ঢাকা , সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার Logo আড়াইহাজারে রেস্টুরেন্ট থেকে অপত্তিকর অবস্থায় ১৬ কিশোর কিশোরী আটক Logo সোনারগাঁয়ে ট্রাক চাপায় যুবক নিহত, চালক আটক Logo সোনারগাঁয়ের আলোচিত সাধন মিয়া হত্যা মামলায় দুইজনের মৃত্যুদন্ড ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড Logo বন্দর ১নং খেয়াঘাট মাঝি সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন Logo আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে মাকসুদ চেয়ারম্যান’র মত বিনিময় সভা ও উঠান বৈঠক Logo না’গঞ্জ জেলা জা’পা সভাপতি সানুর নাম ভাঙ্গিয়ে সুমন প্রধানের অপকর্ম রুখবে কে? Logo হুথিদের হামলায় লোহিত সাগরে ডুবে গেল সেই জাহাজ Logo রাতের লাইভের নেপথ্যের কারণ জানালেন তাহসান-ফারিণ Logo যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

কমলা হ্যারিসের স্বামীর ঠোঁটে চুমু বাইডেনপত্নী জিলের! ভিডিও ঘিরে হইচই

জো বাইডেনপত্নী তথা আমেরিকার ফার্স্ট লেডি চুমু খেলেন দেশের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের স্বামীর ঠোঁটে! হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেই মুহূর্তের ভিডিওটি। যা নিয়ে রীতিমতো হইচই পড়ে গিয়েছে।

মঙ্গলবার ক্যাপিটল হলে জোপত্নী জিল বাইডেনের সঙ্গে দেখা হয় আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের স্বামী ডগলাস এমহফের। ভাষণ শুরুর আগেই পরস্পরের সঙ্গে সৌজন্য বার্তা করেন তাঁরা। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একে অপরকে প্রথমে আলিঙ্গন করেন তারা। তারপরই ঠোঁটে ঠেকে যায় পরস্পরের ঠোঁট। পাশ্চাত্য সংস্কৃতিতে চুম্বন দিয়ে সৌজন্য দেখানো পুরনো রীতি। কিন্তু সাধারণত কোনও মহিলা ও পুরুষের সাক্ষাতের ক্ষেত্রে হাতে কিংবা গালে চুমু খাওয়া হয়। তবে এক্ষেত্রে জিল একেবারে ডগলাসের ঠোঁটেই চুমু খেলেন। আর তা নিয়েই শোলগোল নেটদুনিয়ায়।

অনেকেই প্রশ্ন তোলেন, কমলা হ্যারিসের স্বামীকে কেন ঠোঁটেই চুমু খেলেন জিল বাইডেন? কেউ কেউ আবার বলছেন, জো বাইডেনের স্ত্রীর থেকে এমনটা প্রত্যাশিত ছিল না। অনেকে আবার আরও একবার এগিয়ে বলছেন, মহামারী থেকে সুরক্ষিত থাকতে এখনও প্রায় সকলেই মাস্ক পরছেন। তাহলে তারা কেন পরেননি? সব মিলিয়ে জিল বাইডেন ও ডগলাস এমহফকে নিয়ে জোর চর্চা চলছে ভারচুয়াল দুনিয়ায়।

গতকাল মঙ্গলবার দ্বিতীয়বার স্টেট অফ দ্য ইউনিয়নের ভাষণ দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যেখানে তিনি রাজনৈতিক ভাবে বিভক্ত মার্কিন কংগ্রেসকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। ভাষণে নিজের প্রশাসনের নানা সাফল্যের কথা তুলে ধরেন তিনি। অর্থনীতি থেকে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কর্মসংস্থানের প্রসঙ্গ উঠে আসে তার ভাষণে। তার এই ভাষণকে ২০২৪-এর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বিতার রূপরেখা হিসেবে দেখা হচ্ছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

কমলা হ্যারিসের স্বামীর ঠোঁটে চুমু বাইডেনপত্নী জিলের! ভিডিও ঘিরে হইচই

আপডেট সময় ০৩:৪৮:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

জো বাইডেনপত্নী তথা আমেরিকার ফার্স্ট লেডি চুমু খেলেন দেশের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের স্বামীর ঠোঁটে! হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেই মুহূর্তের ভিডিওটি। যা নিয়ে রীতিমতো হইচই পড়ে গিয়েছে।

মঙ্গলবার ক্যাপিটল হলে জোপত্নী জিল বাইডেনের সঙ্গে দেখা হয় আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের স্বামী ডগলাস এমহফের। ভাষণ শুরুর আগেই পরস্পরের সঙ্গে সৌজন্য বার্তা করেন তাঁরা। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একে অপরকে প্রথমে আলিঙ্গন করেন তারা। তারপরই ঠোঁটে ঠেকে যায় পরস্পরের ঠোঁট। পাশ্চাত্য সংস্কৃতিতে চুম্বন দিয়ে সৌজন্য দেখানো পুরনো রীতি। কিন্তু সাধারণত কোনও মহিলা ও পুরুষের সাক্ষাতের ক্ষেত্রে হাতে কিংবা গালে চুমু খাওয়া হয়। তবে এক্ষেত্রে জিল একেবারে ডগলাসের ঠোঁটেই চুমু খেলেন। আর তা নিয়েই শোলগোল নেটদুনিয়ায়।

অনেকেই প্রশ্ন তোলেন, কমলা হ্যারিসের স্বামীকে কেন ঠোঁটেই চুমু খেলেন জিল বাইডেন? কেউ কেউ আবার বলছেন, জো বাইডেনের স্ত্রীর থেকে এমনটা প্রত্যাশিত ছিল না। অনেকে আবার আরও একবার এগিয়ে বলছেন, মহামারী থেকে সুরক্ষিত থাকতে এখনও প্রায় সকলেই মাস্ক পরছেন। তাহলে তারা কেন পরেননি? সব মিলিয়ে জিল বাইডেন ও ডগলাস এমহফকে নিয়ে জোর চর্চা চলছে ভারচুয়াল দুনিয়ায়।

গতকাল মঙ্গলবার দ্বিতীয়বার স্টেট অফ দ্য ইউনিয়নের ভাষণ দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যেখানে তিনি রাজনৈতিক ভাবে বিভক্ত মার্কিন কংগ্রেসকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। ভাষণে নিজের প্রশাসনের নানা সাফল্যের কথা তুলে ধরেন তিনি। অর্থনীতি থেকে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কর্মসংস্থানের প্রসঙ্গ উঠে আসে তার ভাষণে। তার এই ভাষণকে ২০২৪-এর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বিতার রূপরেখা হিসেবে দেখা হচ্ছে।