ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তারেক জিয়ার আসল লোক কে, জানালেন ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মির্জা ফখরুলের মন ভালো নেই। তারেক রহমানের আসল লোক আমির খসরু। মির্জা ফখরুল কি করবে? সংসদ সদস্য হয়ে ধমকের চোটে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছে। বড় দলের মহাসচিব পদ এই লোভ সামলায় কতোজন?

রোববার বিকালে রাজধানীর খিলগাঁওয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

‘বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, নৈরাজ্য, অপরাজনীতি ও অব্যাহত দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের’ প্রতিবাদে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তত্ত্বাবধায়ক ভুয়া, পদযাত্রা, পতনযাত্রা এটাও ভুয়া। লোক কমে যাচ্ছে। মিছিলে প্রস্থে লোক বাড়ে, লম্বায় কমে গেছে। তার মানে সব নেতা। সামনে নেতা পেছনের কর্মীরা চলে যাচ্ছে। কতো স্বপ্ন দেখিয়ে কর্মীদের হাড়ি-পাতিল-লোটা-কম্বল-মশারী সব নিয়ে পাতিলেল পর পাতিল খাবার তৈরি হচ্ছে মির্জা আব্বাসের ওখানে। সেসব কোথায় গেলো?

তিনি বলেন, ১০ ডিসেম্বরের এতো আওয়াজ, এতো লাল কার্ড কোথায় গেলো? সব গোলাপবাগের গরুর হাটে। বিএনপির আন্দোলন গুরুতর আহত। মাঝে মাঝে মনে হয় পিপিলিকার পাখা ওঠে মরিবার তরে। এতো লাফালাফি পতনটা নিজেদেরই হবে। অপেক্ষা করুন। ধৈর্য্য ধরুন। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত আমরা কর্মসূচি করে যাবো। কোনো পাল্টপাল্টি নয়। আমরা এক বছরের কর্মসূচি দিয়ে রেখেছি, কখনো শান্তি সমাবেশ, কখনো সম্মেলন, কখনো গণসংযোগ।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চাই না। নির্বাচনে আসুন। পরিবর্তন চাইলে নির্বাচনে আসেন। এখনও বলছি জনগণ ভোট না দিলে আমরা নাই। জনগনের ভোটেই (ক্ষমতা) পরিবর্তন হবে। হাকডাক দিয়ে পরিবর্তন হয় না।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

তারেক জিয়ার আসল লোক কে, জানালেন ওবায়দুল কাদের

আপডেট সময় ০৪:১৯:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মির্জা ফখরুলের মন ভালো নেই। তারেক রহমানের আসল লোক আমির খসরু। মির্জা ফখরুল কি করবে? সংসদ সদস্য হয়ে ধমকের চোটে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছে। বড় দলের মহাসচিব পদ এই লোভ সামলায় কতোজন?

রোববার বিকালে রাজধানীর খিলগাঁওয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

‘বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, নৈরাজ্য, অপরাজনীতি ও অব্যাহত দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের’ প্রতিবাদে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তত্ত্বাবধায়ক ভুয়া, পদযাত্রা, পতনযাত্রা এটাও ভুয়া। লোক কমে যাচ্ছে। মিছিলে প্রস্থে লোক বাড়ে, লম্বায় কমে গেছে। তার মানে সব নেতা। সামনে নেতা পেছনের কর্মীরা চলে যাচ্ছে। কতো স্বপ্ন দেখিয়ে কর্মীদের হাড়ি-পাতিল-লোটা-কম্বল-মশারী সব নিয়ে পাতিলেল পর পাতিল খাবার তৈরি হচ্ছে মির্জা আব্বাসের ওখানে। সেসব কোথায় গেলো?

তিনি বলেন, ১০ ডিসেম্বরের এতো আওয়াজ, এতো লাল কার্ড কোথায় গেলো? সব গোলাপবাগের গরুর হাটে। বিএনপির আন্দোলন গুরুতর আহত। মাঝে মাঝে মনে হয় পিপিলিকার পাখা ওঠে মরিবার তরে। এতো লাফালাফি পতনটা নিজেদেরই হবে। অপেক্ষা করুন। ধৈর্য্য ধরুন। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত আমরা কর্মসূচি করে যাবো। কোনো পাল্টপাল্টি নয়। আমরা এক বছরের কর্মসূচি দিয়ে রেখেছি, কখনো শান্তি সমাবেশ, কখনো সম্মেলন, কখনো গণসংযোগ।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চাই না। নির্বাচনে আসুন। পরিবর্তন চাইলে নির্বাচনে আসেন। এখনও বলছি জনগণ ভোট না দিলে আমরা নাই। জনগনের ভোটেই (ক্ষমতা) পরিবর্তন হবে। হাকডাক দিয়ে পরিবর্তন হয় না।