ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জার্মানিতে বিমানবন্দর কর্মীদের ধর্মঘট, ৩ লাখ যাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত

জার্মানির ৭টি বিমানবন্দরে কর্মীদের ২৪ ঘণ্টার ধর্মঘটে প্রায় ৩ লাখ যাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। উচ্চ বেতনের দাবিতে বিমানবন্দরের বিভিন্ন বিভাগের ট্রেড ইউনিয়নভুক্ত কর্মীরা এই ধর্মঘট করছেন।

হামবুর্গ বিমানবন্দরের এক মুখপাত্র বলেন, সকাল থেকেই টার্মিনালগুলো খালি। ক্ষতিগ্রস্ত ৩২ হাজার যাত্রীর মধ্যে অল্প কয়েকজন কেবল বিমানবন্দরে এসেছেন। শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর প্রকাশ করেছে।

 

জার্মান বিমানবন্দর সংস্থা এডিভি জানিয়েছে, ব্রেমেন, ডর্টমুন্ড, ফ্রাঙ্কফুর্ট, হামবুর্গ, হ্যানোভার, মিউনিখ ও স্টুটগার্ট বিমানবন্দরের ২৩৪০টি ফ্লাইট বাতিলের কারণে প্রায় দুই লাখ ৯৫ হাজার যাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

এডিভির রাল্ফ বেইসেল বলেন, আজ সকালে আমরা যখন বিমানবন্দরের টার্মিনালগুলোর দিকে তাকাই, এটি আমাদের করোনা মহামারির সবচেয়ে খারাপ দিনগুলোর কথা মনে করিয়ে দেয়। এটি সতর্কতামূলক ধর্মঘট নয়।

গত বুধবার জার্মান ট্রেড ইউনিয়ন ভারদি এই ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়। ভারদি জানায়, সমঝোতার জন্য বিমানবন্দরের সেবাকর্মী, সরকারি খাতের কর্মী এবং অভিবাসন নিরাপত্তা কর্মীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টার আশানুরূপ অগ্রগতি না হওয়ায় এই ধর্মঘট আহ্বান করা হয়।

 

ভারদির উপপ্রধান স্ক্রিস্টিন বেহলে বলেন, বেতনের ব্যাপারে যদি এখন কিছু না করা হয়, তাহলে আমরা সবাই আরেকটি ঝঞ্ঝাটময় গ্রীষ্মের মুখোমুখি হব। এই ধর্মঘটের মানে হলো কঠোর বার্তা দেওয়া।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

জার্মানিতে বিমানবন্দর কর্মীদের ধর্মঘট, ৩ লাখ যাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত

আপডেট সময় ০৩:৫৮:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

জার্মানির ৭টি বিমানবন্দরে কর্মীদের ২৪ ঘণ্টার ধর্মঘটে প্রায় ৩ লাখ যাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। উচ্চ বেতনের দাবিতে বিমানবন্দরের বিভিন্ন বিভাগের ট্রেড ইউনিয়নভুক্ত কর্মীরা এই ধর্মঘট করছেন।

হামবুর্গ বিমানবন্দরের এক মুখপাত্র বলেন, সকাল থেকেই টার্মিনালগুলো খালি। ক্ষতিগ্রস্ত ৩২ হাজার যাত্রীর মধ্যে অল্প কয়েকজন কেবল বিমানবন্দরে এসেছেন। শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর প্রকাশ করেছে।

 

জার্মান বিমানবন্দর সংস্থা এডিভি জানিয়েছে, ব্রেমেন, ডর্টমুন্ড, ফ্রাঙ্কফুর্ট, হামবুর্গ, হ্যানোভার, মিউনিখ ও স্টুটগার্ট বিমানবন্দরের ২৩৪০টি ফ্লাইট বাতিলের কারণে প্রায় দুই লাখ ৯৫ হাজার যাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

এডিভির রাল্ফ বেইসেল বলেন, আজ সকালে আমরা যখন বিমানবন্দরের টার্মিনালগুলোর দিকে তাকাই, এটি আমাদের করোনা মহামারির সবচেয়ে খারাপ দিনগুলোর কথা মনে করিয়ে দেয়। এটি সতর্কতামূলক ধর্মঘট নয়।

গত বুধবার জার্মান ট্রেড ইউনিয়ন ভারদি এই ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়। ভারদি জানায়, সমঝোতার জন্য বিমানবন্দরের সেবাকর্মী, সরকারি খাতের কর্মী এবং অভিবাসন নিরাপত্তা কর্মীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টার আশানুরূপ অগ্রগতি না হওয়ায় এই ধর্মঘট আহ্বান করা হয়।

 

ভারদির উপপ্রধান স্ক্রিস্টিন বেহলে বলেন, বেতনের ব্যাপারে যদি এখন কিছু না করা হয়, তাহলে আমরা সবাই আরেকটি ঝঞ্ঝাটময় গ্রীষ্মের মুখোমুখি হব। এই ধর্মঘটের মানে হলো কঠোর বার্তা দেওয়া।