ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জনগণের দুঃখ-দুর্দশায় যারা ছিল না তাদের প্রত্যাখ্যান করুন: তথ্যমন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সামনে জাতীয় নির্বাচন ঘনিয়ে এসেছে। অনেকেই এখন এসে বড় বড় কথা বলবে। কিন্তু যারা জনগণের দুঃখ-দুর্দশায় যারা ছিল না, তাদের প্রত্যাখ্যান করুন।

তিনি বলেন, নির্বাচন আসলে যারা এসে বড় বড় কথা বলে, তাদের জিজ্ঞেস করবেন করোনার সময়, বন্যার সময় কিংবা নানা দুর্যোগের সময় তারা কোথায় ছিল। আওয়ামী লীগ দুর্যোগ-দুর্বিপাকে মানুষের পাশে থেকেছে।

মঙ্গলবার বিকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া, হোছনাবাদ, লালানগর, দক্ষিণ রাজানগর, রাজানগর এবং পারুয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন শেষে পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বজন কুমার তালুকদারসহ স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ১৪ বছর আগে মরিয়মনগর ডিসি সড়কটি ছিল কাঁচা। রাণীরহাট থেকে মরিয়মনগর চৌমুহনী একবার গেলে প্যারাসিটামল খেতে হতো। গর্ভবতী নারী হলে সন্তান প্রসব হয়ে যেতো। এসব কোন গল্প নয়, বাস্তবতা। আমরা ক্ষমতায় আসার পর সড়কটি কার্পেটিং করে দিয়েছি। প্রতিবছর বছর সড়কটি সংস্কার করা হয়। এভাবে পুরো রাঙ্গুনিয়ায় উন্নয়নে বদলে গেছে। আজ থেকে ১৪ বছর আগের রাঙ্গুনিয়া আর এখনকার রাঙ্গুনিয়ার চিত্র মেলালেই তা বুঝা যাবে। অলিগলির সড়কও এখন পাকা সড়ক হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ব্যস্ত থাকার পর প্রতি সপ্তাহে একবার-দুইবার করে এলাকায় এসেছি। গত ১৪ বছর ধরে কে কোন দলের তা দেখিনি। দলমত নির্বিশেষে সকলের উপকারে আসার চেষ্টা করেছি। সবার জন্য আমার দরজা খোলা রেখেছি। আমি যখন আপনাদের দয়জায় আসবো, আপনারাও আমার জন্য আপনাদের দরজাটি খোলা রাখবেন।

এদিন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ রাঙ্গুনিয়ার ১০৫ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

জনগণের দুঃখ-দুর্দশায় যারা ছিল না তাদের প্রত্যাখ্যান করুন: তথ্যমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৩:২৪:৩২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সামনে জাতীয় নির্বাচন ঘনিয়ে এসেছে। অনেকেই এখন এসে বড় বড় কথা বলবে। কিন্তু যারা জনগণের দুঃখ-দুর্দশায় যারা ছিল না, তাদের প্রত্যাখ্যান করুন।

তিনি বলেন, নির্বাচন আসলে যারা এসে বড় বড় কথা বলে, তাদের জিজ্ঞেস করবেন করোনার সময়, বন্যার সময় কিংবা নানা দুর্যোগের সময় তারা কোথায় ছিল। আওয়ামী লীগ দুর্যোগ-দুর্বিপাকে মানুষের পাশে থেকেছে।

মঙ্গলবার বিকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া, হোছনাবাদ, লালানগর, দক্ষিণ রাজানগর, রাজানগর এবং পারুয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন শেষে পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বজন কুমার তালুকদারসহ স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ১৪ বছর আগে মরিয়মনগর ডিসি সড়কটি ছিল কাঁচা। রাণীরহাট থেকে মরিয়মনগর চৌমুহনী একবার গেলে প্যারাসিটামল খেতে হতো। গর্ভবতী নারী হলে সন্তান প্রসব হয়ে যেতো। এসব কোন গল্প নয়, বাস্তবতা। আমরা ক্ষমতায় আসার পর সড়কটি কার্পেটিং করে দিয়েছি। প্রতিবছর বছর সড়কটি সংস্কার করা হয়। এভাবে পুরো রাঙ্গুনিয়ায় উন্নয়নে বদলে গেছে। আজ থেকে ১৪ বছর আগের রাঙ্গুনিয়া আর এখনকার রাঙ্গুনিয়ার চিত্র মেলালেই তা বুঝা যাবে। অলিগলির সড়কও এখন পাকা সড়ক হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ব্যস্ত থাকার পর প্রতি সপ্তাহে একবার-দুইবার করে এলাকায় এসেছি। গত ১৪ বছর ধরে কে কোন দলের তা দেখিনি। দলমত নির্বিশেষে সকলের উপকারে আসার চেষ্টা করেছি। সবার জন্য আমার দরজা খোলা রেখেছি। আমি যখন আপনাদের দয়জায় আসবো, আপনারাও আমার জন্য আপনাদের দরজাটি খোলা রাখবেন।

এদিন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ রাঙ্গুনিয়ার ১০৫ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।