ঢাকা , মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার Logo আড়াইহাজারে রেস্টুরেন্ট থেকে অপত্তিকর অবস্থায় ১৬ কিশোর কিশোরী আটক Logo সোনারগাঁয়ে ট্রাক চাপায় যুবক নিহত, চালক আটক Logo সোনারগাঁয়ের আলোচিত সাধন মিয়া হত্যা মামলায় দুইজনের মৃত্যুদন্ড ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড Logo বন্দর ১নং খেয়াঘাট মাঝি সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন Logo আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে মাকসুদ চেয়ারম্যান’র মত বিনিময় সভা ও উঠান বৈঠক Logo না’গঞ্জ জেলা জা’পা সভাপতি সানুর নাম ভাঙ্গিয়ে সুমন প্রধানের অপকর্ম রুখবে কে? Logo হুথিদের হামলায় লোহিত সাগরে ডুবে গেল সেই জাহাজ Logo রাতের লাইভের নেপথ্যের কারণ জানালেন তাহসান-ফারিণ Logo যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

নাঃগঞ্জে সরকারী আইনজীবি জাসমিনের মামলায় পুলিশ স্বামী নকিবের কারাদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টারঃনারায়ণগঞ্জে সরকারী নারী আইনজীবীর মামলায় পুলিশ পরিদর্শক স্বামী আবু নকিবকে ছয় মাসের কারাদণ্ড হয়েছে। আসামীকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউসার আলম ৩০ নভেম্বর দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আবু নকিব ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি বরখাস্ত।

নারায়ণগঞ্জ জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) জাসমিন আহমেদ ২০০৯ সালে আদালতে স্বামী আবু নকিবের বিরুদ্ধে যৌতুকের দাবীতে প্রহার,হত্যার হুমকী,না জানিয়ে আরো একজনকে বিয়ে করার অণিযোগে মামলা করেন।

জাসমিন আহমেদ বলেন, ‘যৌতুক না পেয়ে প্রায় সময় আবু নকিব ঘুমের মধ্যে আমার গলা টিপে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করতেন। এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করলে বেল্ট ও বুট জুতা দিয়ে আমাকে মারধর করতেন। এছাড়া আবু নকিব আমার পর গোপনে আরও দুটি বিয়ে করেছেন। আমাকে মারধর করে পাঁচ লাখ টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুটে নিয়েছিলেন। আমি আদালতের রায়ে সন্তুষ্ট।

আদালতের (বিচারিক)অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি মাকসুদা হাবিব বলেন, জাসমিন আহমেদের সঙ্গে ২০০৭ সালের ১৪ মে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে পুলিশ পরিদর্শক আবু নকিবের ১০ লাখ এক হাজার টাকা দেনমোহরে বিয়ে হয়। আবু নকিব ও তার ঘনিষ্ঠরা বিয়ের পর থেকেই ৫০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে দুই দফায় জাসমিন আহমেদকে মারধর করে গুরুতর আহত করেন। এ ঘটনায় আদালতে মামলা করেন ভুক্তভোগী। আদালত ২০২৩ সালের ৩০ নভেম্বর ওই মামলায় রায় দিয়েছেন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্দরে শ্লীলতাহানির ভিডিও ধারণ করে যুবতীকে ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

নাঃগঞ্জে সরকারী আইনজীবি জাসমিনের মামলায় পুলিশ স্বামী নকিবের কারাদণ্ড

আপডেট সময় ০৪:৫৪:৩৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১ ডিসেম্বর ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টারঃনারায়ণগঞ্জে সরকারী নারী আইনজীবীর মামলায় পুলিশ পরিদর্শক স্বামী আবু নকিবকে ছয় মাসের কারাদণ্ড হয়েছে। আসামীকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউসার আলম ৩০ নভেম্বর দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আবু নকিব ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি বরখাস্ত।

নারায়ণগঞ্জ জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) জাসমিন আহমেদ ২০০৯ সালে আদালতে স্বামী আবু নকিবের বিরুদ্ধে যৌতুকের দাবীতে প্রহার,হত্যার হুমকী,না জানিয়ে আরো একজনকে বিয়ে করার অণিযোগে মামলা করেন।

জাসমিন আহমেদ বলেন, ‘যৌতুক না পেয়ে প্রায় সময় আবু নকিব ঘুমের মধ্যে আমার গলা টিপে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করতেন। এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করলে বেল্ট ও বুট জুতা দিয়ে আমাকে মারধর করতেন। এছাড়া আবু নকিব আমার পর গোপনে আরও দুটি বিয়ে করেছেন। আমাকে মারধর করে পাঁচ লাখ টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুটে নিয়েছিলেন। আমি আদালতের রায়ে সন্তুষ্ট।

আদালতের (বিচারিক)অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি মাকসুদা হাবিব বলেন, জাসমিন আহমেদের সঙ্গে ২০০৭ সালের ১৪ মে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে পুলিশ পরিদর্শক আবু নকিবের ১০ লাখ এক হাজার টাকা দেনমোহরে বিয়ে হয়। আবু নকিব ও তার ঘনিষ্ঠরা বিয়ের পর থেকেই ৫০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে দুই দফায় জাসমিন আহমেদকে মারধর করে গুরুতর আহত করেন। এ ঘটনায় আদালতে মামলা করেন ভুক্তভোগী। আদালত ২০২৩ সালের ৩০ নভেম্বর ওই মামলায় রায় দিয়েছেন।