ঢাকা , মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার Logo আড়াইহাজারে রেস্টুরেন্ট থেকে অপত্তিকর অবস্থায় ১৬ কিশোর কিশোরী আটক Logo সোনারগাঁয়ে ট্রাক চাপায় যুবক নিহত, চালক আটক Logo সোনারগাঁয়ের আলোচিত সাধন মিয়া হত্যা মামলায় দুইজনের মৃত্যুদন্ড ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড Logo বন্দর ১নং খেয়াঘাট মাঝি সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন Logo আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে মাকসুদ চেয়ারম্যান’র মত বিনিময় সভা ও উঠান বৈঠক Logo না’গঞ্জ জেলা জা’পা সভাপতি সানুর নাম ভাঙ্গিয়ে সুমন প্রধানের অপকর্ম রুখবে কে? Logo হুথিদের হামলায় লোহিত সাগরে ডুবে গেল সেই জাহাজ Logo রাতের লাইভের নেপথ্যের কারণ জানালেন তাহসান-ফারিণ Logo যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

জঙ্গি হুমকি নেই, আতঙ্ক ছড়াতে চিঠি: র‌্যাব ডিজি

র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) এম খুরশিদ হোসেন বলেছেন, মঙ্গল শোভাযাত্রা বন্ধে চিঠি আসলেও কোনো জঙ্গি হামলার হুমকি নেই। আতঙ্ক ছড়াতে তৃতীয় কোনো পক্ষ এটি করতে পারে।

বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর রমনা বটমূলে পয়লা বৈশাখের নিরাপত্তা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পয়লা বৈশাখে কোনো জঙ্গি হামলার হুমকি নেই। মঙ্গল শোভাযাত্রায় হুমকি দিয়ে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে তা তৃতীয় কোনো পক্ষের কাজ। আমরা সেটি নিয়ে তদন্ত করছি। তদন্তে আশা করি চিঠি বা এটা কারা দিয়েছে তা বেরিয়ে আসবে। তবে পয়লা বৈশাখে কেউ যেন কোনো ধরনের নাশকতা করতে না পারে সেজন্য আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি রেখেছি। রমনার বটমূলসহ আশপাশের এলাকায় র‌্যাব সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়া ডগ স্কোয়াড দিয়ে পুরো এলাকার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। অপ্রীতিকর বা অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুরো এলাকায় সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, টিএসসি, শাহবাগ, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও রমনাসহ যেসব এলাকায় বর্ষবরণের অনুষ্ঠান হবে সেসব এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে টহল চেকপোস্ট ও অবজারভেশন পোস্টসহ বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে র‌্যাবের বোম ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড দ্বারা সুইপিং করা হবে। এছাড়া যেকোনো অদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য বোম ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড রয়েছে।

এম খুরশিদ হোসেন বলেন, সারাদেশে নববর্ষের উদযাপন উপলক্ষে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাবের স্ট্রাইকিং রিজার্ভ, মোটরসাইকেল পেট্রোল, বোট পেট্রোল ও সিসিটিভি মনিটরিং রয়েছে। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় র‌্যাবের রিজার্ভ ফোর্স মোতায়েন রয়েছেন। এছাড়া যেকোনো হামলার ঘটনা মোকাবিলায় র‌্যাবের স্পেশাল কমান্ডো টিম প্রস্তুত রয়েছে। নাশকতার কোনো ঘটনা মোকাবিলায় র‌্যাবের টহল ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে।

 

তিনি আরও বলেন, বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে সুনির্দিষ্ট কোনো জঙ্গি হামলার তথ্য নেই। গোয়েন্দা নজরদারি ও সাইবার মনিটরিং বৃদ্ধির মাধ্যমে জঙ্গিদের যেকোনো নাশকতার পরিকল্পনা নস্যাৎ করতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি। ভার্চুয়াল জগতে নববর্ষকে কেন্দ্র করে যেকোনো গুজব ঠেকাতে আমাদের সাইবার মনিটরিং অব্যাহত রয়েছে। নববর্ষ উপলক্ষে আগত মহিলাদের ইভটিজিং করার ঘটনা প্রতিরোধে র‌্যাবের বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

জঙ্গি হুমকি নেই, আতঙ্ক ছড়াতে চিঠি: র‌্যাব ডিজি

আপডেট সময় ০৫:০১:১৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৩

র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) এম খুরশিদ হোসেন বলেছেন, মঙ্গল শোভাযাত্রা বন্ধে চিঠি আসলেও কোনো জঙ্গি হামলার হুমকি নেই। আতঙ্ক ছড়াতে তৃতীয় কোনো পক্ষ এটি করতে পারে।

বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর রমনা বটমূলে পয়লা বৈশাখের নিরাপত্তা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পয়লা বৈশাখে কোনো জঙ্গি হামলার হুমকি নেই। মঙ্গল শোভাযাত্রায় হুমকি দিয়ে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে তা তৃতীয় কোনো পক্ষের কাজ। আমরা সেটি নিয়ে তদন্ত করছি। তদন্তে আশা করি চিঠি বা এটা কারা দিয়েছে তা বেরিয়ে আসবে। তবে পয়লা বৈশাখে কেউ যেন কোনো ধরনের নাশকতা করতে না পারে সেজন্য আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি রেখেছি। রমনার বটমূলসহ আশপাশের এলাকায় র‌্যাব সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়া ডগ স্কোয়াড দিয়ে পুরো এলাকার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। অপ্রীতিকর বা অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুরো এলাকায় সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, টিএসসি, শাহবাগ, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও রমনাসহ যেসব এলাকায় বর্ষবরণের অনুষ্ঠান হবে সেসব এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে টহল চেকপোস্ট ও অবজারভেশন পোস্টসহ বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে র‌্যাবের বোম ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড দ্বারা সুইপিং করা হবে। এছাড়া যেকোনো অদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য বোম ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড রয়েছে।

এম খুরশিদ হোসেন বলেন, সারাদেশে নববর্ষের উদযাপন উপলক্ষে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাবের স্ট্রাইকিং রিজার্ভ, মোটরসাইকেল পেট্রোল, বোট পেট্রোল ও সিসিটিভি মনিটরিং রয়েছে। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় র‌্যাবের রিজার্ভ ফোর্স মোতায়েন রয়েছেন। এছাড়া যেকোনো হামলার ঘটনা মোকাবিলায় র‌্যাবের স্পেশাল কমান্ডো টিম প্রস্তুত রয়েছে। নাশকতার কোনো ঘটনা মোকাবিলায় র‌্যাবের টহল ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে।

 

তিনি আরও বলেন, বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে সুনির্দিষ্ট কোনো জঙ্গি হামলার তথ্য নেই। গোয়েন্দা নজরদারি ও সাইবার মনিটরিং বৃদ্ধির মাধ্যমে জঙ্গিদের যেকোনো নাশকতার পরিকল্পনা নস্যাৎ করতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি। ভার্চুয়াল জগতে নববর্ষকে কেন্দ্র করে যেকোনো গুজব ঠেকাতে আমাদের সাইবার মনিটরিং অব্যাহত রয়েছে। নববর্ষ উপলক্ষে আগত মহিলাদের ইভটিজিং করার ঘটনা প্রতিরোধে র‌্যাবের বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে।