ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিদ্ধিরগঞ্জ নাসিক ৮ নং ওয়ার্ডে পেশিশক্তির দাপটে সরকারি জমিতে পাকা স্থাপনা তৈরির পায়তারা, কতৃপক্ষের নজরদারি প্রয়োজন

নিজস্ব প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন নাসিক ৮ নং ওয়ার্ডের গোদনাইল মৌজার সৈয়দপাড়া এলাকায় পি.এম.নিট প্রাঃ লিঃ কোম্পানির মালিক রতন কুমার সাহা সরকারি খাস জমি দখল করে আরসিসি পিলার করে পাকা ভবন নির্মাণের চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে স্হানীয় এলাকাবাসীর অভিযোগে এমটাই তথ্য পাওয়া যায়।প্রতিষ্ঠানের মালিক বিশিষ্ট শিল্পপতি রতন কুমার সাহা ক্ষমতার দাপটে ও পেশিশক্তি ব্যবহার করে এ ধরনের বেআইনি কাজ করে চলছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গোদনাইল মৌজার সি.এস ও এস.এ দাগ নং ১০০৩ ও আর.এস ২১৩৯ নং দাগে ২৩ শতাংশ জমি ক্রয় করেন পিএম নিট প্রা:লি: কোম্পানির মালিক রতন কুমার সাহা। এই জমির পূর্বপাশ্বে সরকারি জমি যা জনসাধারণের চলাচলে ব্যবহার হয়। রতন কুমার তার ক্রয়কৃত ২৩ শতাংশ জমির সাথেই পূর্ব পাশ্বের সরকারি জমি আরসিসি পিলার করে পাকা স্থাপনা তৈরি করছে যা জনসাধারনের চলাচলে অনেকটাই ব্যাঘাত হচ্ছে। রতন কুমার সাহার জমির মালিকানা বিষয়ে জানা যায় তার ক্রয়কৃত জমির পরিমান ২৩ শতাংশ। কিন্তু তিনি তার ক্রয়কৃত জমিসহ পুর্ব পাশ্বে সরকারি জমি দখল করে আরসিসি পিলার দিয়ে পাকা স্থাপনা তৈরি করছে। স্থানীয় কয়েকজন কাজ করতে বাধা দেওয়ায় তিনি( রতন কুমার সাহা) বলেন আমি এই ২৩ শতাংশের সাথে এই জমিও কিনেছি তাই আমার জায়গায় আমি কাজ করছি এখানে কোন সরকারি জমি নাই।

ঘটনার বিষয়ে রতন কুমার সাহার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কোন সরকারি জায়গা দখল বা পাকা স্থাপনা নির্মাণ করিনি, আর এবিষয় কিছু বলতে চাইনা। আপনার যা মন চায় করেন, সরকার ডিপার্টমেন্টের লোক আছে, থানা আছে, রোডর্স এন্ড হাইওয়ে আছে কথা বললে আমি তাদের সাথে কথা বলবো।

এ বিষয়ে নাসিম ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা’র সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সরকারি জমি দখল নিয়ে কেউ আমাকে কিছু জানাইনি তবে উত্তরে জনসাধারণের চলাচলের যে রাস্তা রয়েছে সে রাস্তায় পানি নিষ্কাসনের ড্রেন আছে। ড্রেন পরিস্কারে স্লাপ তুলতে যেনো সমস্যা না হয় তাই এ বিষয়টি একটু দেখতে।

এবিষয়ে ডিএনডি প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক নাজমুল হাসানের সাথে যোগাযোগ করতে তার মুঠোফোনে কয়েকবার ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেননি।

এলাকাবাসীর দাবী সরকারি এ জমি ভূমিদস্যু রতন কুমার সাহার হাত থেকে মুক্ত করে জমি রক্ষা করার। তাই সরকারি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

সিদ্ধিরগঞ্জ নাসিক ৮ নং ওয়ার্ডে পেশিশক্তির দাপটে সরকারি জমিতে পাকা স্থাপনা তৈরির পায়তারা, কতৃপক্ষের নজরদারি প্রয়োজন

আপডেট সময় ০৩:২৩:২৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মে ২০২৪

নিজস্ব প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন নাসিক ৮ নং ওয়ার্ডের গোদনাইল মৌজার সৈয়দপাড়া এলাকায় পি.এম.নিট প্রাঃ লিঃ কোম্পানির মালিক রতন কুমার সাহা সরকারি খাস জমি দখল করে আরসিসি পিলার করে পাকা ভবন নির্মাণের চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে স্হানীয় এলাকাবাসীর অভিযোগে এমটাই তথ্য পাওয়া যায়।প্রতিষ্ঠানের মালিক বিশিষ্ট শিল্পপতি রতন কুমার সাহা ক্ষমতার দাপটে ও পেশিশক্তি ব্যবহার করে এ ধরনের বেআইনি কাজ করে চলছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গোদনাইল মৌজার সি.এস ও এস.এ দাগ নং ১০০৩ ও আর.এস ২১৩৯ নং দাগে ২৩ শতাংশ জমি ক্রয় করেন পিএম নিট প্রা:লি: কোম্পানির মালিক রতন কুমার সাহা। এই জমির পূর্বপাশ্বে সরকারি জমি যা জনসাধারণের চলাচলে ব্যবহার হয়। রতন কুমার তার ক্রয়কৃত ২৩ শতাংশ জমির সাথেই পূর্ব পাশ্বের সরকারি জমি আরসিসি পিলার করে পাকা স্থাপনা তৈরি করছে যা জনসাধারনের চলাচলে অনেকটাই ব্যাঘাত হচ্ছে। রতন কুমার সাহার জমির মালিকানা বিষয়ে জানা যায় তার ক্রয়কৃত জমির পরিমান ২৩ শতাংশ। কিন্তু তিনি তার ক্রয়কৃত জমিসহ পুর্ব পাশ্বে সরকারি জমি দখল করে আরসিসি পিলার দিয়ে পাকা স্থাপনা তৈরি করছে। স্থানীয় কয়েকজন কাজ করতে বাধা দেওয়ায় তিনি( রতন কুমার সাহা) বলেন আমি এই ২৩ শতাংশের সাথে এই জমিও কিনেছি তাই আমার জায়গায় আমি কাজ করছি এখানে কোন সরকারি জমি নাই।

ঘটনার বিষয়ে রতন কুমার সাহার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কোন সরকারি জায়গা দখল বা পাকা স্থাপনা নির্মাণ করিনি, আর এবিষয় কিছু বলতে চাইনা। আপনার যা মন চায় করেন, সরকার ডিপার্টমেন্টের লোক আছে, থানা আছে, রোডর্স এন্ড হাইওয়ে আছে কথা বললে আমি তাদের সাথে কথা বলবো।

এ বিষয়ে নাসিম ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা’র সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সরকারি জমি দখল নিয়ে কেউ আমাকে কিছু জানাইনি তবে উত্তরে জনসাধারণের চলাচলের যে রাস্তা রয়েছে সে রাস্তায় পানি নিষ্কাসনের ড্রেন আছে। ড্রেন পরিস্কারে স্লাপ তুলতে যেনো সমস্যা না হয় তাই এ বিষয়টি একটু দেখতে।

এবিষয়ে ডিএনডি প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক নাজমুল হাসানের সাথে যোগাযোগ করতে তার মুঠোফোনে কয়েকবার ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেননি।

এলাকাবাসীর দাবী সরকারি এ জমি ভূমিদস্যু রতন কুমার সাহার হাত থেকে মুক্ত করে জমি রক্ষা করার। তাই সরকারি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।