ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসরাইলকে আরো বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলায় যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ত্রাণ সংস্থা ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেনের সাতজন সাহায্য কর্মী নিহত হওয়ার দিনেই বাইডেন প্রশাসন ইসরাইলে আরও কয়েক হাজার বোমা পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে, ঘটনাটিতে বিশ্বব্যাপী নিন্দা প্রকাশের পর এ সপ্তাহে তিন মার্কিন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা ওয়াশিংটন পোস্টকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

চালানটি সোমবারের ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড এবং যুদ্ধ অঞ্চলে বেসামরিক নাগরিকদের জন্য আরও বেশি সুরক্ষার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে এ ধরনের সমর্থনের শর্ত দেয়ার জন্য ক্রমবর্ধমান আহ্বান সত্ত্বেও ইসরাইলে তার প্রাণঘাতী অস্ত্রের প্রবাহ অব্যাহত রাখার জন্য প্রশাসনের দৃঢ় সংকল্প প্রদর্শন করে। নিহতদের মধ্যে একজন মার্কিন নাগরিকও রয়েছেন। এ পদক্ষেপটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সংবেদনশীল বিবৃতিতেও নতুন আলোকপাত করে যে, তিনি এ ঘটনায় ‘ক্ষুব্ধ এবং মর্মাহত’ ছিলেন এবং এ ধরনের ঘটনা আর কখনও না হওয়ার জন্য জোর দিয়েছিলেন। ‘তারা যুদ্ধের মাঝখানে ক্ষুধার্ত বেসামরিক লোকদের খাবার সরবরাহ করছিল,’ বাইডেন বলেছিলেন, ‘তারা সাহসী এবং নিঃস্বার্থ ছিল।’

হোয়াইট হাউস এ বিষয়ে জন্য মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে। ইসরাইলি সরকার নিশ্চিত করেছে যে, তারা ত্রাণ কর্মীদের উপর হামলা চালিয়েছে তবে এটিকে ‘অনিচ্ছাকৃত’ বলে অভিহিত করে জানিয়েছে, সামরিক বাহিনী একটি ‘স্বচ্ছ’ তদন্ত পরিচালনা করবে এবং ফলাফল প্রকাশ করবে। মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট ১ হাজার এমকে৮২ ৫০০-পাউন্ডের বেশি বোমা, ১ হাজারেরও বেশি ছোট-ব্যাসের বোমা এবং এমকে ৮০ বোমার জন্য ফিউজগুলি হস্তান্তরের অনুমোদন দিয়েছে। স্টেট ডিপার্টমেন্টের একজন মুখপাত্র অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এবং বলেছেন যে ইসরাইলি বিমান যখন ত্রাণবাহী গাড়িগুলোদে আঘাত করেছিল তার কিছু সময় আগে এটি ঘটেছিল। তবে ডেলিভারির আগে যে কোনো সময় অস্ত্র প্যাকেজ স্থগিত করার ক্ষমতা মার্কিন সরকারের রয়েছে। যদিও এ ক্ষেত্রে তা করা হয়নি।

যুদ্ধ বন্ধে নেতানিয়াহুকে হুঁশিয়ারি বাইডেনের : এখনই যুদ্ধবিরতি করতে হবে গাজায়, ইসরাইলকে চূড়ান্ত সময়সীমা বেঁধে দিল যুক্তরাষ্ট্র। যুদ্ধবিরতি না হলে ইসরাইলের প্রতি নিজেদের অবস্থান বদলে ফেলা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গাজার সাধারণ মানুষের মৃত্যু আটকাতে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে হবে বলেও বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে সাফ জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গত ছ’মাস ধরে গাজায় নৃশংস অভিযান চালাচ্ছে দখলদার ইসরাইল। প্রথমদিকে ইসরাইলের পাশে থাকলেও ধীরে ধীরে অবস্থান বদলের পথে হাঁটছে ওয়াশিংটন। কয়েকদিন আগেই জাতিসংঘে ইসরাইলের বিরুদ্ধে প্রস্তাবে ভেটো দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র। একাধিকবার ইসরাইলকে বার্তা দেয়া হয়েছে, গাজার সাধারণ মানুষের উপরে হামলা বন্ধ করতে হবে। তবে ‘বন্ধু’ আমেরিকার কথা কার্যত উড়িয়ে দিয়ে অভিযানে অটল নেতানিয়াহু। এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন বাইডেন। প্রায় আধঘণ্টা কথা হয় দুই রাষ্ট্রপ্রধানের মধ্যে। ওয়াশিংটনের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইসরাইলকে সাফ জানিয়ে দেয়া হয়েছে, সাধারণ মানুষের ক্ষয়ক্ষতি বন্ধ ও ত্রাণকর্মীদের নিরাপত্তার জন্য সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিতে হবে। আমেরিকার এই বার্তার পরে তেল আভিভ কী পদক্ষেপ নেয়, সেটা খতিয়ে দেখবেন মার্কিন কর্মকর্তারা। তার পরেই গাজা নিয়ে নিজেদের অবস্থান নির্ধারণ করবে আমেরিকা।’ তবে ওয়াশিংটনের আশা, এই বার্তার পরে দ্রুত পদক্ষেপ নেবে ইসরাইল।

গাজায় প্রতিদিন প্রবেশ করবে ৩৫০ ত্রাণবাহী ট্রাক : অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় প্রতিদিন ৩৫০টি ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করবে। গতকাল এই সংখ্যক ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশের বিষয়ে জানিয়েছে ইসরাইলের নিরাপত্তা মন্ত্রিসভা। ইসরাইলের নিরাপত্তা মন্ত্রিসভা জানিয়েছে, কারেম আবু সালেম (কারেম শালোম) ক্রসিং দিয়ে দক্ষিণ ইসরাইলের মধ্য দিয়ে গাজায় ২৫০টি ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করবে। আর ১০০টি ত্রাণবাহী ট্রাক মিসরের রাফাহ সীমান্ত ক্রসিং দিয়ে প্রবেশ করবে। এই সংখ্যক ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করলে গাজায় ত্রাণ সহায়তা বৃদ্ধি পাবে। এখন প্রতিদিন গাজায় মাত্র ২০০টি ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করে। ইসরাইল ঘোষণা দিয়ে বলেছে, উত্তর গাজায় বেইট হানুন (ইরেজ) ক্রসিং খুলবে। এছাড়া আশদোদ বন্দরের মাধ্যমে সাময়িক সহায়তা সরবরাহের অনুমতি দেবে। সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট, এপি, আল-জাজিরা।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কামাল হোসাইন

হ্যালো আমি কামাল হোসাইন, আমি গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। ২০১৭ সাল থেকে এই পত্রিকার সাথে কাজ করছি। এভাবে এখানে আপনার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে কিছু লিখতে পারবেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

ইসরাইলকে আরো বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট সময় ০৩:৪৮:৩৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪

গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলায় যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ত্রাণ সংস্থা ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেনের সাতজন সাহায্য কর্মী নিহত হওয়ার দিনেই বাইডেন প্রশাসন ইসরাইলে আরও কয়েক হাজার বোমা পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে, ঘটনাটিতে বিশ্বব্যাপী নিন্দা প্রকাশের পর এ সপ্তাহে তিন মার্কিন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা ওয়াশিংটন পোস্টকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

চালানটি সোমবারের ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড এবং যুদ্ধ অঞ্চলে বেসামরিক নাগরিকদের জন্য আরও বেশি সুরক্ষার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে এ ধরনের সমর্থনের শর্ত দেয়ার জন্য ক্রমবর্ধমান আহ্বান সত্ত্বেও ইসরাইলে তার প্রাণঘাতী অস্ত্রের প্রবাহ অব্যাহত রাখার জন্য প্রশাসনের দৃঢ় সংকল্প প্রদর্শন করে। নিহতদের মধ্যে একজন মার্কিন নাগরিকও রয়েছেন। এ পদক্ষেপটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সংবেদনশীল বিবৃতিতেও নতুন আলোকপাত করে যে, তিনি এ ঘটনায় ‘ক্ষুব্ধ এবং মর্মাহত’ ছিলেন এবং এ ধরনের ঘটনা আর কখনও না হওয়ার জন্য জোর দিয়েছিলেন। ‘তারা যুদ্ধের মাঝখানে ক্ষুধার্ত বেসামরিক লোকদের খাবার সরবরাহ করছিল,’ বাইডেন বলেছিলেন, ‘তারা সাহসী এবং নিঃস্বার্থ ছিল।’

হোয়াইট হাউস এ বিষয়ে জন্য মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে। ইসরাইলি সরকার নিশ্চিত করেছে যে, তারা ত্রাণ কর্মীদের উপর হামলা চালিয়েছে তবে এটিকে ‘অনিচ্ছাকৃত’ বলে অভিহিত করে জানিয়েছে, সামরিক বাহিনী একটি ‘স্বচ্ছ’ তদন্ত পরিচালনা করবে এবং ফলাফল প্রকাশ করবে। মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট ১ হাজার এমকে৮২ ৫০০-পাউন্ডের বেশি বোমা, ১ হাজারেরও বেশি ছোট-ব্যাসের বোমা এবং এমকে ৮০ বোমার জন্য ফিউজগুলি হস্তান্তরের অনুমোদন দিয়েছে। স্টেট ডিপার্টমেন্টের একজন মুখপাত্র অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এবং বলেছেন যে ইসরাইলি বিমান যখন ত্রাণবাহী গাড়িগুলোদে আঘাত করেছিল তার কিছু সময় আগে এটি ঘটেছিল। তবে ডেলিভারির আগে যে কোনো সময় অস্ত্র প্যাকেজ স্থগিত করার ক্ষমতা মার্কিন সরকারের রয়েছে। যদিও এ ক্ষেত্রে তা করা হয়নি।

যুদ্ধ বন্ধে নেতানিয়াহুকে হুঁশিয়ারি বাইডেনের : এখনই যুদ্ধবিরতি করতে হবে গাজায়, ইসরাইলকে চূড়ান্ত সময়সীমা বেঁধে দিল যুক্তরাষ্ট্র। যুদ্ধবিরতি না হলে ইসরাইলের প্রতি নিজেদের অবস্থান বদলে ফেলা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গাজার সাধারণ মানুষের মৃত্যু আটকাতে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে হবে বলেও বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে সাফ জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গত ছ’মাস ধরে গাজায় নৃশংস অভিযান চালাচ্ছে দখলদার ইসরাইল। প্রথমদিকে ইসরাইলের পাশে থাকলেও ধীরে ধীরে অবস্থান বদলের পথে হাঁটছে ওয়াশিংটন। কয়েকদিন আগেই জাতিসংঘে ইসরাইলের বিরুদ্ধে প্রস্তাবে ভেটো দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র। একাধিকবার ইসরাইলকে বার্তা দেয়া হয়েছে, গাজার সাধারণ মানুষের উপরে হামলা বন্ধ করতে হবে। তবে ‘বন্ধু’ আমেরিকার কথা কার্যত উড়িয়ে দিয়ে অভিযানে অটল নেতানিয়াহু। এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন বাইডেন। প্রায় আধঘণ্টা কথা হয় দুই রাষ্ট্রপ্রধানের মধ্যে। ওয়াশিংটনের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইসরাইলকে সাফ জানিয়ে দেয়া হয়েছে, সাধারণ মানুষের ক্ষয়ক্ষতি বন্ধ ও ত্রাণকর্মীদের নিরাপত্তার জন্য সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিতে হবে। আমেরিকার এই বার্তার পরে তেল আভিভ কী পদক্ষেপ নেয়, সেটা খতিয়ে দেখবেন মার্কিন কর্মকর্তারা। তার পরেই গাজা নিয়ে নিজেদের অবস্থান নির্ধারণ করবে আমেরিকা।’ তবে ওয়াশিংটনের আশা, এই বার্তার পরে দ্রুত পদক্ষেপ নেবে ইসরাইল।

গাজায় প্রতিদিন প্রবেশ করবে ৩৫০ ত্রাণবাহী ট্রাক : অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় প্রতিদিন ৩৫০টি ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করবে। গতকাল এই সংখ্যক ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশের বিষয়ে জানিয়েছে ইসরাইলের নিরাপত্তা মন্ত্রিসভা। ইসরাইলের নিরাপত্তা মন্ত্রিসভা জানিয়েছে, কারেম আবু সালেম (কারেম শালোম) ক্রসিং দিয়ে দক্ষিণ ইসরাইলের মধ্য দিয়ে গাজায় ২৫০টি ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করবে। আর ১০০টি ত্রাণবাহী ট্রাক মিসরের রাফাহ সীমান্ত ক্রসিং দিয়ে প্রবেশ করবে। এই সংখ্যক ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করলে গাজায় ত্রাণ সহায়তা বৃদ্ধি পাবে। এখন প্রতিদিন গাজায় মাত্র ২০০টি ত্রাণবাহী ট্রাক প্রবেশ করে। ইসরাইল ঘোষণা দিয়ে বলেছে, উত্তর গাজায় বেইট হানুন (ইরেজ) ক্রসিং খুলবে। এছাড়া আশদোদ বন্দরের মাধ্যমে সাময়িক সহায়তা সরবরাহের অনুমতি দেবে। সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট, এপি, আল-জাজিরা।