ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টেকনাফে অপহৃত ৮ জন ৩দিন পর বাড়ি ফিরেছেন

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়ার জাহাজপুরা পাহাড়ে অপহরণ হওয়া ৮ জন ৩ দিন পর আহত অবস্থায় বাড়ি ফিরেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) সকালে তাদের বাড়ি ফেরার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল হালিম।

বুধবার (২১ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ২টায় তারা বাড়ি ফিরেন।

এর আগে গত রোববার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেলে বাহারছড়া ইউনিয়নের জাহাজপুরা পাহাড়ের খালে মাছ শিকার করতে গেলে সেখান থেকে তারা অপহৃত হন।

এরা হলেন- বাহারছড়া ইউনিয়নের রশিদ আহমদের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ, ছৈয়দ আমিরের ছেলে মোস্তফা কামাল, তার ভাই করিম উল্লাহ, মমতাজ মিয়ার ছেলে মো. রিদুয়ান, রুস্তম আলীর ছেলে সলিম উল্লাহ, কাদের হোসেনের ছেলে নুরুল হক, রশিদ আহমদের ছেলে নুরুল আবছার ও নুরুল হকের ছেলে নুর মোহাম্মদ।

৩ দিন ধরে প্রশাসনের লোকজন ও স্থানীয়সহ ৪ শতাধিক মানুষ পাহাড়ী অঞ্চলে অপহৃতদের উদ্ধার অভিযানে নেমেছিলেন।

অপহৃত পরিবারের সদস্য মোহাম্মদ হাবিব বলেন, অপহৃত ৮ জনকেই মুক্তিপণের টাকার জন্য নানানভাবে শারীরিক নির্যাতন করেছে অপহরণকারীরা। তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় নির্যাতনের ক্ষত রয়েছে। তারপরও অপহরণকারীরা তাদের ছেড়ে দিয়েছে। তারা বাড়ি ফিরেছেন তার জন্য মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া। আর প্রশাসনসহ যারা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে আমাদের পরিবারের পাশে ছিলেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

ওসি আবদুল হালিম জানান, অপহৃতদের উদ্ধারের জন্য পাহাড়ের ঢালে-জঙ্গলে বিভিন্ন দুর্গম জায়গায় পুলিশের অভিযান চলমান ছিলো। খবর পেলাম বুধবার দিবাগত রাতে অপহৃতরা বাড়ি ফিরেছে। তারা একটু সুস্থ হোক। তারপর তাদের কাছ থেকে অপহরণের কারণসহ বিস্তারিত জানতে পারবো।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

টেকনাফে অপহৃত ৮ জন ৩দিন পর বাড়ি ফিরেছেন

আপডেট সময় ০৪:২০:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২২

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়ার জাহাজপুরা পাহাড়ে অপহরণ হওয়া ৮ জন ৩ দিন পর আহত অবস্থায় বাড়ি ফিরেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) সকালে তাদের বাড়ি ফেরার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল হালিম।

বুধবার (২১ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ২টায় তারা বাড়ি ফিরেন।

এর আগে গত রোববার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেলে বাহারছড়া ইউনিয়নের জাহাজপুরা পাহাড়ের খালে মাছ শিকার করতে গেলে সেখান থেকে তারা অপহৃত হন।

এরা হলেন- বাহারছড়া ইউনিয়নের রশিদ আহমদের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ, ছৈয়দ আমিরের ছেলে মোস্তফা কামাল, তার ভাই করিম উল্লাহ, মমতাজ মিয়ার ছেলে মো. রিদুয়ান, রুস্তম আলীর ছেলে সলিম উল্লাহ, কাদের হোসেনের ছেলে নুরুল হক, রশিদ আহমদের ছেলে নুরুল আবছার ও নুরুল হকের ছেলে নুর মোহাম্মদ।

৩ দিন ধরে প্রশাসনের লোকজন ও স্থানীয়সহ ৪ শতাধিক মানুষ পাহাড়ী অঞ্চলে অপহৃতদের উদ্ধার অভিযানে নেমেছিলেন।

অপহৃত পরিবারের সদস্য মোহাম্মদ হাবিব বলেন, অপহৃত ৮ জনকেই মুক্তিপণের টাকার জন্য নানানভাবে শারীরিক নির্যাতন করেছে অপহরণকারীরা। তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় নির্যাতনের ক্ষত রয়েছে। তারপরও অপহরণকারীরা তাদের ছেড়ে দিয়েছে। তারা বাড়ি ফিরেছেন তার জন্য মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া। আর প্রশাসনসহ যারা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে আমাদের পরিবারের পাশে ছিলেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

ওসি আবদুল হালিম জানান, অপহৃতদের উদ্ধারের জন্য পাহাড়ের ঢালে-জঙ্গলে বিভিন্ন দুর্গম জায়গায় পুলিশের অভিযান চলমান ছিলো। খবর পেলাম বুধবার দিবাগত রাতে অপহৃতরা বাড়ি ফিরেছে। তারা একটু সুস্থ হোক। তারপর তাদের কাছ থেকে অপহরণের কারণসহ বিস্তারিত জানতে পারবো।