ঢাকা , বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতীয় পার্টিকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করেছে আ. লীগ: জি এম কাদের

আওয়ামী লীগ বন্ধুত্বের নামে জাতীয় পার্টিকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করেছে বলে দাবি করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপ-নেতা জি এম কাদের।

তিনি বলেন, রাজনীতিতে জাতীয় পার্টি বন্ধুত্ব করবে কিন্তু কারও দাসত্ব করবে না।

আওয়ামী লীগ বন্ধুত্বের নামে আমাদেরকে দাস বানানোর চেষ্টা করছে। তারা আমাদেরকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করেছে। তারা আমাদেরকে শুধু হুকুম করেছে। কোনো সুযোগ সুবিধা দেয়নি। আমাদেরকে কোনো বরাদ্দ দেয়নি। কোনো সম্মান দেয়নি।
শনিবার (৪ মার্চ) সন্ধ্যায় রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোডের দলীয় কার্যালয়ে মহানগর ও জেলা জাতীয় পার্টি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জি এম কাদের বলেন, আমরা সম্মানের জন্য রাজনীতি করি। আমরা আর এমন কারও সঙ্গে বন্ধুত্ব করবো না, যেখানে আমরা সম্মানের সঙ্গে তাদের চোখে চোখ রেখে কথা বলতে পারবো না। এমন না হলে আমরা কারো সঙ্গে রাজনীতিতে বন্ধুত্ব করবো না।

তিনি বলেন, রমজান মাসে সরকার ও দলীয় সিন্ডিকেটে পণ্যের দাম দ্বিগুণ বেড়ে যায়। কিন্তু সরকার তা নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ। এর সব দায় সরকারের। মানুষ এখন জাতীয় পার্টিকে চায়। সেই লক্ষ্যেই আমরা কাজ করছি।

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, বায়ু দূষণে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন, দুর্নীতেও এই সরকার চ্যাম্পিয়ন। বায়ু দূষণে ফুসফুসে রোগের হার বাড়ছে। এরকম ঝুঁকিতে আমরা বসবাস করছি। একটু পরে পরে আমারই কাশি হচ্ছে। হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসার সেবা নেই। শুধু কাজ হচ্ছে, বড় বড় বিল্ডিং হচ্ছে। কিন্তু চিকিৎসা সেবা ঠিক মতো হচ্ছে না। রংপুরের মতো বিভাগীয় শহরে ভালো চিকিৎসক নাই। চিকিৎসার জন্য ঢাকা যেতে হয়। একজন কৃষক, শ্রমিক, দোকানদারসহ সাধারণ মানুষ কিভাবে ঢাকায় যাবে চিকিৎসা করাতে।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, বড় বড় বিল্ডিং হচ্ছে কিন্তু শিক্ষার মান বাড়ছে না। জণগনের টাকা লুট করে খাচ্ছে এই সরকার। বিল্ডিং করলে কি শিক্ষার মান বাড়বে নাকি। এই হলো আমাদের উন্নয়ন। এক শ্রেণির মানুষ হাজার হাজার লাখ লাখ টাকা আয় করছে। আরেক শ্রেণির মানুষ না খেয়ে হাপিতাস করছে। এখন জিনিসপত্রের দাম যেভাবে বাড়ছে সামনের দিনে জিনিসপত্রের দাম আরেক দফা বাড়বে। কমার কোনো সুযোগে নেই।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এস এম ইয়াসির, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, আদিলুর রহমান আদিল এমপি, জেলা যুব-সংহতির সভাপতি হাসানুজ্জামান নাজিম, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, মহানগর ছাত্র সমাজ সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত আসিফ, জেলা ছাত্র সমাজ সভাপতি আরিফুর রহমান ও মহানগর ছাত্র সমাজ সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ নেতাকর্মীরা।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

জাতীয় পার্টিকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করেছে আ. লীগ: জি এম কাদের

আপডেট সময় ০৪:২৮:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৫ মার্চ ২০২৩

আওয়ামী লীগ বন্ধুত্বের নামে জাতীয় পার্টিকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করেছে বলে দাবি করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপ-নেতা জি এম কাদের।

তিনি বলেন, রাজনীতিতে জাতীয় পার্টি বন্ধুত্ব করবে কিন্তু কারও দাসত্ব করবে না।

আওয়ামী লীগ বন্ধুত্বের নামে আমাদেরকে দাস বানানোর চেষ্টা করছে। তারা আমাদেরকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করেছে। তারা আমাদেরকে শুধু হুকুম করেছে। কোনো সুযোগ সুবিধা দেয়নি। আমাদেরকে কোনো বরাদ্দ দেয়নি। কোনো সম্মান দেয়নি।
শনিবার (৪ মার্চ) সন্ধ্যায় রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোডের দলীয় কার্যালয়ে মহানগর ও জেলা জাতীয় পার্টি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জি এম কাদের বলেন, আমরা সম্মানের জন্য রাজনীতি করি। আমরা আর এমন কারও সঙ্গে বন্ধুত্ব করবো না, যেখানে আমরা সম্মানের সঙ্গে তাদের চোখে চোখ রেখে কথা বলতে পারবো না। এমন না হলে আমরা কারো সঙ্গে রাজনীতিতে বন্ধুত্ব করবো না।

তিনি বলেন, রমজান মাসে সরকার ও দলীয় সিন্ডিকেটে পণ্যের দাম দ্বিগুণ বেড়ে যায়। কিন্তু সরকার তা নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ। এর সব দায় সরকারের। মানুষ এখন জাতীয় পার্টিকে চায়। সেই লক্ষ্যেই আমরা কাজ করছি।

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, বায়ু দূষণে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন, দুর্নীতেও এই সরকার চ্যাম্পিয়ন। বায়ু দূষণে ফুসফুসে রোগের হার বাড়ছে। এরকম ঝুঁকিতে আমরা বসবাস করছি। একটু পরে পরে আমারই কাশি হচ্ছে। হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসার সেবা নেই। শুধু কাজ হচ্ছে, বড় বড় বিল্ডিং হচ্ছে। কিন্তু চিকিৎসা সেবা ঠিক মতো হচ্ছে না। রংপুরের মতো বিভাগীয় শহরে ভালো চিকিৎসক নাই। চিকিৎসার জন্য ঢাকা যেতে হয়। একজন কৃষক, শ্রমিক, দোকানদারসহ সাধারণ মানুষ কিভাবে ঢাকায় যাবে চিকিৎসা করাতে।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, বড় বড় বিল্ডিং হচ্ছে কিন্তু শিক্ষার মান বাড়ছে না। জণগনের টাকা লুট করে খাচ্ছে এই সরকার। বিল্ডিং করলে কি শিক্ষার মান বাড়বে নাকি। এই হলো আমাদের উন্নয়ন। এক শ্রেণির মানুষ হাজার হাজার লাখ লাখ টাকা আয় করছে। আরেক শ্রেণির মানুষ না খেয়ে হাপিতাস করছে। এখন জিনিসপত্রের দাম যেভাবে বাড়ছে সামনের দিনে জিনিসপত্রের দাম আরেক দফা বাড়বে। কমার কোনো সুযোগে নেই।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এস এম ইয়াসির, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, আদিলুর রহমান আদিল এমপি, জেলা যুব-সংহতির সভাপতি হাসানুজ্জামান নাজিম, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, মহানগর ছাত্র সমাজ সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত আসিফ, জেলা ছাত্র সমাজ সভাপতি আরিফুর রহমান ও মহানগর ছাত্র সমাজ সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ নেতাকর্মীরা।