ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফতুল্লায় ৩ বছরের ভাগ্নিকে ধর্ষণের অভিযোগ

কাশীপুরে এক শিশু (৩)কে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যাক্তিকে আটক করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ভুক্তভোগী শিশুর মা বাদি হয়ে একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। তথ্যটি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন ফতুল্লা মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অফিসার ইনচার্জ) শেখ রিজাউল হক দিপু।

অভিযুক্ত ব্যাক্তির নাম রেজাউল করিম(৪২)। সে ফতুল্লার কাশিপুর এলাকার তারা মিয়ার ছেলে। এর আগে বুধবার রাতে ওই ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটায় তাকে ফতুল্লা মডেল থানার কাশিপুর ফরাজিকান্দা থেকে আটক করা হয়।

পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত রেজাউল করিম ও ভিকটিম একই বাসায় পাশাপাশি রুমে ভাড়ায় বসবাস করে আসছিলো। সে সুবাদে বাদীর তিন বছর বয়সী মেয়ে অভিযুক্তকে মামা বলে ডাকতো। প্রায় সময় শিশুটিকে আদর করতো। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে বাদী রান্না ঘরে রান্না করছিলো। এ সময় চকলেট দেওয়ার কথা বলে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে বাদীর শিশু মেয়েক ধর্ষন করে। রান্না শেষে নিজ রুমে এসে বাদী তার মেয়েকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি করতে থাকে। এক পর্যায়ে শিশু মেয়ের স্যান্ডেল রেজাউল করিমের দরজার বাইরে দেখতে পায়। তখন ভেতর থেকে দরজা বন্ধ ছিলো। এতে করে বাদী দরজায় ধাক্কা দিলে রেজাউল করিম তার ঘরের দরজা খুলে দিলে শিশুটি বের হয়ে কান্না করতে থাকে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সজিব জানায়, অভিযুক্ত রেজাউল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। শিশুটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

ফতুল্লায় ৩ বছরের ভাগ্নিকে ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট সময় ০৪:০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

কাশীপুরে এক শিশু (৩)কে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যাক্তিকে আটক করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ভুক্তভোগী শিশুর মা বাদি হয়ে একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। তথ্যটি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন ফতুল্লা মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অফিসার ইনচার্জ) শেখ রিজাউল হক দিপু।

অভিযুক্ত ব্যাক্তির নাম রেজাউল করিম(৪২)। সে ফতুল্লার কাশিপুর এলাকার তারা মিয়ার ছেলে। এর আগে বুধবার রাতে ওই ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটায় তাকে ফতুল্লা মডেল থানার কাশিপুর ফরাজিকান্দা থেকে আটক করা হয়।

পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত রেজাউল করিম ও ভিকটিম একই বাসায় পাশাপাশি রুমে ভাড়ায় বসবাস করে আসছিলো। সে সুবাদে বাদীর তিন বছর বয়সী মেয়ে অভিযুক্তকে মামা বলে ডাকতো। প্রায় সময় শিশুটিকে আদর করতো। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে বাদী রান্না ঘরে রান্না করছিলো। এ সময় চকলেট দেওয়ার কথা বলে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে বাদীর শিশু মেয়েক ধর্ষন করে। রান্না শেষে নিজ রুমে এসে বাদী তার মেয়েকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি করতে থাকে। এক পর্যায়ে শিশু মেয়ের স্যান্ডেল রেজাউল করিমের দরজার বাইরে দেখতে পায়। তখন ভেতর থেকে দরজা বন্ধ ছিলো। এতে করে বাদী দরজায় ধাক্কা দিলে রেজাউল করিম তার ঘরের দরজা খুলে দিলে শিশুটি বের হয়ে কান্না করতে থাকে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সজিব জানায়, অভিযুক্ত রেজাউল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। শিশুটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।