ঢাকা , বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী Logo ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতির প্রভাব কী হতে পারে? Logo মায়ের ওড়না শাড়ি বানিয়ে পরলেন জেফার, দেখালেন চমক Logo পরিবারসহ বেনজীরের আরও ১১৩ স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ Logo হায়দরাবাদকে গুঁড়িয়ে, উড়িয়ে কলকাতা চ্যাম্পিয়ন Logo ফতুল্লায় রহিম হাজী ও সামেদ আলীর গ্রুপে সংঘর্ষ, ভাংচুর, আহত ১৫ Logo সোনারগাঁয়ে নির্বাচন পরবর্তী প্রতিহিংসায় শতাধিক ফলজ গাছ কর্তন Logo মুছাপুরে স্বর্ণকার অজিতের প্রেমের ফাঁদে সর্বশান্ত প্রবাসী নারী Logo বন্দরে বিভিন্ন মামলার ২ সাঁজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার Logo নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় অন্ত:সত্তা নারীর মৃত্যু, চালক আটক

ক্লাসেন-ওয়াশিংটন ঝড় থামিয়ে দিল্লির রোমাঞ্চকর জয়

মাঝারি সংগ্রহ নিয়েও বোলারদের নৈপুণ্যে দারুণ জয় তুলে নিল দিল্লি ক্যাপিটালস। শেষ ওভারে গড়ানো ম্যাচটিতে লক্ষ্য তাড়ায় নেমে যতক্ষণ হেনরিখ ক্লাসেন ও ওয়াশিংটন সুন্দর ছিলেন, ততক্ষণ জয়ের স্বপ্ন দেখছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

কিন্তু অক্ষর প্যাটেল ও কুলদিপ যাদবের দুর্দান্ত বোলিংয়ে হায়দরাবাদের স্বপ্ন ভাঙে। টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নেয় দিল্লি।
আজ রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১৪৫ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় দিল্লি। পরে দলটির বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রান তুলে পারে হায়দরাবাদ। ফলে ৭ রানে ম্যাচ জিতে নেয় দিল্লি।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৮৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে হায়দরাবাদ। সেখান থেকে ক্লাসেন ও ওয়াশিংটন মিলে ২৬ বলে গড়েন ৪১ রানের জুটি। এই জুটিতেই আশা দেখছিল দলটি। ১৯তম ওভারের তৃতীয় বলে ক্লাসেন (৩১) বিদায় নিলে ভাঙে জুটি। এরপর সুন্দরের ব্যাটে কিছুটা ক্ষতি পুষিয়ে নেয় হায়দরাবাদ। কিন্তু শেষ ওভারে ১৩ রান দারুণভাবে ডিফেন্ড করেন দিল্লির পেসার মুকেশ কুমার। মাত্র ১টি বাউন্ডারি হজম করেন তিনি। খরচ করেন মাত্র ৫ রান। ১৫ রানে অপরাজিত থাকেন ওয়াশিংটন। দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৪৯ রান করেছেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল।

এর আগে দিল্লিও ব্যাটিংয়ে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। ম্যাচের প্রথম বলেই ভুবনেশ্বর কুমারের শিকার হয়ে ফেরেন দিল্লির ওপেনার ফিল সল্ট। এরপর দিল্লির রানের চাকার গতি কমে যায়। উইকেটও পড়ে নিয়মিত বিরতিতে। বিশেষ করে অষ্টম ওভারে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে ৩ উইকেট হারায় দিল্লি। ৬২ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা দলটি আর সেভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। সর্বোচ্চ ৩৪ রান করে করেছেন মনিশ পান্ডে ও অক্ষর প্যাটেল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৫ রান এসেছে মিচেল মার্শের ব্যাট থেকে।

৭ ম্যাচে মাত্র ২টি করে জয় পাওয়া হায়দরাবাদ ও দিল্লির অবস্থান পয়েন্ট টেবিলের একদম শেষে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী

ক্লাসেন-ওয়াশিংটন ঝড় থামিয়ে দিল্লির রোমাঞ্চকর জয়

আপডেট সময় ০৩:৩৬:০১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৩

মাঝারি সংগ্রহ নিয়েও বোলারদের নৈপুণ্যে দারুণ জয় তুলে নিল দিল্লি ক্যাপিটালস। শেষ ওভারে গড়ানো ম্যাচটিতে লক্ষ্য তাড়ায় নেমে যতক্ষণ হেনরিখ ক্লাসেন ও ওয়াশিংটন সুন্দর ছিলেন, ততক্ষণ জয়ের স্বপ্ন দেখছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

কিন্তু অক্ষর প্যাটেল ও কুলদিপ যাদবের দুর্দান্ত বোলিংয়ে হায়দরাবাদের স্বপ্ন ভাঙে। টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নেয় দিল্লি।
আজ রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১৪৫ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় দিল্লি। পরে দলটির বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রান তুলে পারে হায়দরাবাদ। ফলে ৭ রানে ম্যাচ জিতে নেয় দিল্লি।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৮৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে হায়দরাবাদ। সেখান থেকে ক্লাসেন ও ওয়াশিংটন মিলে ২৬ বলে গড়েন ৪১ রানের জুটি। এই জুটিতেই আশা দেখছিল দলটি। ১৯তম ওভারের তৃতীয় বলে ক্লাসেন (৩১) বিদায় নিলে ভাঙে জুটি। এরপর সুন্দরের ব্যাটে কিছুটা ক্ষতি পুষিয়ে নেয় হায়দরাবাদ। কিন্তু শেষ ওভারে ১৩ রান দারুণভাবে ডিফেন্ড করেন দিল্লির পেসার মুকেশ কুমার। মাত্র ১টি বাউন্ডারি হজম করেন তিনি। খরচ করেন মাত্র ৫ রান। ১৫ রানে অপরাজিত থাকেন ওয়াশিংটন। দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৪৯ রান করেছেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল।

এর আগে দিল্লিও ব্যাটিংয়ে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। ম্যাচের প্রথম বলেই ভুবনেশ্বর কুমারের শিকার হয়ে ফেরেন দিল্লির ওপেনার ফিল সল্ট। এরপর দিল্লির রানের চাকার গতি কমে যায়। উইকেটও পড়ে নিয়মিত বিরতিতে। বিশেষ করে অষ্টম ওভারে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে ৩ উইকেট হারায় দিল্লি। ৬২ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা দলটি আর সেভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। সর্বোচ্চ ৩৪ রান করে করেছেন মনিশ পান্ডে ও অক্ষর প্যাটেল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৫ রান এসেছে মিচেল মার্শের ব্যাট থেকে।

৭ ম্যাচে মাত্র ২টি করে জয় পাওয়া হায়দরাবাদ ও দিল্লির অবস্থান পয়েন্ট টেবিলের একদম শেষে।