ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি ঘোষণার সময় হয়নি : স্বাস্থ্য ডিজি

বর্তমান ডেঙ্গু পরিস্থিতিতে পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি ঘোষণা করার মতো অবস্থা এখনও হয়নি বলে উল্লেখ করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাসার মো. খুরশিদ আলম। তিনি বলেন, যখন করোনা ছিল, তখন পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু এখন এটি ঘোষণা করার মতো পরিস্থিতি আমরা দেখছি না।

রোববার (১৬ জুলাই) ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

খুরশিদ আলম বলেন, পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সির যদি প্রয়োজন হয় তাহলে সেটা পলিসি লেভেলে আলোচনা করতে হবে। আমরা আমাদের কনসার্ন পলিসি লেভেলে জানিয়েছি।

তিনি বলেন, এবার বর্ষা দেরিতে শুরু হয়েছে তাই ডেঙ্গু মৌসুম লম্বা হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। ডেঙ্গু চিকিৎসায় হাসপাতালগুলোয় জনবল সংকট নিরসনে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। রাজধানীর সব সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু চিকিৎসার ব্যবস্থা আছে। নির্দিষ্ট একটি হাসপাতালে না গিয়ে ডেঙ্গু চিকিৎসায় অন্যান্য সেসব হাসপাতালে আছে, সেখানে যাওয়ার অনুরোধ করছি।

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, আমরা দেখছি আশঙ্কাজনকভাবে ডেঙ্গুরোগী বাড়ছে। আমরা চিকিৎসা দিচ্ছি, দেবো। তবে রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকলে নিশ্চয়ই আমরা সংকটে পড়ব। এখন পর্যন্ত আমাদের কোনো সংকট নেই। আমরা সবাই মিলে যদি ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে চাই, আশা করছি পারব।

খুরশিদ আলম বলেন, অনকে বেসরকারি হাসপাতাল এখনও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে ডেঙ্গুর রিপোর্ট জমা দিচ্ছে না। যারা এখন থেকে আমাদের রিপোর্ট দেবে না, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এসময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এমআইএস বিভাগের লাইন ডিরেক্টর ডা. অধ্যাপক শাহাদাৎ হোসেন বলেন, এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা আরও নতুন ৩০টি বেসরকারি হাসপাতালকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাথে যুক্ত করেছি। তারাও এখন থেকে নিয়মিত ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে আমাদের তথ্য দেবে। ইতোমধ্যে আমরা সেসব হাসপাতাল থেকে সংশ্লিষ্টদের এনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. রাশেদা সুলতানাসহ আরও অনেকে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি ঘোষণার সময় হয়নি : স্বাস্থ্য ডিজি

আপডেট সময় ০৩:৪৯:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০২৩

বর্তমান ডেঙ্গু পরিস্থিতিতে পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি ঘোষণা করার মতো অবস্থা এখনও হয়নি বলে উল্লেখ করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাসার মো. খুরশিদ আলম। তিনি বলেন, যখন করোনা ছিল, তখন পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সি ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু এখন এটি ঘোষণা করার মতো পরিস্থিতি আমরা দেখছি না।

রোববার (১৬ জুলাই) ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

খুরশিদ আলম বলেন, পাবলিক হেলথ ইমার্জেন্সির যদি প্রয়োজন হয় তাহলে সেটা পলিসি লেভেলে আলোচনা করতে হবে। আমরা আমাদের কনসার্ন পলিসি লেভেলে জানিয়েছি।

তিনি বলেন, এবার বর্ষা দেরিতে শুরু হয়েছে তাই ডেঙ্গু মৌসুম লম্বা হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। ডেঙ্গু চিকিৎসায় হাসপাতালগুলোয় জনবল সংকট নিরসনে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। রাজধানীর সব সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু চিকিৎসার ব্যবস্থা আছে। নির্দিষ্ট একটি হাসপাতালে না গিয়ে ডেঙ্গু চিকিৎসায় অন্যান্য সেসব হাসপাতালে আছে, সেখানে যাওয়ার অনুরোধ করছি।

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, আমরা দেখছি আশঙ্কাজনকভাবে ডেঙ্গুরোগী বাড়ছে। আমরা চিকিৎসা দিচ্ছি, দেবো। তবে রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকলে নিশ্চয়ই আমরা সংকটে পড়ব। এখন পর্যন্ত আমাদের কোনো সংকট নেই। আমরা সবাই মিলে যদি ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে চাই, আশা করছি পারব।

খুরশিদ আলম বলেন, অনকে বেসরকারি হাসপাতাল এখনও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে ডেঙ্গুর রিপোর্ট জমা দিচ্ছে না। যারা এখন থেকে আমাদের রিপোর্ট দেবে না, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এসময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এমআইএস বিভাগের লাইন ডিরেক্টর ডা. অধ্যাপক শাহাদাৎ হোসেন বলেন, এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা আরও নতুন ৩০টি বেসরকারি হাসপাতালকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাথে যুক্ত করেছি। তারাও এখন থেকে নিয়মিত ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে আমাদের তথ্য দেবে। ইতোমধ্যে আমরা সেসব হাসপাতাল থেকে সংশ্লিষ্টদের এনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. রাশেদা সুলতানাসহ আরও অনেকে।