ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বন্দরে পৃথক অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ২

বন্দরে পৃথক অভিযান চালিয়ে ৬৫ পিছ ইয়াবাসহ ২ মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মাদক ব্যবসায়ী হলো বন্দর থানার ২০নং ওয়ার্ডের সোনাকান্দা পানির ট্যাংকি এলাকার সরফতুল্লা ওরফে বাওয়া মিয়ার ছেলে ইমরান (৩২) ও একই থানার বন্দর ইউনিয়নের কুশিয়ারা এলাকার দীপক মজুমদারের ছেলে হৃদয় মজুমদার (২৪)।

গ্রেপ্তারকৃত দুই মাদক কারবারিকে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে পৃথক মাদক মামলায় আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

এর আগে গত সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যা পৌনে ৬ টায় বন্দর থানার মাহমুদনগর ইনসি সিমেন্ট কারখানার সামনে ও একই তারিখ রাত ১১টা ৫ মিনিটে বন্দর ইটালি বিল্ডিং এর সামনে পৃথক অভিযান চালিয়ে উল্লেখিত ২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

বন্দরে পৃথক স্থান থেকে মাদক উদ্ধারের ঘটনায় বন্দর থানার এসআই বিল্লাল হোসেন ও বন্দর ফাঁড়ি এসআই আরিফ পাঠান বাদী হয়ে বন্দর থানায় মাদক আইনে পৃথক দুইটি মামলা রুজু করেছে। যার মামলা নং- ৮(২)২৪ ও ৯(২)২৪।

থানা সূত্রে জানাগেছে, বন্দর থানার এসআই বিল্লাল হোসেনসহ সঙ্গীয় ফোর্স গত সোমবার সন্ধ্যায় বন্দর থানার মাহমুদনগর ইনসি সিমেন্ট কারখানার সামনে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৫০ পিছ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী ইমরানকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

এ ছাড়াও বন্দর ফাঁড়ি এসআই আরিফ পাঠানসহ সঙ্গী ফোর্স একই তারিখ রাত ১১টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বন্দর ইটালি বিল্ডিং এর সামনে অভিযান চালিয়ে ১৫ পিছ ইয়াবাসহ হৃদয় মজুমদার নামে আরো এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

থানা সূত্রে আরো জানাগেছে, ধৃত মাদক ব্যবসায়ী ইমরান ও অপর মাদক কারবারি হৃদয় মজুমদার দীর্ঘদিন ধরে বন্দরে বিভিন্ন এলাকায় অবাধে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

বন্দরে পৃথক অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ২

আপডেট সময় ০৩:৩৪:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বন্দরে পৃথক অভিযান চালিয়ে ৬৫ পিছ ইয়াবাসহ ২ মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মাদক ব্যবসায়ী হলো বন্দর থানার ২০নং ওয়ার্ডের সোনাকান্দা পানির ট্যাংকি এলাকার সরফতুল্লা ওরফে বাওয়া মিয়ার ছেলে ইমরান (৩২) ও একই থানার বন্দর ইউনিয়নের কুশিয়ারা এলাকার দীপক মজুমদারের ছেলে হৃদয় মজুমদার (২৪)।

গ্রেপ্তারকৃত দুই মাদক কারবারিকে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে পৃথক মাদক মামলায় আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

এর আগে গত সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যা পৌনে ৬ টায় বন্দর থানার মাহমুদনগর ইনসি সিমেন্ট কারখানার সামনে ও একই তারিখ রাত ১১টা ৫ মিনিটে বন্দর ইটালি বিল্ডিং এর সামনে পৃথক অভিযান চালিয়ে উল্লেখিত ২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

বন্দরে পৃথক স্থান থেকে মাদক উদ্ধারের ঘটনায় বন্দর থানার এসআই বিল্লাল হোসেন ও বন্দর ফাঁড়ি এসআই আরিফ পাঠান বাদী হয়ে বন্দর থানায় মাদক আইনে পৃথক দুইটি মামলা রুজু করেছে। যার মামলা নং- ৮(২)২৪ ও ৯(২)২৪।

থানা সূত্রে জানাগেছে, বন্দর থানার এসআই বিল্লাল হোসেনসহ সঙ্গীয় ফোর্স গত সোমবার সন্ধ্যায় বন্দর থানার মাহমুদনগর ইনসি সিমেন্ট কারখানার সামনে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৫০ পিছ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী ইমরানকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

এ ছাড়াও বন্দর ফাঁড়ি এসআই আরিফ পাঠানসহ সঙ্গী ফোর্স একই তারিখ রাত ১১টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বন্দর ইটালি বিল্ডিং এর সামনে অভিযান চালিয়ে ১৫ পিছ ইয়াবাসহ হৃদয় মজুমদার নামে আরো এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

থানা সূত্রে আরো জানাগেছে, ধৃত মাদক ব্যবসায়ী ইমরান ও অপর মাদক কারবারি হৃদয় মজুমদার দীর্ঘদিন ধরে বন্দরে বিভিন্ন এলাকায় অবাধে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল।