ঢাকা , সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমেরিকা আমাদের সবচেয়ে বড় বন্ধু দেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এন্থনি ব্লিঙ্কেনের আমন্ত্রণে ওয়াশিংটন যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনা হবে আগামী ১০ এপ্রিল।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন মনে করেন, ‘উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রার সময়ে আমেরিকা বাংলাদেশকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে।’

বুধবার (৫ এপ্রিল) স্থানীয় এক হোটেলে অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমাকে দাওয়াত দিয়েছেন। আমি বলবো, আমরা ভাগ্যবান। কারণ আমেরিকান পররাষ্ট্রমন্ত্রী খুব একটা দাওয়াত দেন না, আমরা পরপর তিনবার পেলাম। আমাদের উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রার সময়ে আমেরিকা যথেষ্ঠ গুরুত্ব দিচ্ছে।’

আমেরিকা বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বন্ধু দেশ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তারা আমাদের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগকারী দেশ। তারা একক দেশ হিসেবে সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার। যখন কোভিড হয়েছিল, আমেরিকা একমাত্র দেশ; যারা আমাদের ১০ কোটির বেশি টিকা দিয়েছে, বিনা পয়সায় এবং দেশে পৌঁছে দিয়েছে। আমরা অন্য জায়গা থেকে কিনেছি বা যারা দান করেছে– তাদের ওখান থেকে আনতে হয়েছে…। এরফলে খুব দক্ষতার সঙ্গে আমরা কোভিড ব্যবস্থাপনা করতে পেরেছি।’

রোহিঙ্গাদের জন্য সবচেয়ে বেশি মানবিক সহায়তা দিয়েছে এবং দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অন্যান্য অনেক দেশ প্রথমে ভালো অর্থ দিলেও পরে কমিয়ে ফেলেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমেরিকা একটি ইস্যু আমাদের কাছে প্রায়ই তুলে এবং সেটি হচ্ছে তারা চায় বাংলাদেশে একটি স্বচ্ছ ও সুন্দর নির্বাচন হোক। অবশ্যই– বাংলাদেশ সরকারও তাই চাই একটি স্বচ্ছ, সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন।’
‘আমেরিকার প্রধান মূল্যবোধ এবং আমাদের প্রধান মূল্যবোধ একই ধরনের’ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ’অন্যদের আমাদের গণতন্ত্র সেখানোর প্রয়োজন নেই। কারণ আমাদের প্রত্যেকের রক্তে গণতন্ত্র রয়েছে। আমেরিকা চায় স্বচ্ছ নির্বাচন এবং আমরাও চাই। এ বিষয়ে আমাদের মধ্যে কোনও ঝগড়া নেই, কোনও দ্বিমত নেই।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

আমেরিকা আমাদের সবচেয়ে বড় বন্ধু দেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৩:৫৬:৩১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৩

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এন্থনি ব্লিঙ্কেনের আমন্ত্রণে ওয়াশিংটন যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনা হবে আগামী ১০ এপ্রিল।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন মনে করেন, ‘উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রার সময়ে আমেরিকা বাংলাদেশকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে।’

বুধবার (৫ এপ্রিল) স্থানীয় এক হোটেলে অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমাকে দাওয়াত দিয়েছেন। আমি বলবো, আমরা ভাগ্যবান। কারণ আমেরিকান পররাষ্ট্রমন্ত্রী খুব একটা দাওয়াত দেন না, আমরা পরপর তিনবার পেলাম। আমাদের উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রার সময়ে আমেরিকা যথেষ্ঠ গুরুত্ব দিচ্ছে।’

আমেরিকা বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বন্ধু দেশ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তারা আমাদের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগকারী দেশ। তারা একক দেশ হিসেবে সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার। যখন কোভিড হয়েছিল, আমেরিকা একমাত্র দেশ; যারা আমাদের ১০ কোটির বেশি টিকা দিয়েছে, বিনা পয়সায় এবং দেশে পৌঁছে দিয়েছে। আমরা অন্য জায়গা থেকে কিনেছি বা যারা দান করেছে– তাদের ওখান থেকে আনতে হয়েছে…। এরফলে খুব দক্ষতার সঙ্গে আমরা কোভিড ব্যবস্থাপনা করতে পেরেছি।’

রোহিঙ্গাদের জন্য সবচেয়ে বেশি মানবিক সহায়তা দিয়েছে এবং দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অন্যান্য অনেক দেশ প্রথমে ভালো অর্থ দিলেও পরে কমিয়ে ফেলেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমেরিকা একটি ইস্যু আমাদের কাছে প্রায়ই তুলে এবং সেটি হচ্ছে তারা চায় বাংলাদেশে একটি স্বচ্ছ ও সুন্দর নির্বাচন হোক। অবশ্যই– বাংলাদেশ সরকারও তাই চাই একটি স্বচ্ছ, সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন।’
‘আমেরিকার প্রধান মূল্যবোধ এবং আমাদের প্রধান মূল্যবোধ একই ধরনের’ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ’অন্যদের আমাদের গণতন্ত্র সেখানোর প্রয়োজন নেই। কারণ আমাদের প্রত্যেকের রক্তে গণতন্ত্র রয়েছে। আমেরিকা চায় স্বচ্ছ নির্বাচন এবং আমরাও চাই। এ বিষয়ে আমাদের মধ্যে কোনও ঝগড়া নেই, কোনও দ্বিমত নেই।’