ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

চীনকে বিনামূল্যে কোভিড টিকা দিতে চায় ইইউ

চীনে ‘জিরো-কোভিড’ নীতি শিথিল করার পর সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পর দেশটিকে বিনামূল্যে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। মঙ্গলবার ইইউ কর্মকর্তা এই প্রস্তাবের কথা জানিয়েছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

ইউরোপীয় কমিশনের এক মুখপাত্র বলেছেন, ইইউ’র প্রস্তাবে এখন পর্যন্ত কোনও সাড়া দেয়নি চীন। তবে কী পরিমাণ টিকা দেওয়া হবে বা কোন কোম্পানির টিকা দেওয়া হবে তা সম্পর্কে নির্দিষ্ট কোনও তথ্য দেননি ওই মুখপাত্র।

মুখপাত্র বলেছেন, চীনে কোভিড পরিস্থিতির কারণে ইইউ’র স্বাস্থ্য কমিশনার স্টেলা কিরিয়াকাইডস চীনা কর্তৃপক্ষের কাছে সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছেন। এর মধ্যে সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে কার্যকর টিকাও রয়েছে।

ইইউ’র প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে কিনা জানতে চাইলে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মাও নিং সরাসরি জবাব দেননি। তিনি রয়টার্সকে বলেছেন, চীনের টিকাদানের হার ও চিকিৎসার সামর্থ্য দিন দিন বাড়ছে এবং টিকার সরবরাহ পর্যাপ্ত রয়েছে।

মাও নিং বলেছেন, মহামারির চ্যালেঞ্জ ভালোভাবে মোকাবিলার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে চীন সংহতি ও সহযোগিতা শক্তিশালী করবে। তবে টিকা নিতে আগ্রহী যে কারও চাহিদা পূরণে সক্ষম চীন।

এখন পর্যন্ত চীন নিজেদের দেশে উৎপাদিত টিকা ব্যবহার করে আসছে। এসব টিকা পশ্চিমা এমআরএনএ প্রযুক্তিতে তৈরি নয়।

গত মাসে জার্মানি ১১ হাজার ৫০০ বায়োএনটেকের উৎপাদিত টিকা চীনে পাঠিয়েছে দেশটিতে থাকা জার্মান কোম্পানি, দূতাবাস এবং কনস্যুলেটে কর্মরত জার্মান নাগরিদের জন্য।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

রাফায় অভিযান বন্ধে ইসরায়েলকে নির্দেশ আদালতের

চীনকে বিনামূল্যে কোভিড টিকা দিতে চায় ইইউ

আপডেট সময় ০৩:৪৪:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৩

চীনে ‘জিরো-কোভিড’ নীতি শিথিল করার পর সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পর দেশটিকে বিনামূল্যে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। মঙ্গলবার ইইউ কর্মকর্তা এই প্রস্তাবের কথা জানিয়েছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

ইউরোপীয় কমিশনের এক মুখপাত্র বলেছেন, ইইউ’র প্রস্তাবে এখন পর্যন্ত কোনও সাড়া দেয়নি চীন। তবে কী পরিমাণ টিকা দেওয়া হবে বা কোন কোম্পানির টিকা দেওয়া হবে তা সম্পর্কে নির্দিষ্ট কোনও তথ্য দেননি ওই মুখপাত্র।

মুখপাত্র বলেছেন, চীনে কোভিড পরিস্থিতির কারণে ইইউ’র স্বাস্থ্য কমিশনার স্টেলা কিরিয়াকাইডস চীনা কর্তৃপক্ষের কাছে সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছেন। এর মধ্যে সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে কার্যকর টিকাও রয়েছে।

ইইউ’র প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে কিনা জানতে চাইলে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মাও নিং সরাসরি জবাব দেননি। তিনি রয়টার্সকে বলেছেন, চীনের টিকাদানের হার ও চিকিৎসার সামর্থ্য দিন দিন বাড়ছে এবং টিকার সরবরাহ পর্যাপ্ত রয়েছে।

মাও নিং বলেছেন, মহামারির চ্যালেঞ্জ ভালোভাবে মোকাবিলার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে চীন সংহতি ও সহযোগিতা শক্তিশালী করবে। তবে টিকা নিতে আগ্রহী যে কারও চাহিদা পূরণে সক্ষম চীন।

এখন পর্যন্ত চীন নিজেদের দেশে উৎপাদিত টিকা ব্যবহার করে আসছে। এসব টিকা পশ্চিমা এমআরএনএ প্রযুক্তিতে তৈরি নয়।

গত মাসে জার্মানি ১১ হাজার ৫০০ বায়োএনটেকের উৎপাদিত টিকা চীনে পাঠিয়েছে দেশটিতে থাকা জার্মান কোম্পানি, দূতাবাস এবং কনস্যুলেটে কর্মরত জার্মান নাগরিদের জন্য।