ঢাকা , বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী Logo ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতির প্রভাব কী হতে পারে? Logo মায়ের ওড়না শাড়ি বানিয়ে পরলেন জেফার, দেখালেন চমক Logo পরিবারসহ বেনজীরের আরও ১১৩ স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ Logo হায়দরাবাদকে গুঁড়িয়ে, উড়িয়ে কলকাতা চ্যাম্পিয়ন Logo ফতুল্লায় রহিম হাজী ও সামেদ আলীর গ্রুপে সংঘর্ষ, ভাংচুর, আহত ১৫ Logo সোনারগাঁয়ে নির্বাচন পরবর্তী প্রতিহিংসায় শতাধিক ফলজ গাছ কর্তন Logo মুছাপুরে স্বর্ণকার অজিতের প্রেমের ফাঁদে সর্বশান্ত প্রবাসী নারী Logo বন্দরে বিভিন্ন মামলার ২ সাঁজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার Logo নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় অন্ত:সত্তা নারীর মৃত্যু, চালক আটক

নৌপথে স্বস্তির ঈদযাত্রা

রাজধানী থেকে ঘরমুখো মানুষ নৌপথে স্বস্তিতে ঈদযাত্রা শুরু করেছে। বুধবার ঢাকা নদীবন্দর সদরঘাটে যাত্রীর চাপ ছিল তুলনামূলক কম। সেই সঙ্গে লঞ্চগুলোতেও আরামদায়কভাবে যাত্রীরা ভ্রমণ করছেন। তাছাড়া কোনো লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগও পাওয়া যায়নি। তবে আশানুরূপ ব্যবসা হবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন লঞ্চ মালিকরা।

বুধবার ঢাকা নদীবন্দরে সরেজমিনে দেখা গেছে, লঞ্চ টার্মিনাল পন্টুনে কোনো ধরনের ভিড় নেই। লঞ্চগুলোতে যাত্রীরা চাহিদামতো আসন সংগ্রহ করে যাত্রা শুরু করছেন। বরিশালগামী লঞ্চগুলোতে ডেক যাত্রীদের ৪০০ টাকা, সিঙ্গেল কেবিন ১২০০ টাকা, ডাবল কেবিন ২২০০ টাকা ও ভিআইপি কেবিন ৬০০০ টাকা পর্যন্ত সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করায় যাত্রীরা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

বরিশালগামী যাত্রী সেলিম আল মামুন যুগান্তরকে বলেন, সদরঘাট পর্যন্ত আসতে কিছুটা কষ্ট হলেও সদরঘাটে নেমে আগের মতো ভিড় চোখে পড়েনি। তাই সময় মতো কেবিন বুঝে পেয়েছি। ঈদযাত্রাটা স্বস্তিদায়ক হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সুন্দরবন নেভিগেশনের জেনারেল ম্যানেজার মোহাম্মদ আবুল কালাম ঝন্টু  বলেন, পদ্মা সেতু হওয়ার পরেও লঞ্চ ব্যবসা তেমন কোনো ব্যাঘাত ঘটেনি। কিন্তু হঠাৎ করে তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতিটি ট্রিপে লঞ্চ মালিকরা লোকসানের সম্মুখীন হচ্ছেন। এমন চলতে থাকলে সামনে ব্যবসা টিকবে কিনা, বা চলতি মৌসুমে আশানুরূপ ব্যবসা হবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন তিনি।

জানা গেছে, সদরঘা‌ট থেকে দেশের ৪১টি নৌ রুটে প্রায় শতাধিক লঞ্চ চলাচল করছে। ওই সব লঞ্চে ডেক যাত্রীদের পাশাপাশি কেবিন ও ভিআইপি কেবিনের মাধ্যমে ১৬ লাখ যাত্রী পারাপারের সব ব্যবস্থা সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

এ বিষয়ে ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক (ট্রাফিক) মো. কোভিদ হোসেন যুগান্তরকে বলেন, এই ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। টার্মিনালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি বিএনসিসি, রোভার স্কাউটসহ বিভিন্ন সংস্থা যাত্রীদের নিরাপত্তায় কাজ করছে। তাছাড়া লঞ্চে কোনো অতিরিক্ত যাত্রী বহনের খবর পাওয়া যায়নি বলেও জানান তিনি।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী

নৌপথে স্বস্তির ঈদযাত্রা

আপডেট সময় ০৪:৪১:৩৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৩

রাজধানী থেকে ঘরমুখো মানুষ নৌপথে স্বস্তিতে ঈদযাত্রা শুরু করেছে। বুধবার ঢাকা নদীবন্দর সদরঘাটে যাত্রীর চাপ ছিল তুলনামূলক কম। সেই সঙ্গে লঞ্চগুলোতেও আরামদায়কভাবে যাত্রীরা ভ্রমণ করছেন। তাছাড়া কোনো লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগও পাওয়া যায়নি। তবে আশানুরূপ ব্যবসা হবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন লঞ্চ মালিকরা।

বুধবার ঢাকা নদীবন্দরে সরেজমিনে দেখা গেছে, লঞ্চ টার্মিনাল পন্টুনে কোনো ধরনের ভিড় নেই। লঞ্চগুলোতে যাত্রীরা চাহিদামতো আসন সংগ্রহ করে যাত্রা শুরু করছেন। বরিশালগামী লঞ্চগুলোতে ডেক যাত্রীদের ৪০০ টাকা, সিঙ্গেল কেবিন ১২০০ টাকা, ডাবল কেবিন ২২০০ টাকা ও ভিআইপি কেবিন ৬০০০ টাকা পর্যন্ত সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করায় যাত্রীরা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

বরিশালগামী যাত্রী সেলিম আল মামুন যুগান্তরকে বলেন, সদরঘাট পর্যন্ত আসতে কিছুটা কষ্ট হলেও সদরঘাটে নেমে আগের মতো ভিড় চোখে পড়েনি। তাই সময় মতো কেবিন বুঝে পেয়েছি। ঈদযাত্রাটা স্বস্তিদায়ক হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সুন্দরবন নেভিগেশনের জেনারেল ম্যানেজার মোহাম্মদ আবুল কালাম ঝন্টু  বলেন, পদ্মা সেতু হওয়ার পরেও লঞ্চ ব্যবসা তেমন কোনো ব্যাঘাত ঘটেনি। কিন্তু হঠাৎ করে তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতিটি ট্রিপে লঞ্চ মালিকরা লোকসানের সম্মুখীন হচ্ছেন। এমন চলতে থাকলে সামনে ব্যবসা টিকবে কিনা, বা চলতি মৌসুমে আশানুরূপ ব্যবসা হবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন তিনি।

জানা গেছে, সদরঘা‌ট থেকে দেশের ৪১টি নৌ রুটে প্রায় শতাধিক লঞ্চ চলাচল করছে। ওই সব লঞ্চে ডেক যাত্রীদের পাশাপাশি কেবিন ও ভিআইপি কেবিনের মাধ্যমে ১৬ লাখ যাত্রী পারাপারের সব ব্যবস্থা সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

এ বিষয়ে ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক (ট্রাফিক) মো. কোভিদ হোসেন যুগান্তরকে বলেন, এই ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। টার্মিনালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি বিএনসিসি, রোভার স্কাউটসহ বিভিন্ন সংস্থা যাত্রীদের নিরাপত্তায় কাজ করছে। তাছাড়া লঞ্চে কোনো অতিরিক্ত যাত্রী বহনের খবর পাওয়া যায়নি বলেও জানান তিনি।