ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী Logo ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতির প্রভাব কী হতে পারে? Logo মায়ের ওড়না শাড়ি বানিয়ে পরলেন জেফার, দেখালেন চমক Logo পরিবারসহ বেনজীরের আরও ১১৩ স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ Logo হায়দরাবাদকে গুঁড়িয়ে, উড়িয়ে কলকাতা চ্যাম্পিয়ন Logo ফতুল্লায় রহিম হাজী ও সামেদ আলীর গ্রুপে সংঘর্ষ, ভাংচুর, আহত ১৫ Logo সোনারগাঁয়ে নির্বাচন পরবর্তী প্রতিহিংসায় শতাধিক ফলজ গাছ কর্তন Logo মুছাপুরে স্বর্ণকার অজিতের প্রেমের ফাঁদে সর্বশান্ত প্রবাসী নারী Logo বন্দরে বিভিন্ন মামলার ২ সাঁজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার Logo নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় অন্ত:সত্তা নারীর মৃত্যু, চালক আটক

এবার ‘পাঠান’ নিয়ে যে মন্তব্য করলেন কঙ্গনা

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতেই আবার একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্য করে চলেছেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। না দেখেই ‘পাঠান’নিয়ে মন্তব্য করেছেন তিনি।

তার দাবি ছিল, ছবিটি নিয়ে অহেতুক মাতামাতি হচ্ছে। বক্স অফিসে কত আয় হল তা দিয়ে ছবির গুণাগুণ বিচার হচ্ছে। যদিও ছবিটি দেখার পর অন্য সুর গাইলেন কঙ্গনা। তার মতে, গত দশ বছরে এটিই শাহরুখের সেরা ছবি।

যারা বলেন, পাঠানের বক্স অফিস সাফল্য ‘ঘৃণার ঊর্ধ্বে উঠে ভালবাসার জয়’— শুরুতে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলেছিলেন কঙ্গনা। তার পর যখন দেখা গেল, এত বিতর্কের মধ্যেও বয়কটের আহ্বান পিছনে ফেলে প্রেক্ষাগৃহে দর্শকের ঢল নামিয়েছে ছবিটি, সেই ইতিবাচক দিকে আলোকপাত করে কঙ্গনা বললেন, দেশবাসীর মনোযোগ আকর্ষণ করে ভালবাসা পেয়েছে পাঠান।

কঙ্গনার পোস্টের প্রতিক্রিয়ায় এক ব্যক্তি মনে করিয়ে দিতে চান, কঙ্গনা অভিনীত শেষ ছবি ‘ধাকড়’ প্রথম দিনে মাত্র ৫৫ লাখ রুপি আয় করেছে এবং ছবির মূল সংগ্রহ ২.৫৮ কোটি রুপি। যদিও পাঠান প্রথম দিনেই আয় করেছে ১০০ কোটি রুপির বেশি। এর চেয়ে হতাশাজনক আর কিছুই নয়।

এই মন্তব্যের জবাবে কঙ্গনা বলেন, হ্যাঁ, ধাকড় ঐতিহাসিক ব্যর্থতার নজির, আমি কখনও সেটা অস্বীকার করেছি? বরং ‘পাঠান’ গত দশ বছরে শাহরুখের প্রথম সফল ছবি, আমরাও তার থেকে অনুপ্রেরণা পেলাম। আমি আশা করি আমরাও একই রকম সুযোগ পাব যা দেশ তাকে দিয়েছে। এত কিছুর পরেও ভারত মহান, উদার, জয় শ্রী রাম।

কঙ্গনা এরপর প্রশ্ন তোলেন, কার ঘৃণা আর কার ভালবাসা? যারা দাবি করছেন ‘পাঠান’ ঘৃণাকে হারিয়ে দিয়ে ভালবাসা পেয়েছে, তাদের উদ্দেশেই প্রশ্নটি রাখেন অভিনেত্রী তথা পরিচালক। তার কথায়, খেয়াল করুন ভারতীয়রা টিকিট কেটে দেখছেন। ভারতবাসীর ভালবাসা। যাদের মধ্যে ৮০ শতাংশই হিন্দু। তরাই ‘পাঠান’ দেখছেন। এর অর্থ, দেশ এখনো ধর্মসহিষ্ণুই আছে। জয় যার হয়েছে সে হল ভারতবাসীর ভালবাসার।

কঙ্গনা আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি, ভারতীয় মুসলিমরা দেশপ্রেমী। আফগানিস্তানের পাঠানদের মতো নন। তাই ভারত কখনও আফগানিস্তান হবে না। পাঠানের যে চরিত্র এই সিনেমায় রয়েছে, সেও ভারতীয় মুসলিম। চিত্রনাট্য তাই বলছে।

সবশেষে কঙ্গনা আরও একবার স্বীকার করে নেন যে, ‘পাঠান’ অত্যন্ত ভালভাবে চলছে। হিন্দি ছবির মন্দার দিনে এমন কাজ আরও হওয়া দরকার।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী

এবার ‘পাঠান’ নিয়ে যে মন্তব্য করলেন কঙ্গনা

আপডেট সময় ০৪:২৫:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতেই আবার একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্য করে চলেছেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। না দেখেই ‘পাঠান’নিয়ে মন্তব্য করেছেন তিনি।

তার দাবি ছিল, ছবিটি নিয়ে অহেতুক মাতামাতি হচ্ছে। বক্স অফিসে কত আয় হল তা দিয়ে ছবির গুণাগুণ বিচার হচ্ছে। যদিও ছবিটি দেখার পর অন্য সুর গাইলেন কঙ্গনা। তার মতে, গত দশ বছরে এটিই শাহরুখের সেরা ছবি।

যারা বলেন, পাঠানের বক্স অফিস সাফল্য ‘ঘৃণার ঊর্ধ্বে উঠে ভালবাসার জয়’— শুরুতে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলেছিলেন কঙ্গনা। তার পর যখন দেখা গেল, এত বিতর্কের মধ্যেও বয়কটের আহ্বান পিছনে ফেলে প্রেক্ষাগৃহে দর্শকের ঢল নামিয়েছে ছবিটি, সেই ইতিবাচক দিকে আলোকপাত করে কঙ্গনা বললেন, দেশবাসীর মনোযোগ আকর্ষণ করে ভালবাসা পেয়েছে পাঠান।

কঙ্গনার পোস্টের প্রতিক্রিয়ায় এক ব্যক্তি মনে করিয়ে দিতে চান, কঙ্গনা অভিনীত শেষ ছবি ‘ধাকড়’ প্রথম দিনে মাত্র ৫৫ লাখ রুপি আয় করেছে এবং ছবির মূল সংগ্রহ ২.৫৮ কোটি রুপি। যদিও পাঠান প্রথম দিনেই আয় করেছে ১০০ কোটি রুপির বেশি। এর চেয়ে হতাশাজনক আর কিছুই নয়।

এই মন্তব্যের জবাবে কঙ্গনা বলেন, হ্যাঁ, ধাকড় ঐতিহাসিক ব্যর্থতার নজির, আমি কখনও সেটা অস্বীকার করেছি? বরং ‘পাঠান’ গত দশ বছরে শাহরুখের প্রথম সফল ছবি, আমরাও তার থেকে অনুপ্রেরণা পেলাম। আমি আশা করি আমরাও একই রকম সুযোগ পাব যা দেশ তাকে দিয়েছে। এত কিছুর পরেও ভারত মহান, উদার, জয় শ্রী রাম।

কঙ্গনা এরপর প্রশ্ন তোলেন, কার ঘৃণা আর কার ভালবাসা? যারা দাবি করছেন ‘পাঠান’ ঘৃণাকে হারিয়ে দিয়ে ভালবাসা পেয়েছে, তাদের উদ্দেশেই প্রশ্নটি রাখেন অভিনেত্রী তথা পরিচালক। তার কথায়, খেয়াল করুন ভারতীয়রা টিকিট কেটে দেখছেন। ভারতবাসীর ভালবাসা। যাদের মধ্যে ৮০ শতাংশই হিন্দু। তরাই ‘পাঠান’ দেখছেন। এর অর্থ, দেশ এখনো ধর্মসহিষ্ণুই আছে। জয় যার হয়েছে সে হল ভারতবাসীর ভালবাসার।

কঙ্গনা আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি, ভারতীয় মুসলিমরা দেশপ্রেমী। আফগানিস্তানের পাঠানদের মতো নন। তাই ভারত কখনও আফগানিস্তান হবে না। পাঠানের যে চরিত্র এই সিনেমায় রয়েছে, সেও ভারতীয় মুসলিম। চিত্রনাট্য তাই বলছে।

সবশেষে কঙ্গনা আরও একবার স্বীকার করে নেন যে, ‘পাঠান’ অত্যন্ত ভালভাবে চলছে। হিন্দি ছবির মন্দার দিনে এমন কাজ আরও হওয়া দরকার।