ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইংরেজিসহ বিদেশী ভাষা নিষিদ্ধ করছে ইতালি

ইতালিতে দাপ্তরিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে বা সরকারি কোন ক্ষেত্রে ইংরেজি বা অন্য কোনো ভাষার শব্দ নিষিদ্ধ করেছে সরকার। এ ক্ষেত্রে ইতালীয় ভাষার পরিবর্তে বিদেশি শব্দ ব্যবহার করা হলে ঊর্ধ্বে ১ লাখ ইউরো (১ লাখ ৮ হাজার ৭০৫ মার্কিন ডলার) পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। এই বিধানসহ একটি নতুন আইন পাস করতে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনির দল ব্রাদার্স অব ইতালি। আজ রোববার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে এ বিষয়টি প্রকাশ করেছে।
জানা গেছে ইতালির আইনপ্রণেতা ফাবিও রামপেল্লি এই আইনের খসড়া উত্থাপন করবেন এবং প্রধানমন্ত্রী মেলোনি এ আইনে সমর্থন জানাবেন।
যদিও সমস্ত বিদেশি ভাষার ব্যবহারকে উদ্দেশ্য করেই আইনের খসড়া তৈরি করা হলেও ‘অ্যাংলোম্যানিয়া’ বা ইংরেজি শব্দের ব্যবহারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে বিশেষভাবে। খসড়ায় বলা হয়েছে, ইংরেজি শব্দের ব্যবহার ইতালীয় ভাষার জন্য ‘অপমানজনক এবং ক্ষতিকর’। এই ভাষার ব্যবহার এখন আরোই অনুচিত, কারণ যুক্তরাজ্য এখন আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) অংশ নয়।
এই খসড়া বিলে আরও প্রস্তাব রাখা হয়েছে, যারা জনপ্রশাসন সংক্রান্ত কার্যালয়ের প্রধান হবেন, তাদেরকে অবশ্যই ‘ইতালীয় ভাষায় লেখা ও কথা বলায় দক্ষ’ হতে হবে। এতে আনুষ্ঠানিক নথিতে ইংরেজির ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলা হয়েছে। প্রস্তাবিত বিলটি সংসদীয় বিতর্কের জন্য শিগগিরিই সংসদে উত্থাপিত হতে পারে।

 

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

ইংরেজিসহ বিদেশী ভাষা নিষিদ্ধ করছে ইতালি

আপডেট সময় ০৪:১৪:৩৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ এপ্রিল ২০২৩

ইতালিতে দাপ্তরিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে বা সরকারি কোন ক্ষেত্রে ইংরেজি বা অন্য কোনো ভাষার শব্দ নিষিদ্ধ করেছে সরকার। এ ক্ষেত্রে ইতালীয় ভাষার পরিবর্তে বিদেশি শব্দ ব্যবহার করা হলে ঊর্ধ্বে ১ লাখ ইউরো (১ লাখ ৮ হাজার ৭০৫ মার্কিন ডলার) পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। এই বিধানসহ একটি নতুন আইন পাস করতে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনির দল ব্রাদার্স অব ইতালি। আজ রোববার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে এ বিষয়টি প্রকাশ করেছে।
জানা গেছে ইতালির আইনপ্রণেতা ফাবিও রামপেল্লি এই আইনের খসড়া উত্থাপন করবেন এবং প্রধানমন্ত্রী মেলোনি এ আইনে সমর্থন জানাবেন।
যদিও সমস্ত বিদেশি ভাষার ব্যবহারকে উদ্দেশ্য করেই আইনের খসড়া তৈরি করা হলেও ‘অ্যাংলোম্যানিয়া’ বা ইংরেজি শব্দের ব্যবহারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে বিশেষভাবে। খসড়ায় বলা হয়েছে, ইংরেজি শব্দের ব্যবহার ইতালীয় ভাষার জন্য ‘অপমানজনক এবং ক্ষতিকর’। এই ভাষার ব্যবহার এখন আরোই অনুচিত, কারণ যুক্তরাজ্য এখন আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) অংশ নয়।
এই খসড়া বিলে আরও প্রস্তাব রাখা হয়েছে, যারা জনপ্রশাসন সংক্রান্ত কার্যালয়ের প্রধান হবেন, তাদেরকে অবশ্যই ‘ইতালীয় ভাষায় লেখা ও কথা বলায় দক্ষ’ হতে হবে। এতে আনুষ্ঠানিক নথিতে ইংরেজির ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলা হয়েছে। প্রস্তাবিত বিলটি সংসদীয় বিতর্কের জন্য শিগগিরিই সংসদে উত্থাপিত হতে পারে।