ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বন্দরে পারটেক্স ষ্টার গ্রুপ শ্রমিক দের বেতন নিয়ে টালবাহানা

নারায়ণগঞ্জ,বন্দর, মদনপুরে হরিপুর পারটেক্স ষ্টার গ্রুপ শ্রমিক দের বেতন নিয়ে টালবাহানা করছে এ বিষয়ে বাৎসরিক বেতন বৃদ্ধি ও বকেয়া বেতন সহ মোট আট দফা দাবি দিয়ে আবেদন জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষের নিকট।

যথাবিহিত সম্মান পূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার স্থায়ী স্টাফ ও সকল শ্রমিকগন, বিগত ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মোট দুই মাসের বকেয়া বেতন দেওয়া হয়নি, এবং বিগত দুই বছর যাবত আমাদের বেতন বৃদ্ধি করা হয়নি। এমতাবস্থায় দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধির কারনে আমাদের পরিবার পরিজন নিয়ে চলতে কষ্টসাধ্য হচ্ছে। তাই আমাদের দাবি সমূহ নিম্নে উপস্থাপন করা হলো:- ১। ২০২৩ সালে বেতন স্কেলের সাথে সমন্নর/ সংযোজন করে ২০২৪ সালে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে বেতন ভাতা পুননির্ধারণ করে সকল শ্রমিক ও স্টাফদের সর্বনিম্ন বেতন ২৫,০০০/- (পঁচিশ হাজার) টাকা বৃদ্ধি করে দিতে হবে। ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যে বেতন বৃদ্ধি না করা হলে পূনরায় আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবো।
২। প্রতি বছর জানুয়ারী মাসের মধ্যে ৫০০০/-(পাঁচ হাজার) টাকা বেতন বৃদ্ধি করতে হবে।
৩। প্রতি মাসে হাজিরা বোনাস ১০০০/-( এক হাজার) টাকা দিতে হবে।
৪। নাইট বিল ৫০/-(পঞ্চাশ) টাকা করে দিতে হবে।
৫। ইফতারের বিল ১০০/-(একশ) টাকা করে দিতে হবে।
৬। ২০১৮/২০১৯ সালের মেডিকেলের দুটিয় টাকা দিতে হবে।
৭। প্রতিডেন্টফান্ড (PF) এর ১৯% বকেয়া টাকা পরিশোধ করতে হবে।
৮। ১ থেকে ৫ তারিখের মধ্যে বেতন পরিশোধ করতে হবে।

আমাদের দাবি-দাওয়া করার কারনে যদি কোন ওয়ার্কার ও স্টাফদের চাকরিচ্যুত করা হয়, তাহলে আমরা সবাই পূনরায় আন্দোলন চালিয়ে যাবো।
অতএব মহোদয়ের কাছে আকুল আবেদন এই যে, উপরোক্ত দাবি ধাওয়া গুলি পূরন করার জন্য ভি,সি স্যারের সু-মর্জি কামনা করতেছি।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

বন্দরে পারটেক্স ষ্টার গ্রুপ শ্রমিক দের বেতন নিয়ে টালবাহানা

আপডেট সময় ০৩:২৬:২৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নারায়ণগঞ্জ,বন্দর, মদনপুরে হরিপুর পারটেক্স ষ্টার গ্রুপ শ্রমিক দের বেতন নিয়ে টালবাহানা করছে এ বিষয়ে বাৎসরিক বেতন বৃদ্ধি ও বকেয়া বেতন সহ মোট আট দফা দাবি দিয়ে আবেদন জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষের নিকট।

যথাবিহিত সম্মান পূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার স্থায়ী স্টাফ ও সকল শ্রমিকগন, বিগত ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মোট দুই মাসের বকেয়া বেতন দেওয়া হয়নি, এবং বিগত দুই বছর যাবত আমাদের বেতন বৃদ্ধি করা হয়নি। এমতাবস্থায় দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধির কারনে আমাদের পরিবার পরিজন নিয়ে চলতে কষ্টসাধ্য হচ্ছে। তাই আমাদের দাবি সমূহ নিম্নে উপস্থাপন করা হলো:- ১। ২০২৩ সালে বেতন স্কেলের সাথে সমন্নর/ সংযোজন করে ২০২৪ সালে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে বেতন ভাতা পুননির্ধারণ করে সকল শ্রমিক ও স্টাফদের সর্বনিম্ন বেতন ২৫,০০০/- (পঁচিশ হাজার) টাকা বৃদ্ধি করে দিতে হবে। ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যে বেতন বৃদ্ধি না করা হলে পূনরায় আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবো।
২। প্রতি বছর জানুয়ারী মাসের মধ্যে ৫০০০/-(পাঁচ হাজার) টাকা বেতন বৃদ্ধি করতে হবে।
৩। প্রতি মাসে হাজিরা বোনাস ১০০০/-( এক হাজার) টাকা দিতে হবে।
৪। নাইট বিল ৫০/-(পঞ্চাশ) টাকা করে দিতে হবে।
৫। ইফতারের বিল ১০০/-(একশ) টাকা করে দিতে হবে।
৬। ২০১৮/২০১৯ সালের মেডিকেলের দুটিয় টাকা দিতে হবে।
৭। প্রতিডেন্টফান্ড (PF) এর ১৯% বকেয়া টাকা পরিশোধ করতে হবে।
৮। ১ থেকে ৫ তারিখের মধ্যে বেতন পরিশোধ করতে হবে।

আমাদের দাবি-দাওয়া করার কারনে যদি কোন ওয়ার্কার ও স্টাফদের চাকরিচ্যুত করা হয়, তাহলে আমরা সবাই পূনরায় আন্দোলন চালিয়ে যাবো।
অতএব মহোদয়ের কাছে আকুল আবেদন এই যে, উপরোক্ত দাবি ধাওয়া গুলি পূরন করার জন্য ভি,সি স্যারের সু-মর্জি কামনা করতেছি।