ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী Logo ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতির প্রভাব কী হতে পারে? Logo মায়ের ওড়না শাড়ি বানিয়ে পরলেন জেফার, দেখালেন চমক Logo পরিবারসহ বেনজীরের আরও ১১৩ স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ Logo হায়দরাবাদকে গুঁড়িয়ে, উড়িয়ে কলকাতা চ্যাম্পিয়ন Logo ফতুল্লায় রহিম হাজী ও সামেদ আলীর গ্রুপে সংঘর্ষ, ভাংচুর, আহত ১৫ Logo সোনারগাঁয়ে নির্বাচন পরবর্তী প্রতিহিংসায় শতাধিক ফলজ গাছ কর্তন Logo মুছাপুরে স্বর্ণকার অজিতের প্রেমের ফাঁদে সর্বশান্ত প্রবাসী নারী Logo বন্দরে বিভিন্ন মামলার ২ সাঁজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার Logo নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় অন্ত:সত্তা নারীর মৃত্যু, চালক আটক

ইতিহাসের অন্যতম আবেদনময়ী অভিনেত্রীর মৃত্যু

সিনেমা ও টিভি পর্দায় তিনি রূপ-শরীরের আবেদন ফুটিয়ে ঝড় তুলেছিলেন দর্শকের হৃদয়ে। এজন্য তাকে বিবেচনা করা হয় ইতিহাসের অন্যতম আবেদনময়ী অভিনেত্রী হিসেবে। প্লেবয় ম্যাগাজিন অনুসারে, বিংশ শতকের সবচেয়ে আবেদনময়ী ১০০ তারকার মধ্যে তৃতীয় তিনি।

বলা হচ্ছে মার্কিন অভিনেত্রী রুকেল ওয়েলচের কথা। ঝলমলে ক্যারিয়ার আর জীবনে ইতি টেনে তিনি চলে গেছেন না ফেরার দেশে। বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রীর ম্যানেজার। তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

রুকেল ওয়েলচের মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে তেমন কিছু জানানো হয়নি। কেবল বলা হয়েছে, তিনি অসুস্থ ছিলেন।

১৯৬০-এর দশকে বিশ্বজুড়ে ‘সেক্স সিম্বল’ হিসেবে খ্যাতি পান রুকেল ওয়েলচ। ১৯৬৬ সালে মুক্তি পাওয়া ‘ওয়ান মিলিয়ন ইয়ারস বি.সি.’ সিনেমায় বিকিনি পরে অভিনয়ের সুবাদে তার জনপ্রিয়তার উত্থান হয়। অ্যাকশন সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রগুলোতে অভিনয় করে তিনি ষাট ও সত্তর দশকে হলিউডের আইকনিক অভিনেত্রীতে পরিণত হন।

রুকেল ওয়েলচের জন্ম ১৯৪০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে। তার পুরো নাম জো রুকেল ওয়েলচ। বেড়ে উঠেছেন ক্যালিফোর্নিয়ায়। ছোটবেলাতেই তিনি বিনোদন জগতে কাজের স্বপ্ন দেখেন। সেজন্য তিনি ব্যালে নাচের প্রশিক্ষণ নেন।

১৯৫৮ সালে তিনি গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেন এবং থিয়েটার স্কলারশিপ নিয়ে ভর্তি হন স্যান দিয়েগো স্টেট কলেজে। ওই সময়ে স্থানীয় কিছু মঞ্চনাটকে কাজ করেন রুকেল। এর ফাঁকে ১৯৫৯ সালে তিনি স্কুলজীবনের প্রেমিক জেমস ওয়েলচকে বিয়ে করেন। কিন্তু সেই সংসার মাত্র পাঁচ বছর টিকেছিল।

ডিভোর্সের পর দুই সন্তানকে নিয়ে প্রথমে ডালাসে, এরপর লস অ্যাঞ্জেলসে স্থানান্তর হন রুকেল। শুরু করেন মডেলিং ক্যারিয়ার। শারীরিক আবেদনকে উপজীব্য করেই এগোতে থাকেন তিনি। ১৯৬৪ সালে ‘আ হাউজ ইজ নট আ হোম’ সিনেমার মাধ্যমে তার বড় পর্দার জীবন শুরু হয়।

ক্যারিয়ারে মোট ৩৮টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন রুকেল ওয়েলচ। এছাড়া অন্তত ৫০টি টিভি সিরিজে দেখা গেছে তাকে। ১৯৭৪ সালে ‘দ্য থ্রি মাসকেটার্স’ সিনেমার জন্য গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন রুকেল। ব্রিটিশ ম্যাগাজিন অ্যাম্পায়ার-এর জরিপে ‘ইতিহাসের সবচেয়ে আবেদনময়ী ১০০ তারকা’র তালিকায় তিনি অন্যতম।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সরকার তারেককে ফিরিয়ে এনে অবশ্যই আদালতের রায় কার্যকর করবে : প্রধানমন্ত্রী

ইতিহাসের অন্যতম আবেদনময়ী অভিনেত্রীর মৃত্যু

আপডেট সময় ০৪:৩৭:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

সিনেমা ও টিভি পর্দায় তিনি রূপ-শরীরের আবেদন ফুটিয়ে ঝড় তুলেছিলেন দর্শকের হৃদয়ে। এজন্য তাকে বিবেচনা করা হয় ইতিহাসের অন্যতম আবেদনময়ী অভিনেত্রী হিসেবে। প্লেবয় ম্যাগাজিন অনুসারে, বিংশ শতকের সবচেয়ে আবেদনময়ী ১০০ তারকার মধ্যে তৃতীয় তিনি।

বলা হচ্ছে মার্কিন অভিনেত্রী রুকেল ওয়েলচের কথা। ঝলমলে ক্যারিয়ার আর জীবনে ইতি টেনে তিনি চলে গেছেন না ফেরার দেশে। বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রীর ম্যানেজার। তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

রুকেল ওয়েলচের মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে তেমন কিছু জানানো হয়নি। কেবল বলা হয়েছে, তিনি অসুস্থ ছিলেন।

১৯৬০-এর দশকে বিশ্বজুড়ে ‘সেক্স সিম্বল’ হিসেবে খ্যাতি পান রুকেল ওয়েলচ। ১৯৬৬ সালে মুক্তি পাওয়া ‘ওয়ান মিলিয়ন ইয়ারস বি.সি.’ সিনেমায় বিকিনি পরে অভিনয়ের সুবাদে তার জনপ্রিয়তার উত্থান হয়। অ্যাকশন সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রগুলোতে অভিনয় করে তিনি ষাট ও সত্তর দশকে হলিউডের আইকনিক অভিনেত্রীতে পরিণত হন।

রুকেল ওয়েলচের জন্ম ১৯৪০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে। তার পুরো নাম জো রুকেল ওয়েলচ। বেড়ে উঠেছেন ক্যালিফোর্নিয়ায়। ছোটবেলাতেই তিনি বিনোদন জগতে কাজের স্বপ্ন দেখেন। সেজন্য তিনি ব্যালে নাচের প্রশিক্ষণ নেন।

১৯৫৮ সালে তিনি গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেন এবং থিয়েটার স্কলারশিপ নিয়ে ভর্তি হন স্যান দিয়েগো স্টেট কলেজে। ওই সময়ে স্থানীয় কিছু মঞ্চনাটকে কাজ করেন রুকেল। এর ফাঁকে ১৯৫৯ সালে তিনি স্কুলজীবনের প্রেমিক জেমস ওয়েলচকে বিয়ে করেন। কিন্তু সেই সংসার মাত্র পাঁচ বছর টিকেছিল।

ডিভোর্সের পর দুই সন্তানকে নিয়ে প্রথমে ডালাসে, এরপর লস অ্যাঞ্জেলসে স্থানান্তর হন রুকেল। শুরু করেন মডেলিং ক্যারিয়ার। শারীরিক আবেদনকে উপজীব্য করেই এগোতে থাকেন তিনি। ১৯৬৪ সালে ‘আ হাউজ ইজ নট আ হোম’ সিনেমার মাধ্যমে তার বড় পর্দার জীবন শুরু হয়।

ক্যারিয়ারে মোট ৩৮টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন রুকেল ওয়েলচ। এছাড়া অন্তত ৫০টি টিভি সিরিজে দেখা গেছে তাকে। ১৯৭৪ সালে ‘দ্য থ্রি মাসকেটার্স’ সিনেমার জন্য গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন রুকেল। ব্রিটিশ ম্যাগাজিন অ্যাম্পায়ার-এর জরিপে ‘ইতিহাসের সবচেয়ে আবেদনময়ী ১০০ তারকা’র তালিকায় তিনি অন্যতম।