সবাজার যাবেন।