ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডিবি পরিচয়ে ৩৮ লাখ টাকা ছিনতাই, পিবিআই’র অভিযানে গ্রেপ্তার ৭

সিদ্ধিরগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে ৩৮ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৭ জন আন্তাজেলা ডাকাত গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রবিবার (১২ মার্চ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ পিবিআই কার্যলয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পিবিআই নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম।

এ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়, দুজনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর এবং বাকি দুজনকে চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে দুটি নকল জ্যাকেট ও একটি খেলনা পিস্তল জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তারাকৃতরা হলেন সাইফুল ইসলাম স্বপন (৪৯), নুর ইসলাম (৩৬), মো. রাসেল (৩৫), মো. রতন (৩৬), বাবুল হোসেন (৪৩), শাহরিয়ার মোফাজ্জল (৩১) ও মো. সালাউদ্দিন (২৭)।

সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই’র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম জানান, ২০২১ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একটি মামলা হয়। মামলায় উল্লেখ করা হয়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে ৩৮ লাখ টাকা ছিনতাই করা হয়েছে। ২১ সালের ২২ আগষ্ট মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই। গত ২১ফেব্রুয়ারী সাইফুল ইসলাম স্বপন (৪৯), নূর ইসলাম (৩৬), মোঃ রাসেল, মোঃ রতন (৩৬), মোঃ বাবুল হোসেন (৪৩)কে ব্রাক্ষনবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। দ্বিতীয় দফা শাহরিয়ার, মোঃ সালাউদ্দীন (২৭)কে চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন এলাকা হতে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি জানান, জিজ্ঞাসাবাদ কালে আসামীরা জানান, পুরাতন স্বর্ণ বিক্রি করে ঢাকার তাতি বাজার এলাকায় স্বর্ণপট্টি থেকে বের হওয়ার সময় বাদিকে অনুসরণ করে আাসামী সালাউদ্দিন। বাদী সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড হতে চট্টগ্রামগামী খাদিজা পরিবহনে উঠলে আসামী সালাউদ্দীন কৌশলে ঐ একই বাসে উঠে যায়। কাঁচপুরে পৌঁছেই ডিবি পরিচয়ে ডাকাতি করে।

এসপি মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম জানায়, পরিতোষ চন্দ্র ঢাকার স্বর্ণপট্টি থেকে বের হওয়ার সময় আসামি সালাউদ্দিন তাকে অনুসরণ করতে থাকেন। পরিতোষ সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড থেকে চট্টগ্রামগামী খাদিজা পরিবহনে উঠলে তিনিও কৌশলে ওই বাসে উঠে যান। তারপর সালাউদ্দিন অপর সহযোগী শাহারিয়ার মোফাজ্জলকে ফোনে বিষয়টি জানান। পরে মোফাজ্জল, রতন, বাবুল হোসেন, সাইফুল ইসলাম স্বপন ও নুর ইসলাম কাঁচপুর ব্রিজের পশ্চিম পাশে অবস্থান নেন। বাসটি সেখানে পৌঁছালে তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে পরিতোষের কাছে অবৈধ টাকা আছে বলে দাবি করেন। একপর্যায়ে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দিয়ে টাকা নিয়ে তারা পালিয়ে যান।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

ডিবি পরিচয়ে ৩৮ লাখ টাকা ছিনতাই, পিবিআই’র অভিযানে গ্রেপ্তার ৭

আপডেট সময় ০৪:১৩:৩৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

সিদ্ধিরগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে ৩৮ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৭ জন আন্তাজেলা ডাকাত গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রবিবার (১২ মার্চ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ পিবিআই কার্যলয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পিবিআই নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম।

এ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়, দুজনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর এবং বাকি দুজনকে চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে দুটি নকল জ্যাকেট ও একটি খেলনা পিস্তল জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তারাকৃতরা হলেন সাইফুল ইসলাম স্বপন (৪৯), নুর ইসলাম (৩৬), মো. রাসেল (৩৫), মো. রতন (৩৬), বাবুল হোসেন (৪৩), শাহরিয়ার মোফাজ্জল (৩১) ও মো. সালাউদ্দিন (২৭)।

সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই’র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম জানান, ২০২১ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি সিদ্ধিরগঞ্জ থানার একটি মামলা হয়। মামলায় উল্লেখ করা হয়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে ৩৮ লাখ টাকা ছিনতাই করা হয়েছে। ২১ সালের ২২ আগষ্ট মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই। গত ২১ফেব্রুয়ারী সাইফুল ইসলাম স্বপন (৪৯), নূর ইসলাম (৩৬), মোঃ রাসেল, মোঃ রতন (৩৬), মোঃ বাবুল হোসেন (৪৩)কে ব্রাক্ষনবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। দ্বিতীয় দফা শাহরিয়ার, মোঃ সালাউদ্দীন (২৭)কে চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন এলাকা হতে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি জানান, জিজ্ঞাসাবাদ কালে আসামীরা জানান, পুরাতন স্বর্ণ বিক্রি করে ঢাকার তাতি বাজার এলাকায় স্বর্ণপট্টি থেকে বের হওয়ার সময় বাদিকে অনুসরণ করে আাসামী সালাউদ্দিন। বাদী সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড হতে চট্টগ্রামগামী খাদিজা পরিবহনে উঠলে আসামী সালাউদ্দীন কৌশলে ঐ একই বাসে উঠে যায়। কাঁচপুরে পৌঁছেই ডিবি পরিচয়ে ডাকাতি করে।

এসপি মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম জানায়, পরিতোষ চন্দ্র ঢাকার স্বর্ণপট্টি থেকে বের হওয়ার সময় আসামি সালাউদ্দিন তাকে অনুসরণ করতে থাকেন। পরিতোষ সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড থেকে চট্টগ্রামগামী খাদিজা পরিবহনে উঠলে তিনিও কৌশলে ওই বাসে উঠে যান। তারপর সালাউদ্দিন অপর সহযোগী শাহারিয়ার মোফাজ্জলকে ফোনে বিষয়টি জানান। পরে মোফাজ্জল, রতন, বাবুল হোসেন, সাইফুল ইসলাম স্বপন ও নুর ইসলাম কাঁচপুর ব্রিজের পশ্চিম পাশে অবস্থান নেন। বাসটি সেখানে পৌঁছালে তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে পরিতোষের কাছে অবৈধ টাকা আছে বলে দাবি করেন। একপর্যায়ে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দিয়ে টাকা নিয়ে তারা পালিয়ে যান।