ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০২৪, ২৮ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চীনে ১৯৬১ সালের পর প্রথমবার কমলো জনসংখ্যা

গত ৬০ বছরের মধ্যে প্রথমবার কমেছে চীনের জনসংখ্যা। দেশটির জাতীয় জন্ম হার রেকর্ডমাত্রায় কমে প্রতি হাজারে মাইনাস ৬ দশমিক ৭৭-এ নেমে গেছে। ২০২২ সালে দেশটির জনসংখ্যা ১৪১ কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজারে নেমেছে। যা ২০২১ সালের চেয়ে ৮ লাখ ৫০ হাজার কম। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

গত কয়েক বছর ধরে চীনে জন্ম হার কমছে। এই প্রবণতা ঠেকাতে বেশ কয়েকটি নীতি গ্রহণ করেছে দেশটি। সাত বছর ধরে এক সন্তান নীতি বাতিল করলেও আনুষ্ঠানিকভাবে জনসংখ্যা কমার যুগে প্রবেশ করলো চীন।

২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে জন্ম হার ৭.৫২ কম ছিল। গত বছর প্রথমবার চীনে জন্মের চেয়ে মৃত্যু ছিল বেশি। যা ছিল ১৯৭৬ সালের পর সর্বোচ্চ মৃত্যু হার।

২০২১ সালে পরিচালিত এক দশকের শুমারিতে দেখা গেছে, কয়েক দশকের মধ্যে চীনে জনসংখ্যা বৃদ্ধির গতি মন্থর। জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো পূর্ব এশীয় দেশগুলোতেও জনসংখ্যা কমছে ও বয়স্কদের সংখ্যা বাড়ছে।

ইকনোমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের প্রধান অর্থনীতিবিদ ইউয়ে সু বলেছেন, এই প্রবণতা জারি থাকবে। করোনার পর হয়ত আরও খারাপ হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

চীনে ১৯৬১ সালের পর প্রথমবার কমলো জনসংখ্যা

আপডেট সময় ০৩:৫২:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

গত ৬০ বছরের মধ্যে প্রথমবার কমেছে চীনের জনসংখ্যা। দেশটির জাতীয় জন্ম হার রেকর্ডমাত্রায় কমে প্রতি হাজারে মাইনাস ৬ দশমিক ৭৭-এ নেমে গেছে। ২০২২ সালে দেশটির জনসংখ্যা ১৪১ কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজারে নেমেছে। যা ২০২১ সালের চেয়ে ৮ লাখ ৫০ হাজার কম। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

গত কয়েক বছর ধরে চীনে জন্ম হার কমছে। এই প্রবণতা ঠেকাতে বেশ কয়েকটি নীতি গ্রহণ করেছে দেশটি। সাত বছর ধরে এক সন্তান নীতি বাতিল করলেও আনুষ্ঠানিকভাবে জনসংখ্যা কমার যুগে প্রবেশ করলো চীন।

২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে জন্ম হার ৭.৫২ কম ছিল। গত বছর প্রথমবার চীনে জন্মের চেয়ে মৃত্যু ছিল বেশি। যা ছিল ১৯৭৬ সালের পর সর্বোচ্চ মৃত্যু হার।

২০২১ সালে পরিচালিত এক দশকের শুমারিতে দেখা গেছে, কয়েক দশকের মধ্যে চীনে জনসংখ্যা বৃদ্ধির গতি মন্থর। জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো পূর্ব এশীয় দেশগুলোতেও জনসংখ্যা কমছে ও বয়স্কদের সংখ্যা বাড়ছে।

ইকনোমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের প্রধান অর্থনীতিবিদ ইউয়ে সু বলেছেন, এই প্রবণতা জারি থাকবে। করোনার পর হয়ত আরও খারাপ হবে।