ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সালমান খানকে মারতে হুমকি গ্যাংস্টারের

ভারতের মুম্বাইয়ের হিন্দি সিনেমার রাজত্ব করছেন শাহরুখ খান, সালমান খান, আমির খান, সাইফ আলী খানসহ কয়েকজন মুসলমান অভিনেতা। তাদের একজন সালমান খান। গত রোববার ভোর ৫টা নাগাদ তার বাড়ির বাইরে চার রাউন্ড গুলি চালিয়ে চম্পট দেন দুই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি। ওই দুই বাক্তি বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য। তার পর থেকেই হইহই রব সালমান খানের বান্দ্রার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে।
বিষ্ণোই গ্যাং গোলাগুলির ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে মুম্বই পুলিশ। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডে। তবে কে বা কারা এই ঘটনার পিছনে রয়েছে, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছিল পুলিশ। এর মধ্যে বেলা বাড়তেই আসে হুমকি চিঠি। গোটা ঘটনার দায় স্বীকার করে বিষ্ণোই গ্যাং। তারা শুধু ঘটনার দায় স্বীকারই করেনি, সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে রীতিমতো হুমকি দিয়েছে অভিনেতাকে। গত বছর থেকেই ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি পাচ্ছেন সালমান খান। লরেন্স বিষ্ণোই যে এই গ্যাংয়ের মাথা। তিনি এর আগেই হুমকি দিয়েছেন সালমানকে প্রাণে মেরে ফেলার। এই মুহূর্তে জেলবন্দি গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই। একটি সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পাতায় হুমকি পোস্ট দিলেন তার ভাই আনমোল বিষ্ণোই। তিনি লিখেছেন, আমাদের উপর হওয়া অত্যাচারের নিষ্পত্তি চাই। যদি তুমি সরাসরি যুদ্ধের ময়দানে নামতে চাও, তা-ই সই। আজ যা হয়েছে, তা শুধুই একটা ঝলক ছিল সালমান খান। যাতে তুমি বুঝতে পারো, আমরা কত দূর যেতে পারি। এটাই ছিল তোমাকে দেওয়া শেষ সুযোগ। এর পর গুলিটা তোমার বাড়ির বাইরে চলবে না। দাউদ ও ছোটা শাকিল নামের যে দু’জনকে তুমি ভগবান মানো, সেই নামের দু’টি কুকুর পুষেছি বাড়িতে। বাকি বেশি কথা বলার লোক আমি নই।
১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ শিকারকাণ্ডে সালমানের নাম জড়িয়েছিল। এর ‘বদলা নিতে’ সালমানকে খুনের হুমকি দেয় লরেন্স বিষ্ণোই গোষ্ঠী। গত বছর জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ) জানিয়েছিল, জেলবন্দি গ্যাংস্টার বিষ্ণোই যে ১০ জনকে ‘খতম তালিকা’য় রেখেছেন, তাদের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে সালমানের নাম। তার পর থেকেই এ সুপাস্টারকে নানা ভাবে ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছেন এই গ্যাংস্টার। এ বার প্রায় অভিনেতার বাড়িতে হামলা করার মতো ঘটনা ঘটিয়ে ফেললেন তারা।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সালমান খানকে মারতে হুমকি গ্যাংস্টারের

আপডেট সময় ০৫:৩৬:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

ভারতের মুম্বাইয়ের হিন্দি সিনেমার রাজত্ব করছেন শাহরুখ খান, সালমান খান, আমির খান, সাইফ আলী খানসহ কয়েকজন মুসলমান অভিনেতা। তাদের একজন সালমান খান। গত রোববার ভোর ৫টা নাগাদ তার বাড়ির বাইরে চার রাউন্ড গুলি চালিয়ে চম্পট দেন দুই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি। ওই দুই বাক্তি বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য। তার পর থেকেই হইহই রব সালমান খানের বান্দ্রার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে।
বিষ্ণোই গ্যাং গোলাগুলির ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে মুম্বই পুলিশ। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডে। তবে কে বা কারা এই ঘটনার পিছনে রয়েছে, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছিল পুলিশ। এর মধ্যে বেলা বাড়তেই আসে হুমকি চিঠি। গোটা ঘটনার দায় স্বীকার করে বিষ্ণোই গ্যাং। তারা শুধু ঘটনার দায় স্বীকারই করেনি, সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে রীতিমতো হুমকি দিয়েছে অভিনেতাকে। গত বছর থেকেই ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি পাচ্ছেন সালমান খান। লরেন্স বিষ্ণোই যে এই গ্যাংয়ের মাথা। তিনি এর আগেই হুমকি দিয়েছেন সালমানকে প্রাণে মেরে ফেলার। এই মুহূর্তে জেলবন্দি গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই। একটি সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পাতায় হুমকি পোস্ট দিলেন তার ভাই আনমোল বিষ্ণোই। তিনি লিখেছেন, আমাদের উপর হওয়া অত্যাচারের নিষ্পত্তি চাই। যদি তুমি সরাসরি যুদ্ধের ময়দানে নামতে চাও, তা-ই সই। আজ যা হয়েছে, তা শুধুই একটা ঝলক ছিল সালমান খান। যাতে তুমি বুঝতে পারো, আমরা কত দূর যেতে পারি। এটাই ছিল তোমাকে দেওয়া শেষ সুযোগ। এর পর গুলিটা তোমার বাড়ির বাইরে চলবে না। দাউদ ও ছোটা শাকিল নামের যে দু’জনকে তুমি ভগবান মানো, সেই নামের দু’টি কুকুর পুষেছি বাড়িতে। বাকি বেশি কথা বলার লোক আমি নই।
১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ শিকারকাণ্ডে সালমানের নাম জড়িয়েছিল। এর ‘বদলা নিতে’ সালমানকে খুনের হুমকি দেয় লরেন্স বিষ্ণোই গোষ্ঠী। গত বছর জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ) জানিয়েছিল, জেলবন্দি গ্যাংস্টার বিষ্ণোই যে ১০ জনকে ‘খতম তালিকা’য় রেখেছেন, তাদের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে সালমানের নাম। তার পর থেকেই এ সুপাস্টারকে নানা ভাবে ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছেন এই গ্যাংস্টার। এ বার প্রায় অভিনেতার বাড়িতে হামলা করার মতো ঘটনা ঘটিয়ে ফেললেন তারা।