ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ষড়যন্ত্রকারীরা এক হয়েছে, আমরা তাদের বিষদাঁত ভেঙে দিতে প্রস্তুত: শামীম ওসমান

সব অশুভ শক্তিকে প্রতিহত করার জন্য প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন, ‘এই বছরটা হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে ক্রাইসিসের বছর। সব অশুভ শক্তি, ষড়যন্ত্রকারীরা এক হয়েছে, ওরা কামড় দেবে বলে। আর আমরা জাতির পিতার সৈনিকরা ওই সব অশুভ শক্তির সমস্ত বিষদাঁত ভেঙে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকবো।’

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) বিকালে নারায়ণগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গণে আওয়ামীপন্থি আইনজীবীদের প্রচারণা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, ‘বিশ্বাসঘাতক এবং ষড়যন্ত্রকারীরা এক হয়ে জাতির পিতার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা করছে। আগে হাজার বছরে একটা বঙ্গবন্ধু জন্ম নিয়েছে, বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। আগে শত বছরে একটা করে খন্দকার মোশতাক সৃষ্টি হতো, আর এখন জেলায় জেলায় মোশতাকের জন্ম হয়। এরা সবাই খুব ভয়ংকর।’

বিএনপির নেতাকর্মীদের ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘আমাদের বহু নেতাকর্মীকে বিগত সময়ে নারায়ণগঞ্জে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। এগুলো যদি আমাদের মনে পড়ে যায়, তাহলে আপনাদের জন্য নারায়ণগঞ্জে বসবাস করা কঠিন হয়ে যাবে। আমরা ধৈর্য ধরেছি, কিন্তু দুর্বল না। আমরা আল্লাহর কাছে ও জনগণের কাছে বিচার দিয়েছি। আপনারা যেই অপরাধ করেছেন, তার জন্য জনগণ আপনাদের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। রাষ্ট্রীয়ভাবে এবং নারায়ণগঞ্জ বারসহ সব জায়গায় রায় দিয়েছে।’

এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘কয়দিন আগে বিএনপি এমন একটা অবস্থা সৃষ্টি করলো যে, তারা ক্ষমতায় চলে আসছে বা আসবে। ১০ তারিখে (১০ ডিসেম্বর) এই হবে সেই হবে। আমি বলেছিলাম, ঘোড়ার ডিমটা হবে। এখনও বলছি ঘোড়ার ডিম না, কোনও ডিমই হবে না ওদের। ঘোড়াও ডিম পাড়বে না ওদের জন্য। ওদের দিন শেষ।’

নারায়ণগঞ্জ বারের নেতৃবৃন্দদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের জন্য আগামীতে এই বারকে ভূমিকা রাখতে হবে। প্রেসক্লাব, ব্যবসায়ীক ইউনিয়ন, সামাজিক শক্তিগুলোকে একত্রিত করে নারায়ণগঞ্জের অগ্রগতির জন্য কাজ করতে হবে। খারাপ শক্তিকে প্রতিহত করতে ও অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য আপনাদেরকে আগামীকে ভূমিকা রাখতে হবে। এ জেলার মানুষজন আপনাদের কাছ থেকে অনেক কিছু প্রত্যাশা করে। আপনাদের দায়িত্ব হয়েছে শুধুমাত্র বারের জন্য নয়, পুরো নারায়ণগঞ্জের জন্য কাজ করার।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ জজ ও দায়রা আদালতের সরকারি কৌঁসুলি মনিরুজ্জামান বুলবুল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিনিয়র আইনজীবী খোকন সাহা, জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনের সভাপতি পদপ্রার্থী হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক মোহসীন মিয়াসহ আরও অনেকে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।

ষড়যন্ত্রকারীরা এক হয়েছে, আমরা তাদের বিষদাঁত ভেঙে দিতে প্রস্তুত: শামীম ওসমান

আপডেট সময় ০৪:২৫:২২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

সব অশুভ শক্তিকে প্রতিহত করার জন্য প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন, ‘এই বছরটা হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে ক্রাইসিসের বছর। সব অশুভ শক্তি, ষড়যন্ত্রকারীরা এক হয়েছে, ওরা কামড় দেবে বলে। আর আমরা জাতির পিতার সৈনিকরা ওই সব অশুভ শক্তির সমস্ত বিষদাঁত ভেঙে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকবো।’

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) বিকালে নারায়ণগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গণে আওয়ামীপন্থি আইনজীবীদের প্রচারণা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, ‘বিশ্বাসঘাতক এবং ষড়যন্ত্রকারীরা এক হয়ে জাতির পিতার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা করছে। আগে হাজার বছরে একটা বঙ্গবন্ধু জন্ম নিয়েছে, বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। আগে শত বছরে একটা করে খন্দকার মোশতাক সৃষ্টি হতো, আর এখন জেলায় জেলায় মোশতাকের জন্ম হয়। এরা সবাই খুব ভয়ংকর।’

বিএনপির নেতাকর্মীদের ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘আমাদের বহু নেতাকর্মীকে বিগত সময়ে নারায়ণগঞ্জে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। এগুলো যদি আমাদের মনে পড়ে যায়, তাহলে আপনাদের জন্য নারায়ণগঞ্জে বসবাস করা কঠিন হয়ে যাবে। আমরা ধৈর্য ধরেছি, কিন্তু দুর্বল না। আমরা আল্লাহর কাছে ও জনগণের কাছে বিচার দিয়েছি। আপনারা যেই অপরাধ করেছেন, তার জন্য জনগণ আপনাদের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। রাষ্ট্রীয়ভাবে এবং নারায়ণগঞ্জ বারসহ সব জায়গায় রায় দিয়েছে।’

এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘কয়দিন আগে বিএনপি এমন একটা অবস্থা সৃষ্টি করলো যে, তারা ক্ষমতায় চলে আসছে বা আসবে। ১০ তারিখে (১০ ডিসেম্বর) এই হবে সেই হবে। আমি বলেছিলাম, ঘোড়ার ডিমটা হবে। এখনও বলছি ঘোড়ার ডিম না, কোনও ডিমই হবে না ওদের। ঘোড়াও ডিম পাড়বে না ওদের জন্য। ওদের দিন শেষ।’

নারায়ণগঞ্জ বারের নেতৃবৃন্দদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের জন্য আগামীতে এই বারকে ভূমিকা রাখতে হবে। প্রেসক্লাব, ব্যবসায়ীক ইউনিয়ন, সামাজিক শক্তিগুলোকে একত্রিত করে নারায়ণগঞ্জের অগ্রগতির জন্য কাজ করতে হবে। খারাপ শক্তিকে প্রতিহত করতে ও অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য আপনাদেরকে আগামীকে ভূমিকা রাখতে হবে। এ জেলার মানুষজন আপনাদের কাছ থেকে অনেক কিছু প্রত্যাশা করে। আপনাদের দায়িত্ব হয়েছে শুধুমাত্র বারের জন্য নয়, পুরো নারায়ণগঞ্জের জন্য কাজ করার।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ জজ ও দায়রা আদালতের সরকারি কৌঁসুলি মনিরুজ্জামান বুলবুল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিনিয়র আইনজীবী খোকন সাহা, জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনের সভাপতি পদপ্রার্থী হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক মোহসীন মিয়াসহ আরও অনেকে।