ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞাপন প্রচারে আরও কঠোর হলো ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম

ক্ষতির কারণ হতে পারে এমন বিজ্ঞাপনের বেলায় আরও কঠোর হলো ফেসবুকের অভিভাবক মেটা। টিন এজদের টার্গেট করা বিজ্ঞাপনের বিষয়ে বিধিনিষেধ সম্প্রতি আরও বাড়িয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এখন থেকে ফেসবুক এবং ইনস্টগ্রামের মার্কেটাররা জেন্ডারভিত্তিক টিনদের শনাক্ত করতে পারবে না। শুধু বয়স আর লোকেশন দেখা যাবে।

এছাড়া মার্চ থেকে ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামের টিন এজার ব্যবহারকারীরা আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ পাবে। যদিও ইতোমধ্যে তারা কোনও নির্দিষ্ট বিজ্ঞাপনদাতার বিজ্ঞাপনকে হাইড করে দিতে পারে। এরপর থেকে তারা কোনও ধরনের বিজ্ঞাপনের প্রচারকে কমিয়ে দিতে পারবে।

সংবাদমাধ্যম এনগেজেট জানায়, মেটা আস্তে আস্তে টিন এজারদের ব্যাপারে বেশ কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে। আর এই সপ্তাহেই তারা বড় দুটি পরিবর্তন আনলো। কয়েক দিন আগেই মেটা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক প্রযুক্তি আনে, যেখানে বৈষম্যমূলক বিজ্ঞাপন বণ্টন কমিয়ে আনা হয়। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের চাপে ফেসবুক জাতি, লিঙ্গ এবং অন্যান্য সুরক্ষিত শ্রেণিভিত্তিক টার্গেট বিজ্ঞাপনের বিষয়ে কাজ করে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন প্রচারে আরও কঠোর হলো ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম

আপডেট সময় ০৩:৫৯:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৩

ক্ষতির কারণ হতে পারে এমন বিজ্ঞাপনের বেলায় আরও কঠোর হলো ফেসবুকের অভিভাবক মেটা। টিন এজদের টার্গেট করা বিজ্ঞাপনের বিষয়ে বিধিনিষেধ সম্প্রতি আরও বাড়িয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এখন থেকে ফেসবুক এবং ইনস্টগ্রামের মার্কেটাররা জেন্ডারভিত্তিক টিনদের শনাক্ত করতে পারবে না। শুধু বয়স আর লোকেশন দেখা যাবে।

এছাড়া মার্চ থেকে ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামের টিন এজার ব্যবহারকারীরা আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ পাবে। যদিও ইতোমধ্যে তারা কোনও নির্দিষ্ট বিজ্ঞাপনদাতার বিজ্ঞাপনকে হাইড করে দিতে পারে। এরপর থেকে তারা কোনও ধরনের বিজ্ঞাপনের প্রচারকে কমিয়ে দিতে পারবে।

সংবাদমাধ্যম এনগেজেট জানায়, মেটা আস্তে আস্তে টিন এজারদের ব্যাপারে বেশ কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে। আর এই সপ্তাহেই তারা বড় দুটি পরিবর্তন আনলো। কয়েক দিন আগেই মেটা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক প্রযুক্তি আনে, যেখানে বৈষম্যমূলক বিজ্ঞাপন বণ্টন কমিয়ে আনা হয়। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের চাপে ফেসবুক জাতি, লিঙ্গ এবং অন্যান্য সুরক্ষিত শ্রেণিভিত্তিক টার্গেট বিজ্ঞাপনের বিষয়ে কাজ করে।