ঢাকা , শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আইপিএল: শেষ রাউন্ডে চমক, দল পেলেন সাকিবও

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) নিলামে বাংলাদেশের চার ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, তাসকিন আহমেদ ও আফিফ হোসেন ছিলেন সংক্ষিপ্ত তালিকায়। তাদের ভ্ক্তরা আশা করছিলেন, ভারতের কোচিতে চলমান নিলামে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের চাহিদা থাকবে তুঙ্গে। কিন্তু প্রথম ডাকে কারও ব্যাপারেই আগ্রহ দেখায়নি আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। তবে শেষ রাউন্ডে চমক দেখিয়ে উইকেট কিপার ব্যাটার লিটন কুমার দাসকে দলে ভিড়িয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। এর কিছুক্ষণ পরেই অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকেও দলে টেনেছে এই ফ্রাঞ্চাইজি।

প্রথম ডাকে সাকিবের ব্যাপারে কেউই আগ্রহ দেখায়নি, দ্বিতীয় ডাকেও একই অবস্থা। তবে কলকাতা নাইট রাইডার্সের চাহিদার ভিত্তিতে শেষ রাউন্ডে সাকিবকে ফের নিলামে তোলা হয়। বাঁহাতি এই ক্রিকেটারের ভিত্তিমূল্য ছিল ১ কোটি ৫০ লাখ রুপি। নিলামের শেষ ডাকে ভিত্তিমূল্যেই সাকিবকে কিনে নেয় কলকাতা।

২০১১ থেকে ২০১৭ এবং ২০২১ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএল খেলেছেন সাকিব। ২০১৮ এবং ২০১৯ মৌসুমে সাকিব ছিলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ক্রিকেটার। ২০২১ সালে সাকিবকে ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা দ্বিতীয় দফায় দলে নিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ২০১৭ সালের পর সাকিবকে কলকাতা ছেড়ে দেওয়ার পর ২০১৮ সালের নিলামে তাকে ২ কোটি টাকা দিয়ে দলে নেয় হায়দরাবাদ। ২০২১ সালে কলকাতা ছেড়ে দেওয়ার পর দল পাননি তিনি। এক বছর বিরতি দিয়ে পুরনো দলেই ফিরলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। ২০১১ সালে আইপিএলে অভিষেক হওয়া সাকিব এখন পর্যন্ত ৭১টি ম্যাচ খেলে ৭৯৩ রান ও ৬৩ উইকেট নিয়েছেন।

সাকিবের দল পাওয়ার কিছুক্ষণ আগেই বাংলাদেশের সপ্তম ক্রিকেটার হিসেবে দল পান লিটন। তাকেও ভিত্তিমূল্য ৫০ লাখ রুপিতে কিনে নেয় কলকাতা। সাকিব-লিটন দল পেলেও অবিক্রিত থেকেছেন তাসকিন আহমেদ ও আফিফ হোসেন। তাসকিনকে নিয়ে আলোচনা থাকলেও কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজি বাংলাদেশের এই পেসারের ব্যাপারে আগ্রহ দেখাননি। তার ব্যাপারে গত বছর আগ্রহ দেখিয়েছিল লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্ট। ইংল‌্যান্ডের পেসার মার্ক উডের ইনজুরিতে তাকে পেতে বিসিবির কাছে আনুষ্ঠানিক আবেদন করে দলটি। কিন্তু বিসিবি অনুমতি না দেওয়ায় তাসকিনের আইপিএল খেলা হয়নি। গত দুই বছর অবিশ্বাস‌্য ছন্দে আছেন এই পেসার। আশা করা হচ্ছিল এবার হয়তো আইপিএলের দরজা খুলবে তার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অবিক্রীতই থেকে গেছেন বাংলাদেশের এই পেস সেনসেশন। তাসকিনকে নিলামে তোলা হলেও আফিফকে নিলামেই তোলা হয়নি। তাসকিনের মতো আফিফও অবিক্রিত রয়ে গেছেন।

বাংলাদেশের সপ্তম ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলে সুযোগ পেলেন লিটন। আগামী আসরে মোস্তাফিজের সঙ্গে লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান আইপিএল মাতাবেন। মোস্তাফিজকে এ বছর রিটেইন করেছে দিল্লি ক্যাপিটালস। সাকিবকে শেষ রাউন্ডে চমক দেখিয়ে দলে ভিড়িয়েছে তার পুরনো দল কলকাতা নাইট রাইডার্স।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

আইপিএল: শেষ রাউন্ডে চমক, দল পেলেন সাকিবও

আপডেট সময় ০৩:৪৩:৩০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২২

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) নিলামে বাংলাদেশের চার ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, তাসকিন আহমেদ ও আফিফ হোসেন ছিলেন সংক্ষিপ্ত তালিকায়। তাদের ভ্ক্তরা আশা করছিলেন, ভারতের কোচিতে চলমান নিলামে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের চাহিদা থাকবে তুঙ্গে। কিন্তু প্রথম ডাকে কারও ব্যাপারেই আগ্রহ দেখায়নি আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। তবে শেষ রাউন্ডে চমক দেখিয়ে উইকেট কিপার ব্যাটার লিটন কুমার দাসকে দলে ভিড়িয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। এর কিছুক্ষণ পরেই অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকেও দলে টেনেছে এই ফ্রাঞ্চাইজি।

প্রথম ডাকে সাকিবের ব্যাপারে কেউই আগ্রহ দেখায়নি, দ্বিতীয় ডাকেও একই অবস্থা। তবে কলকাতা নাইট রাইডার্সের চাহিদার ভিত্তিতে শেষ রাউন্ডে সাকিবকে ফের নিলামে তোলা হয়। বাঁহাতি এই ক্রিকেটারের ভিত্তিমূল্য ছিল ১ কোটি ৫০ লাখ রুপি। নিলামের শেষ ডাকে ভিত্তিমূল্যেই সাকিবকে কিনে নেয় কলকাতা।

২০১১ থেকে ২০১৭ এবং ২০২১ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএল খেলেছেন সাকিব। ২০১৮ এবং ২০১৯ মৌসুমে সাকিব ছিলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ক্রিকেটার। ২০২১ সালে সাকিবকে ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা দ্বিতীয় দফায় দলে নিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ২০১৭ সালের পর সাকিবকে কলকাতা ছেড়ে দেওয়ার পর ২০১৮ সালের নিলামে তাকে ২ কোটি টাকা দিয়ে দলে নেয় হায়দরাবাদ। ২০২১ সালে কলকাতা ছেড়ে দেওয়ার পর দল পাননি তিনি। এক বছর বিরতি দিয়ে পুরনো দলেই ফিরলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। ২০১১ সালে আইপিএলে অভিষেক হওয়া সাকিব এখন পর্যন্ত ৭১টি ম্যাচ খেলে ৭৯৩ রান ও ৬৩ উইকেট নিয়েছেন।

সাকিবের দল পাওয়ার কিছুক্ষণ আগেই বাংলাদেশের সপ্তম ক্রিকেটার হিসেবে দল পান লিটন। তাকেও ভিত্তিমূল্য ৫০ লাখ রুপিতে কিনে নেয় কলকাতা। সাকিব-লিটন দল পেলেও অবিক্রিত থেকেছেন তাসকিন আহমেদ ও আফিফ হোসেন। তাসকিনকে নিয়ে আলোচনা থাকলেও কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজি বাংলাদেশের এই পেসারের ব্যাপারে আগ্রহ দেখাননি। তার ব্যাপারে গত বছর আগ্রহ দেখিয়েছিল লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্ট। ইংল‌্যান্ডের পেসার মার্ক উডের ইনজুরিতে তাকে পেতে বিসিবির কাছে আনুষ্ঠানিক আবেদন করে দলটি। কিন্তু বিসিবি অনুমতি না দেওয়ায় তাসকিনের আইপিএল খেলা হয়নি। গত দুই বছর অবিশ্বাস‌্য ছন্দে আছেন এই পেসার। আশা করা হচ্ছিল এবার হয়তো আইপিএলের দরজা খুলবে তার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অবিক্রীতই থেকে গেছেন বাংলাদেশের এই পেস সেনসেশন। তাসকিনকে নিলামে তোলা হলেও আফিফকে নিলামেই তোলা হয়নি। তাসকিনের মতো আফিফও অবিক্রিত রয়ে গেছেন।

বাংলাদেশের সপ্তম ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলে সুযোগ পেলেন লিটন। আগামী আসরে মোস্তাফিজের সঙ্গে লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান আইপিএল মাতাবেন। মোস্তাফিজকে এ বছর রিটেইন করেছে দিল্লি ক্যাপিটালস। সাকিবকে শেষ রাউন্ডে চমক দেখিয়ে দলে ভিড়িয়েছে তার পুরনো দল কলকাতা নাইট রাইডার্স।