ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গিনদোয়ান নৈপুন্যে শিরোপার পথে সিটির আরও একধাপ

টানা জয়ের মধ্যে থাকা সিটি জয় পেয়েছে শনিবার রাতেও। ইত্তেহাদ স্টেডিয়ামে লিডস ইউনাইটেডের প্রিমিয়ার লীগের ম্যাচটি ২-১ ব্যবধানে জিতেছে।সিটির দুইটি গোলই এসেছে ইলকাই গিনদোয়ানদের পা থেকে। শেষদিকে নেওয়া স্পটকিক পোস্টে না আটকালে হ্যাট্রিকও পেয়ে যেতে পারতেন সিটির এই জার্মান মিডফিল্ডার। শেষ দিকে লিডসের হয়ে ব্যবধান কমানো গোলটি করেন রদ্রিগো মোরেনো।

দুর্দান্ত ফর্মে থাকা সিটি ঘরের মাঠে ম্যাচের শুরু থেকে দেখিয়েছে আধিপত্য।প্রথমার্ধে ৮০ শতাংশের বেশি সময় বল দখলে স্বাগতিকেরা ম্যাচের ৩০ মিনিটের ভেতর পেয়ে যায় দুইটি গোলই।১৯ তম মিনিটে ডান দিক দিয়ে মাহরেজের বাড়ানো পাসে নিখুঁত ফিনিশে সিটিকে লিড এনে দেন গিনদোয়ান।আট মিনিট পরে আসা সিটির দ্বিতীয় গোলের কুশীলবও এই দুজনই।ফের মাহেরেজের এসিস্টে,গিনদোয়ানের গোল।

২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় সিটি। গত ম্যাচে প্রিমিয়ার লিগ ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড করা হল্যান্ডের সামনে সুযোগ এসেছিল দ্বিতীয় অধ্যায়ের শুরুতেই ম্যাচের নিয়তি পুরোপুরি ঠিক করে দেওয়ার। ৫৩ তম মিনিটে আলভারেসের ক্রসে লাফিয়ে গোলরক্ষক বরাবর তার নেওয়া হেড জাল খুজে পায়নি। ৬২তম মিনিটে সিটি স্ট্রাইকারের নেওয়া নিচু শট পোস্টে বাধা পায়।

৮৩ তম মিনিটে ফোডেন প্রতিপক্ষের ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় সিটি।কিন্তু স্পট কিকে পোস্টে মেরে হ্যাটট্রিকের সুযোগ হারান গিনদোয়ান।এর মিনিট খানেক পরেই মোরেনোর গোলে ম্যাচ জমিয়ে তোলে।তবে তবে শেষ দিকে জমাট রক্ষণে লিড ধরে রেখে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে স্বাগতিক সিটি।

এই শিরোপার পথ আরো মসৃণ হলো পেপ গার্দিওলার শিষ্যদের।৩৪ ম্যাচে ২৬ জয় ও ৪ ড্রয়ে সিটির পয়েন্ট এখন ৮২। সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে আর্সেনাল।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

গিনদোয়ান নৈপুন্যে শিরোপার পথে সিটির আরও একধাপ

আপডেট সময় ০৪:১৯:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ মে ২০২৩

টানা জয়ের মধ্যে থাকা সিটি জয় পেয়েছে শনিবার রাতেও। ইত্তেহাদ স্টেডিয়ামে লিডস ইউনাইটেডের প্রিমিয়ার লীগের ম্যাচটি ২-১ ব্যবধানে জিতেছে।সিটির দুইটি গোলই এসেছে ইলকাই গিনদোয়ানদের পা থেকে। শেষদিকে নেওয়া স্পটকিক পোস্টে না আটকালে হ্যাট্রিকও পেয়ে যেতে পারতেন সিটির এই জার্মান মিডফিল্ডার। শেষ দিকে লিডসের হয়ে ব্যবধান কমানো গোলটি করেন রদ্রিগো মোরেনো।

দুর্দান্ত ফর্মে থাকা সিটি ঘরের মাঠে ম্যাচের শুরু থেকে দেখিয়েছে আধিপত্য।প্রথমার্ধে ৮০ শতাংশের বেশি সময় বল দখলে স্বাগতিকেরা ম্যাচের ৩০ মিনিটের ভেতর পেয়ে যায় দুইটি গোলই।১৯ তম মিনিটে ডান দিক দিয়ে মাহরেজের বাড়ানো পাসে নিখুঁত ফিনিশে সিটিকে লিড এনে দেন গিনদোয়ান।আট মিনিট পরে আসা সিটির দ্বিতীয় গোলের কুশীলবও এই দুজনই।ফের মাহেরেজের এসিস্টে,গিনদোয়ানের গোল।

২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় সিটি। গত ম্যাচে প্রিমিয়ার লিগ ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড করা হল্যান্ডের সামনে সুযোগ এসেছিল দ্বিতীয় অধ্যায়ের শুরুতেই ম্যাচের নিয়তি পুরোপুরি ঠিক করে দেওয়ার। ৫৩ তম মিনিটে আলভারেসের ক্রসে লাফিয়ে গোলরক্ষক বরাবর তার নেওয়া হেড জাল খুজে পায়নি। ৬২তম মিনিটে সিটি স্ট্রাইকারের নেওয়া নিচু শট পোস্টে বাধা পায়।

৮৩ তম মিনিটে ফোডেন প্রতিপক্ষের ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় সিটি।কিন্তু স্পট কিকে পোস্টে মেরে হ্যাটট্রিকের সুযোগ হারান গিনদোয়ান।এর মিনিট খানেক পরেই মোরেনোর গোলে ম্যাচ জমিয়ে তোলে।তবে তবে শেষ দিকে জমাট রক্ষণে লিড ধরে রেখে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে স্বাগতিক সিটি।

এই শিরোপার পথ আরো মসৃণ হলো পেপ গার্দিওলার শিষ্যদের।৩৪ ম্যাচে ২৬ জয় ও ৪ ড্রয়ে সিটির পয়েন্ট এখন ৮২। সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে আর্সেনাল।