ঢাকা , শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কিয়েভে জাতিসংঘ মহাসচিব

ইউক্রেনে রাশিয়ার চলা যুদ্ধের মধ্যে আবারও কিয়েভে সফরে এসেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের সম্পাদিত শস্য চুক্তি বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনার জন্য জেলেনস্কির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে কিয়েভে এসেছেন। গুতেরেসকে স্বাগত জানান ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট।

জাতিসংঘ মহাসচিব গুতেরেসের সঙ্গে আলোচনার পর জেলেনস্কি বলেন, উদ্যোগটি পুরো বিশ্বের জন্যই প্রয়োজন। গুতেরেসও বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা ও দামের ক্ষেত্রে চুক্তির গুরুত্বের ওপর জোর দেন।

সংবাদ সম্মেলনে জেলেনস্কি বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত হতে চাই, বিশ্বে কোনও ক্ষুধা নেই। আমাদের সাধারণ নীতি হল শস্য উদ্যোগ সম্প্রসারিত করা। আমরা চুক্তি দীর্ঘায়িত করার বিষয়টি উত্থাপন করেছি।’

বৈশ্বিক খাদ্য ঘাটতি দূর করতে কৃষ্ণ সাগরের বন্দর হতে ইউক্রেনীয় খাদ্যশস্য রফতানির চুক্তির মেয়াদ গত বছরের নভেম্বরে বাড়ানো হয়। খাদ্যশস্য রফতানির এই চুক্তি প্রথম স্বাক্ষর হয় গত বছরের জুলাইয়ে। এই চুক্তির আওতায় একটি সুরক্ষিত সামুদ্রিক করিডোর গড়ে তোলা হয়। যে করিডোর দিয়ে ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে দেশটির খাদ্যশস্য বিভিন্ন দেশে রফতানি করা হয়। যা বিশ্বের খাদ্য ঘাটতি মোকাবিলায় ভূমিকা রাখে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

কিয়েভে জাতিসংঘ মহাসচিব

আপডেট সময় ০৪:১৮:০৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ ২০২৩

ইউক্রেনে রাশিয়ার চলা যুদ্ধের মধ্যে আবারও কিয়েভে সফরে এসেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের সম্পাদিত শস্য চুক্তি বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনার জন্য জেলেনস্কির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে কিয়েভে এসেছেন। গুতেরেসকে স্বাগত জানান ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট।

জাতিসংঘ মহাসচিব গুতেরেসের সঙ্গে আলোচনার পর জেলেনস্কি বলেন, উদ্যোগটি পুরো বিশ্বের জন্যই প্রয়োজন। গুতেরেসও বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা ও দামের ক্ষেত্রে চুক্তির গুরুত্বের ওপর জোর দেন।

সংবাদ সম্মেলনে জেলেনস্কি বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত হতে চাই, বিশ্বে কোনও ক্ষুধা নেই। আমাদের সাধারণ নীতি হল শস্য উদ্যোগ সম্প্রসারিত করা। আমরা চুক্তি দীর্ঘায়িত করার বিষয়টি উত্থাপন করেছি।’

বৈশ্বিক খাদ্য ঘাটতি দূর করতে কৃষ্ণ সাগরের বন্দর হতে ইউক্রেনীয় খাদ্যশস্য রফতানির চুক্তির মেয়াদ গত বছরের নভেম্বরে বাড়ানো হয়। খাদ্যশস্য রফতানির এই চুক্তি প্রথম স্বাক্ষর হয় গত বছরের জুলাইয়ে। এই চুক্তির আওতায় একটি সুরক্ষিত সামুদ্রিক করিডোর গড়ে তোলা হয়। যে করিডোর দিয়ে ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে দেশটির খাদ্যশস্য বিভিন্ন দেশে রফতানি করা হয়। যা বিশ্বের খাদ্য ঘাটতি মোকাবিলায় ভূমিকা রাখে।