ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাঘায় আমের বাম্পার ফলনের আশা

রাজশাহীর আমের সুনাম দেশজুড়ে। জেলার বাঘায় মুকুলে ছেয়ে গেছে আমগাছ। আমগাছের নিচ দিয়ে গেলে মুকুলের গন্ধে ভরে উঠে মন। গাছে মুকুল দেখে চাষিদের মন খুশিতে ভরে উঠছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আমের বাম্পার ফলন হবে।

উপজেলার আড়ানী গ্রামের আমব্যবসায়ী নওশাদ আলী জানান, গাছে যে পরিমাণ মুকুল এসেছে, এর ২৫ ভাগ টিকে থাকলে গাছের ডাল ভেঙে পড়বে। প্রতিটি গাছে মুকুল এসেছে।

গোচর গ্রামের রবিউল ইসলাম জানান, এলাকার প্রতিটি মানুষের আমগাছ রয়েছে। যে ব্যক্তি অন্যের জমিতে বসবাস করেন তিনিও বাড়ির আঙিনায় একটি গাছ লাগিয়েছেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিউল্লা সুলতান জানান, অল্প সময়ের মধ্যে আমের ফলন পাওয়া যায়। মাত্র ২-৩ বছরের মধ্যে আম আসে শুরু করে। দীর্ঘ সময় ধরে আম পাওয়া যায়। এ উপজেলার মাটি আম চাষের জন্য খুব উপযোগী। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবার আশানুরূপ ফলন হবে। মে, জুন ও জুলাই তিন মাস গাছে আম পাওয়া যায়। গাছে যে পরিমাণ মুকুল এসেছে, আবহাওয়া ভালো থাকলে উৎপাদন ভালো হবে। উপজেলায় ৮ হাজার ৬৯৬ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে।

এদিকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সহযোগিতায় পাঁচ বছর ধরে আম বিশ্বের আটটি দেশে রপ্তানি করা হচ্ছে। এবারো রপ্তানি করা হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

বাঘায় আমের বাম্পার ফলনের আশা

আপডেট সময় ০৪:৩২:৩৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

রাজশাহীর আমের সুনাম দেশজুড়ে। জেলার বাঘায় মুকুলে ছেয়ে গেছে আমগাছ। আমগাছের নিচ দিয়ে গেলে মুকুলের গন্ধে ভরে উঠে মন। গাছে মুকুল দেখে চাষিদের মন খুশিতে ভরে উঠছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আমের বাম্পার ফলন হবে।

উপজেলার আড়ানী গ্রামের আমব্যবসায়ী নওশাদ আলী জানান, গাছে যে পরিমাণ মুকুল এসেছে, এর ২৫ ভাগ টিকে থাকলে গাছের ডাল ভেঙে পড়বে। প্রতিটি গাছে মুকুল এসেছে।

গোচর গ্রামের রবিউল ইসলাম জানান, এলাকার প্রতিটি মানুষের আমগাছ রয়েছে। যে ব্যক্তি অন্যের জমিতে বসবাস করেন তিনিও বাড়ির আঙিনায় একটি গাছ লাগিয়েছেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিউল্লা সুলতান জানান, অল্প সময়ের মধ্যে আমের ফলন পাওয়া যায়। মাত্র ২-৩ বছরের মধ্যে আম আসে শুরু করে। দীর্ঘ সময় ধরে আম পাওয়া যায়। এ উপজেলার মাটি আম চাষের জন্য খুব উপযোগী। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবার আশানুরূপ ফলন হবে। মে, জুন ও জুলাই তিন মাস গাছে আম পাওয়া যায়। গাছে যে পরিমাণ মুকুল এসেছে, আবহাওয়া ভালো থাকলে উৎপাদন ভালো হবে। উপজেলায় ৮ হাজার ৬৯৬ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে।

এদিকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সহযোগিতায় পাঁচ বছর ধরে আম বিশ্বের আটটি দেশে রপ্তানি করা হচ্ছে। এবারো রপ্তানি করা হবে।