ঢাকা , বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেলুন নিয়ে উত্তেজনা: সাড়া নেই চীন-মার্কিন হটলাইনে

এক সপ্তাহের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে ‘বিশাল বেলুন’ ও ‘অজ্ঞাত বস্তুকে’ গুলি করে ভূপাতিত করার পর থেকে চীনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে কোনও যোগাযোগ নেই যুক্তরাষ্ট্রের। হোয়াইট হাউজের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিল স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশনস কো-অর্ডিনেটর জন কিরবি শুক্রবার সাংবাদিকদের একথা বলেছেন। পেন্টাগন বলেছে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী হটলাইনে চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে ফোন দিলেও তাতে সাড়া পাওয়া যায়নি। অস্টিনের ফোনে সাড়া না দেওয়ার কথা স্বীকার করেছে বেইজিংও।

জন কিরবি বলেন, ‘আলাস্কার আকাশে প্রায় ৪০ হাজার ফুট উপরে উড়ন্ত একটি ‘অজানা বস্তুকে’ গুলি করা হয়েছে। বস্তুটি উত্তর-পূর্বে আর্কটিকের দিকে উড়ে যাওয়ার কারণে বেসামরিক বিমান চলাচলে হুমকি সৃষ্টি করছিল বলে জানা গেছে।’

সংবাদ সম্মেলনে কিরবি আরও বলেন, ‘বৃহস্পতিবার বস্তুটি সনাক্ত করা হয়েছিল। প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে গুলির নির্দেশ জারির আগে এটিতে কোনও মানুষ ছিল না বলে নিশ্চিত করেছেন আমাদের পাইলটরা।’

গত ৭ দিনের ব্যবধানে যুক্তরাষ্ট্রের আকাশ থেকে দুটি ‘অজানা বস্তু’ ভূপাতিত করা হয়েছে। সাউথ ক্যারোলাইনাইর আকাশে গত সপ্তাহে একটি বিশাল বেলুন উড়তে দেখা গেলে, সেটিকে ভূপাতিত করে মার্কিন প্রশাসন।

বেলুনটিকে নিজেদের বলে স্বীকার করে নিলেও বেইজিংয়ের দাবি, এটি বেসামরিক গবেষণার কাজে ব্যবহার হচ্ছিল। প্রতিকূল আবহাওয়ায় সেটি কক্ষপথ থেকে ছিটকে গিয়েছিল। এ ঘটনায় তলানিতে থাকা দুই দেশের কূটনৈতিক উত্তেজনা চরমে পৌঁছায়।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে যোগাযোগের অবস্থা কেমন জানতে চাইলে কিরবি বলেন, ‘অবশ্যই দুই দেশ কূটনৈতিক স্তরে যোগাযোগ করছে। কারণ বেইজিংয়ে আমাদের একটি দূতাবাস রয়েছে এবং সেখানে কূটনৈতিক আলোচনাও নিয়মিত হয়। তবে দুঃখজনকভাবে সামরিক চ্যানেলগুলোকে খোলা মনে হচ্ছে না।’

আগস্টে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের তৎকালীন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির বিতর্কিত তাইওয়ান সফরে যাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যোগাযোগের বেশ কয়েকটি লাইন স্থগিত করেছিল চীন।

কিরবি বলেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন পিপলস লিবারেশন আর্মির সঙ্গে যোগাযোগ পুনঃস্থাপনের চেষ্টা করেছিলেন। তবে তা প্রত্যাখ্যান করে বেইজিং।

চীনা বেলুন ভূপাতিত করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন হটলাইনে চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছিলেন। অস্টিন চেয়েছিলেন পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করে উত্তেজনা প্রশমন করতে। কিন্তু চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েই ফেংগে ফোনে সাড়া দেননি বলে দাবি করেছে পেন্টাগন।

চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, বেলুন ভূপাতিত করার পর অস্টিনের ফোনে সাড়া দেওয়া হয়নি। কারণ সংলাপ ও বিনিময়ের উপযুক্ত পরিবেশ যুক্তরাষ্ট্র তৈরি করেনি।

মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বৃহস্পতিবার বলেছিলেন, মার্কিন পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক রীতির গুরুতর লঙ্ঘন এবং একটি ক্ষতিকর নজির স্থাপন করেছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

বেলুন নিয়ে উত্তেজনা: সাড়া নেই চীন-মার্কিন হটলাইনে

আপডেট সময় ০৪:০৪:২৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

এক সপ্তাহের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে ‘বিশাল বেলুন’ ও ‘অজ্ঞাত বস্তুকে’ গুলি করে ভূপাতিত করার পর থেকে চীনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে কোনও যোগাযোগ নেই যুক্তরাষ্ট্রের। হোয়াইট হাউজের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিল স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশনস কো-অর্ডিনেটর জন কিরবি শুক্রবার সাংবাদিকদের একথা বলেছেন। পেন্টাগন বলেছে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী হটলাইনে চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে ফোন দিলেও তাতে সাড়া পাওয়া যায়নি। অস্টিনের ফোনে সাড়া না দেওয়ার কথা স্বীকার করেছে বেইজিংও।

জন কিরবি বলেন, ‘আলাস্কার আকাশে প্রায় ৪০ হাজার ফুট উপরে উড়ন্ত একটি ‘অজানা বস্তুকে’ গুলি করা হয়েছে। বস্তুটি উত্তর-পূর্বে আর্কটিকের দিকে উড়ে যাওয়ার কারণে বেসামরিক বিমান চলাচলে হুমকি সৃষ্টি করছিল বলে জানা গেছে।’

সংবাদ সম্মেলনে কিরবি আরও বলেন, ‘বৃহস্পতিবার বস্তুটি সনাক্ত করা হয়েছিল। প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে গুলির নির্দেশ জারির আগে এটিতে কোনও মানুষ ছিল না বলে নিশ্চিত করেছেন আমাদের পাইলটরা।’

গত ৭ দিনের ব্যবধানে যুক্তরাষ্ট্রের আকাশ থেকে দুটি ‘অজানা বস্তু’ ভূপাতিত করা হয়েছে। সাউথ ক্যারোলাইনাইর আকাশে গত সপ্তাহে একটি বিশাল বেলুন উড়তে দেখা গেলে, সেটিকে ভূপাতিত করে মার্কিন প্রশাসন।

বেলুনটিকে নিজেদের বলে স্বীকার করে নিলেও বেইজিংয়ের দাবি, এটি বেসামরিক গবেষণার কাজে ব্যবহার হচ্ছিল। প্রতিকূল আবহাওয়ায় সেটি কক্ষপথ থেকে ছিটকে গিয়েছিল। এ ঘটনায় তলানিতে থাকা দুই দেশের কূটনৈতিক উত্তেজনা চরমে পৌঁছায়।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে যোগাযোগের অবস্থা কেমন জানতে চাইলে কিরবি বলেন, ‘অবশ্যই দুই দেশ কূটনৈতিক স্তরে যোগাযোগ করছে। কারণ বেইজিংয়ে আমাদের একটি দূতাবাস রয়েছে এবং সেখানে কূটনৈতিক আলোচনাও নিয়মিত হয়। তবে দুঃখজনকভাবে সামরিক চ্যানেলগুলোকে খোলা মনে হচ্ছে না।’

আগস্টে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের তৎকালীন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির বিতর্কিত তাইওয়ান সফরে যাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যোগাযোগের বেশ কয়েকটি লাইন স্থগিত করেছিল চীন।

কিরবি বলেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন পিপলস লিবারেশন আর্মির সঙ্গে যোগাযোগ পুনঃস্থাপনের চেষ্টা করেছিলেন। তবে তা প্রত্যাখ্যান করে বেইজিং।

চীনা বেলুন ভূপাতিত করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন হটলাইনে চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছিলেন। অস্টিন চেয়েছিলেন পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করে উত্তেজনা প্রশমন করতে। কিন্তু চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েই ফেংগে ফোনে সাড়া দেননি বলে দাবি করেছে পেন্টাগন।

চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, বেলুন ভূপাতিত করার পর অস্টিনের ফোনে সাড়া দেওয়া হয়নি। কারণ সংলাপ ও বিনিময়ের উপযুক্ত পরিবেশ যুক্তরাষ্ট্র তৈরি করেনি।

মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বৃহস্পতিবার বলেছিলেন, মার্কিন পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক রীতির গুরুতর লঙ্ঘন এবং একটি ক্ষতিকর নজির স্থাপন করেছে।