ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাষাড়া জিয়া হলের জায়গায় ‘৬ দফা ভবন’ করার দাবি শামীম ওসমানের

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাড়ায় অবস্থিত জিয়া হলের জায়গায় ‘৬ দফা ভবন’ নামে নতুন ভবন করার দাবি জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সম্পূরক প্রশ্ন করতে গিয়ে তিনি এই দাবি জানান।

 

শামীম ওসমান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নারায়ণগঞ্জে গিয়ে ছয় দফা ঘোষণা করেছিলেন। সেখানে বালুর মাঠ নামে একটি মাঠ ছিল। এখানে ঘোষণা দেওয়ার পরে বঙ্গবন্ধু গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে ওই স্মৃতি ভুলিয়ে রাখতে নারায়ণগঞ্জ মিলনায়তন নামের একটি মিলনায়তন করেন। তাঁরা বাধা দিলেও ঠেকাতে পারেননি। পরে খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসে সেটাকে ‘জিয়া হল’ নাম দেন।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে শামীম ওসমান বলেন, তাঁরা চান জেলা পরিষদের মাধ্যমে ওই জায়গায় একটি ভবন হোক এবং এর নাম ‘৬ দফা ভবন’ রাখা হোক। এ বিষয়ে একটি চিঠি দেওয়া হলে মন্ত্রী দ্রুত কাজ সম্পন্ন করবেন কি না, তা জানতে চান তিনি।

 

জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত সব স্থান তাঁদের সবার কাছে স্পর্শকাতর ও মর্যাদার। কোনো বিষয়ে, কোথাও বঙ্গবন্ধুর প্রতি ন্যূনতম অসম্মান দেখা গেলে জাতি তা বরদাস্ত করবে না। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত জায়গাটিকে মর্যাদার জায়গায় নিতে জেলা পরিষদের যেকোনো পদক্ষেপে তিনি অগ্রণী ভূমিকা রাখবেন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

চাষাড়া জিয়া হলের জায়গায় ‘৬ দফা ভবন’ করার দাবি শামীম ওসমানের

আপডেট সময় ০৩:৪১:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাড়ায় অবস্থিত জিয়া হলের জায়গায় ‘৬ দফা ভবন’ নামে নতুন ভবন করার দাবি জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সম্পূরক প্রশ্ন করতে গিয়ে তিনি এই দাবি জানান।

 

শামীম ওসমান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নারায়ণগঞ্জে গিয়ে ছয় দফা ঘোষণা করেছিলেন। সেখানে বালুর মাঠ নামে একটি মাঠ ছিল। এখানে ঘোষণা দেওয়ার পরে বঙ্গবন্ধু গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে ওই স্মৃতি ভুলিয়ে রাখতে নারায়ণগঞ্জ মিলনায়তন নামের একটি মিলনায়তন করেন। তাঁরা বাধা দিলেও ঠেকাতে পারেননি। পরে খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসে সেটাকে ‘জিয়া হল’ নাম দেন।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে শামীম ওসমান বলেন, তাঁরা চান জেলা পরিষদের মাধ্যমে ওই জায়গায় একটি ভবন হোক এবং এর নাম ‘৬ দফা ভবন’ রাখা হোক। এ বিষয়ে একটি চিঠি দেওয়া হলে মন্ত্রী দ্রুত কাজ সম্পন্ন করবেন কি না, তা জানতে চান তিনি।

 

জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত সব স্থান তাঁদের সবার কাছে স্পর্শকাতর ও মর্যাদার। কোনো বিষয়ে, কোথাও বঙ্গবন্ধুর প্রতি ন্যূনতম অসম্মান দেখা গেলে জাতি তা বরদাস্ত করবে না। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত জায়গাটিকে মর্যাদার জায়গায় নিতে জেলা পরিষদের যেকোনো পদক্ষেপে তিনি অগ্রণী ভূমিকা রাখবেন।