ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিপাহ ভাইরাস মারাত্মক, এই রোগের ওষুধ নেই, চিকিৎসাও নেই

নিপাহ ভাইরাস মারাত্মক রকমের ভাইরাস উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘এই ভাইরাসে আক্রান্তদের মৃত্যুর হার ৭৫ শতাংশ। এই ভাইরাসের টিকা নেই, কোনও ওষুধ নেই, এমনকি চিকিৎসাও নেই। তাই আমাদের সাবধান হতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘বাদুড়ের খাওয়া ফল ও খেজুরের রসের মাধ্যমে নিপাহ ভাইরাস ছড়ায়। তাই খেজুরের রস খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক হতে হবে। আমাদের দেশে এবার আট জন নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে কেউ আক্রান্ত হননি। নিপাহ ভাইরাসের জন্য দুটি হাসপাতালে ২৫ শয্যার ইউনিট খোলা হয়েছে। সেইসঙ্গে ২৮ জেলাকে সতর্ক অবস্থায় থাকতে বলা হয়েছে।’

শনিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার সমাপনী দিনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মহীউদ্দীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেলা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম।

সভায় বিএনপিকে উদ্দেশ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যে দলের নেতা সাজাপ্রাপ্ত, বিদেশে পালিয়ে আছে, ওই দলের ভবিষ্যৎ নেই। যে দল দেশের কোনও উন্নয়ন করতে পারে না, তাদের কাছে দেশ নিরাপদ নয়। শেখ হাসিনার হাতেই দেশ নিরাপদ। তাই আগামী নির্বাচনে দেশের মানুষ শেখ হাসিনাকে বেছে নেবেন, আবারও ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বানাবেন।’

তিনি বলেন, ‘করোনার টিকা নিয়ে বিএনপি নেতারা গুজব ছড়িয়েছিল, গঙ্গার পানি ভরে মানুষকে টিকা দেওয়া হচ্ছে বলেছিল। এসব গুজব ছড়িয়ে কোনও লাভ হয়নি। দেশের ৯০ শতাংশ মানুষ টিকা নিয়েছে। সারাবিশ্বে বাংলাদেশ টিকা প্রয়োগে পঞ্চম হলেও জনসংখ্যা বিবেচনায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে।’

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবিএম হেলাল উদ্দিন, জেলা ডায়াবেটিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম খান আপেল, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুদেব সাহা ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট দীপক ঘোষ প্রমুখ।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

নিপাহ ভাইরাস মারাত্মক, এই রোগের ওষুধ নেই, চিকিৎসাও নেই

আপডেট সময় ০৪:২৩:০১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

নিপাহ ভাইরাস মারাত্মক রকমের ভাইরাস উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘এই ভাইরাসে আক্রান্তদের মৃত্যুর হার ৭৫ শতাংশ। এই ভাইরাসের টিকা নেই, কোনও ওষুধ নেই, এমনকি চিকিৎসাও নেই। তাই আমাদের সাবধান হতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘বাদুড়ের খাওয়া ফল ও খেজুরের রসের মাধ্যমে নিপাহ ভাইরাস ছড়ায়। তাই খেজুরের রস খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক হতে হবে। আমাদের দেশে এবার আট জন নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে কেউ আক্রান্ত হননি। নিপাহ ভাইরাসের জন্য দুটি হাসপাতালে ২৫ শয্যার ইউনিট খোলা হয়েছে। সেইসঙ্গে ২৮ জেলাকে সতর্ক অবস্থায় থাকতে বলা হয়েছে।’

শনিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার সমাপনী দিনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মহীউদ্দীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেলা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম।

সভায় বিএনপিকে উদ্দেশ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যে দলের নেতা সাজাপ্রাপ্ত, বিদেশে পালিয়ে আছে, ওই দলের ভবিষ্যৎ নেই। যে দল দেশের কোনও উন্নয়ন করতে পারে না, তাদের কাছে দেশ নিরাপদ নয়। শেখ হাসিনার হাতেই দেশ নিরাপদ। তাই আগামী নির্বাচনে দেশের মানুষ শেখ হাসিনাকে বেছে নেবেন, আবারও ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বানাবেন।’

তিনি বলেন, ‘করোনার টিকা নিয়ে বিএনপি নেতারা গুজব ছড়িয়েছিল, গঙ্গার পানি ভরে মানুষকে টিকা দেওয়া হচ্ছে বলেছিল। এসব গুজব ছড়িয়ে কোনও লাভ হয়নি। দেশের ৯০ শতাংশ মানুষ টিকা নিয়েছে। সারাবিশ্বে বাংলাদেশ টিকা প্রয়োগে পঞ্চম হলেও জনসংখ্যা বিবেচনায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে।’

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবিএম হেলাল উদ্দিন, জেলা ডায়াবেটিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম খান আপেল, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুদেব সাহা ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট দীপক ঘোষ প্রমুখ।